আতিকুলের পথসভায় ২ কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ
jugantor
আতিকুলের পথসভায় ২ কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

৩০ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে (ডিএনসিসি) আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের নির্বাচনী প্রচারণায় দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে ছিলেন আতিকুল ইসলাম। বুধবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানের পুলিশ প্লাজার সামনে ফজলে রাব্বি পার্কে এক পথসভায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, এখানে উত্তরের মেয়র প্রার্থী আতিকুলের পথসভা চলছিল। পথসভার শেষ মুহূর্তে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীদের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে ওই স্থানে থাকা কিছু চেয়ার ভেঙে ফেলা হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

ঘটনাস্থলে থাকা কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ফজলে রাব্বি পার্কের ভেতরে আতিকুল ইসলামের সমাবেশ চলছিল। এ সময় সেখানে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী মো. জাহিদুর রহমান ওরফে দুলাল তার কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে আসেন। এরপরই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী মো. নাছিরের কর্মী-সমর্থক ও জাহিদুর রহমানের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়।

আতিকুলের বক্তব্য শেষে সমাবেশের উত্তেজনার একপর্যায়ে তার পরিবারের সদস্যরা চলে যান। এরপর আতিকুল ইসলাম মঞ্চ থেকে সরে যাওয়ার পর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে মারামারি, ধাক্কাধাক্কি ও চেয়ার দিয়ে পেটানোর ঘটনাও ঘটে। পার্কের পশ্চিম কোণে আতিকুল ইসলামসহ মো. নাসিরের কর্মী-সমর্থকেরা পার্ক থেকে বের হয়ে গণসংযোগে যান। আতিকুল ইসলাম মহাখালী দক্ষিণপাড়া সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালের সামনে যান। সেখানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে আতিকুল ইসলাম বলেন, পার্কের ভেতর কাউন্সিলরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাটি অনাকাক্সিক্ষত। এ ধরনের ঘটনা মেনে নেয়া যায় না। বিষয়টি আমি কেন্দ্রীয় নেতাদের জানিয়েছি। তিনি বলেন, কাউন্সিলর প্রার্থীদের নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ভোটের দিন কোনো প্রভাব ফেলবে না। কাউন্সিলরদের মধ্যে সংঘর্ষ, নিজেদের মধ্যে অনৈক্য কিনা- এ বিষয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, পরিবারে ভাই ভাই বা বোনের মধ্যেও তর্ক-বিতর্ক হয়।

এটা ঠিক হয়ে যাবে।

আতিকুলের পথসভায় ২ কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ

 যুগান্তর রিপোর্ট  
৩০ জানুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে (ডিএনসিসি) আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের নির্বাচনী প্রচারণায় দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে ছিলেন আতিকুল ইসলাম। বুধবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানের পুলিশ প্লাজার সামনে ফজলে রাব্বি পার্কে এক পথসভায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, এখানে উত্তরের মেয়র প্রার্থী আতিকুলের পথসভা চলছিল। পথসভার শেষ মুহূর্তে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীদের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে ওই স্থানে থাকা কিছু চেয়ার ভেঙে ফেলা হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

ঘটনাস্থলে থাকা কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ফজলে রাব্বি পার্কের ভেতরে আতিকুল ইসলামের সমাবেশ চলছিল। এ সময় সেখানে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী মো. জাহিদুর রহমান ওরফে দুলাল তার কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে আসেন। এরপরই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী মো. নাছিরের কর্মী-সমর্থক ও জাহিদুর রহমানের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়।

আতিকুলের বক্তব্য শেষে সমাবেশের উত্তেজনার একপর্যায়ে তার পরিবারের সদস্যরা চলে যান। এরপর আতিকুল ইসলাম মঞ্চ থেকে সরে যাওয়ার পর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে মারামারি, ধাক্কাধাক্কি ও চেয়ার দিয়ে পেটানোর ঘটনাও ঘটে। পার্কের পশ্চিম কোণে আতিকুল ইসলামসহ মো. নাসিরের কর্মী-সমর্থকেরা পার্ক থেকে বের হয়ে গণসংযোগে যান। আতিকুল ইসলাম মহাখালী দক্ষিণপাড়া সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালের সামনে যান। সেখানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে আতিকুল ইসলাম বলেন, পার্কের ভেতর কাউন্সিলরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাটি অনাকাক্সিক্ষত। এ ধরনের ঘটনা মেনে নেয়া যায় না। বিষয়টি আমি কেন্দ্রীয় নেতাদের জানিয়েছি। তিনি বলেন, কাউন্সিলর প্রার্থীদের নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ভোটের দিন কোনো প্রভাব ফেলবে না। কাউন্সিলরদের মধ্যে সংঘর্ষ, নিজেদের মধ্যে অনৈক্য কিনা- এ বিষয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, পরিবারে ভাই ভাই বা বোনের মধ্যেও তর্ক-বিতর্ক হয়।

এটা ঠিক হয়ে যাবে।