নির্বাচনের আগে বড় উপলক্ষ কোরবানির ঈদ

চট্টগ্রামে রাজনীতিবিদরা ছুটছেন এলাকায়

  শহীদুল্লাহ শাহরিয়ার, চট্টগ্রাম ব্যুরো ২১ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আগামী ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে সম্ভাব্য জাতীয় নির্বাচন। এ নির্বাচনের আগে পবিত্র ঈদুল আজহাই হচ্ছে বড় উপলক্ষ। এ উপলক্ষকে কাজে লাগাতে চান চট্টগ্রামের রাজনীতিবিদরা। চট্টগ্রামের ১৬টি আসনের প্রায় সব এমপি এবং সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা কোরবানির ঈদ উপলক্ষে এলাকায় ছুটে আসছেন। আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বড় রাজনৈতিক দলগুলোর নেতা তথা ভিআইপি রাজনীতিবিদদের কেউ কেউ দু’দিন তিনদিন ধরে কোরবানি দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন। নেতাকর্মী ও এলাকাবাসীর ভূরিভোজের পাশাপাশি নির্বাচনী ওয়ার্মআপটাও তারা এই ঈদে সেরে নিতে চান তারা। ঈদের ছুটিতে সব ভোটারই এলাকায় থাকেন এ সুযোগে সবার সঙ্গে যোগাযোগ, কুশল বিনিময় কিংবা সৌজন্য দেখানোর সুযোগটাও বেশি থাকে। তাই নির্বাচনের আগে সব মন্ত্রী-এমপি নতুন করে ভোটারদের সঙ্গে নিজেদের সম্পর্ক ঝালাই করে নিতে চান। তবে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা অনেকেই ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়ে এলাকায় এলাকায় পোস্টার সাঁটিয়ে নিজেদের উপস্থিতি জানান দিচ্ছেন।

মিরসরাইয়ের আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি ও পূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ধুম ইউনিয়নের শান্তির হাটে নিজ বাড়িতে ঈদ উদযাপন করবেন। তার এপিএস মোস্তফা মানিক জানিয়েছেন, ঈদের দিন এবং ঈদের পরদিন দুটি করে চারটি পশু কোরবানি দেবেন মন্ত্রী। হাজার হাজার নেতাকর্মী ও সমর্থক আসেন তার সঙ্গে দেখা করতে। সবাইকে আপ্যায়নের ব্যবস্থা করা হবে। ভূমি প্রতিমন্ত্রী ও আনোয়ারার সরকারদলীয় এমপি সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ ঈদের নামাজ আদায় করবেন নিজ নির্বাচনী এলাকার হাইলধর গ্রামে। তিনি সেখানে সারাদিন থাকবেন। তার সহকারী একান্ত সচিব ইমরান হোসেন বাবু বলেন, ‘মন্ত্রী মহোদয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে ৫টি পশু কোরবানি দেয়া হবে। এর মধ্যে দুটি আত্মীয়স্বজন, পরিবার-পরিজনের জন্য এবং তিনটি এলাকার মানুষ ও পলিটিক্যাল লোকজনের জন্য।’

পটিয়া আসনের এমপি সামশুল হক চৌধুরী, বন্দর-পতেঙ্গা আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি এমএ লতিফ, চট্টগ্রামের ডবলমুরিং আসনে সরকারদলীয় এমপি ডা. আফছারুল আমীন, হাটহাজারী আসনে জাতীয় পার্টির এমপি ও পরিবেশমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, রাঙ্গুনিয়া আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি ড. হাছান মাহমুদ, সীতাকুণ্ড আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি দিদারুল আলমসহ প্রায় সব আসনের এমপি এলাকায় ঈদ করবেন। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কেবল রানিং এমপিরাই নয় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতারাও প্রতিটি আসনে কোরবানির ঈদে নির্বাচন সামনে রেখে গেট টুগেদারের আয়োজন করছেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমানও চট্টগ্রামে ভিআইপি টাওয়ারের বাসায় ঈদ করবেন। তবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী নতুন শিক্ষার্থীদের আন্দোলন উসকে দেয়ার একটি মামলায় জড়িয়েছেন। তিনি এলাকায় থাকবেন কিনা সেটি নিশ্চিত করতে পারেননি তার রাজনৈতিক নেতারা। কোতোয়ালি আসন থেকে বিএনপির একমাত্র মনোনয়ন প্রত্যাশী নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন নির্বাচনী এলাকা বাকলিয়ার বাসায় ঈদ উদযাপন করবেন।

তবে সবচেয়ে বেশি পশু কোরবানি দেবেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমের পরিবার। কাট্টলীর বাড়িতে তারা পারিবারিকভাবেই কোরবানির দিন সাতটি পশু কোরবানি দেবেন। এ ছাড়া প্রতিটি মিল-কারখানায় শ্রমিকদের জন্য একটি করে পশু কোরবানি দেন। সব মিলিয়ে ২০টি পশু কোরবানি দেয়া হবে। মনজুর আলম বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে মেয়র হলেও তার ভাতিজা দিদারুল আলম আওয়ামী লীগের মনোনয়নে বর্তমানে সীতাকুণ্ড আসনের এমপি। তাদের কাট্টলীর বাড়িতে ঈদে বসবে আওয়ামী লীগ-বিএনপির নেতাকর্মী সমর্থকদের মিলনমেলা। যদিও এম মনজুর আলম নতুন করে এবার আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী বলে গুঞ্জন আছে। ঘরের ছেলে ঘরে ফেরার অপেক্ষায় বলেও জানান অনেকে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter