নাটোর চিনিকল

চার মাসের বকেয়া রেখেই দুই মাসের আগাম বেতন

  যুগান্তর রিপোর্ট, নাটোর ২০ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নাটোর চিনিকলে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চার মাসের বকেয়া রেখেই দুই মাসের আগাম বেতন দেয়া হয়েছে। এই চিনিকলে মৌসুমী ও স্থায়ী মিলিয়ে প্রায় নয়শ’ কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছে। আর্থিক সংকটের কারণে গত এপ্রিল মাস থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চার মাসের বেতন ভাতা বকেয়া পড়েছে। এর মধ্যে জরুরি প্রয়োজনে অনেকেই তাদের পাওনা নগদ টাকার পরিবর্তে চিনি নিয়ে শতকরা ১০ থেকে ১৮ টাকা ক্ষতি স্বীকার করে চিনি বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছেন। দীর্ঘদিন বেতন না পাওয়ায় চিনিকলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধার বাকি করে মানবেতন জীবন-যাপন করতে হচ্ছে। গত রোজার ঈদে ঠিকমতো বেতন-ভাতা দিতে না পারায় এবারে কর্তৃপক্ষ ঈদুল আজহা উপলক্ষে বেতনভাতা পরিশোধের উদ্যোগ নেয়। চিনিকলের মহাব্যবস্থাপক (অর্থ) ওয়াকার হাসান জানান, এরই অংশ হিসেবে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জমানো প্রভিডেন্ট ফান্ডের (পিএফ) টাকায় কেনা ১ কোটি ৮০ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগেই ভাঙিয়ে ২ কোটি ৫৮ লাখ টাকা পাওয়া যায়। সেই টাকা থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আগস্ট এবং সেপ্টেম্বর মাসের আগাম বেতন-ভাতা হিসেবে ২ কোটি ২৮ লাখ টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. শফিকুল ইসলাম শিমুল বৃহস্পতিবার চিনিকলে গেট মিটিং করে এই আগাম বেতন ভাতার টাকা প্রদানের উদ্বোধন করেন। এ ব্যাপারে নাটোর চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শহীদ উল্লাহ জানান, নগদ টাকা না থাকায় ঈদের কথা ভেবে বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্য এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আগামীতে কর্পোরেশনের প্রধান কার্যালয় থেকে বেতন-ভাতার জন্য টাকার বরাদ্দ পাওয়া গেলে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পিএফ’র টাকা আবারও সঞ্চয়পত্র কেনা হবে। এদিকে চিনিকলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রায় এক বছরের বাড়ি ভাড়া বকেয়া পড়ায় বেশির ভাগ কর্মকর্তা-কর্মচারী টাকার বদলে চিনি নিয়ে ক্ষতি করে চিনি বিক্রি করেছেন। এখনও যারা বাড়ি ভাড়ার বকেয়া টাকা নেননি তাদেরও সবাইকেই একই ভাবে ক্ষতি করে চিনি নিয়ে পরিশোধ করতে হবে। যেহেতু অন্যরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাই অবশিষ্টদেরও একইভাবে ক্ষতি মেনে টাকা নিতে হবে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter