তুরাগে সড়ক দখল করে বাঁশের ব্যবসা

  মো. পলাশ প্রধান ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

তুরাগে সড়ক দখল করে বাঁশের ব্যবসা
ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর তুরাগে সড়ক দখল করে চলছে বাঁশের ব্যবসা। এসব সামগ্রী রাখার কারণে সড়কগুলো সংকুচিত হয়ে পড়েছে। ছাত্রছাত্রী ও পথচারীদের চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। সড়কে নিরাপদে চলাচলের স্বার্থে এসব সরানোর কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)।

সরেজমিন দেখা যায়, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের তুরাগের কামারপাড়া এলাকাসহ প্রায় সড়কে দীর্ঘদিন ধরে বাঁশের জিনিসপত্র রাখা হচ্ছে।

তুরাগের মূল সড়কের পাশাপাশি শাখা সড়ক স্লুইচ গেট সড়ক, রানাভোলা এভিনিউ সড়ক, শাহেব আলী সড়ক, আইইউবিএটি বিশ্ববিদ্যালয় সড়ক, ইস্টওয়েস্ট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল সড়কসহ বিভিন্ন সড়কে শতাধিক ব্যবসায়ী তাদের জিনিসপত্র রাখার কারণে চলাচলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হচ্ছে।

তুরাগ কাঁচাবাজার থেকে রানাভোলা সড়ক, ঢাকা-আশুলিয়া সড়ক, মূল সড়ক এবং তুরাগ থানা এলাকা থেকে দিয়াবাড়ি পর্যন্ত বিভিন্ন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের জিনিসপত্র সড়কের খালি অংশ, ফুটপাত এমনকি মূল সড়কেও রাখা হয়েছে।

এমন চিত্র দেখা যায় তুরাগের ফুলবাড়িয়া, সিরাজ মার্কেট, ধরঙ্গার টেক, নয়ানগড়, চন্ডলভোগ, নলভোগ, পাকুড়িয়া, আহালিয়া, দলিপাড়া, বাউনিয়া, উলুদাহা, বাদালদী ও ফাঁড়ি এলাকায়।

কামারপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় যাত্রী ছাউনির দু’পাশ ঘিরে নির্মাণ করা হয়েছে দোকানঘর। এছাড়া সড়কের পাশে রাখা ইট, পাথর ও বালির কারণে ধুলোবালির নিচে ঢাকা পড়ছে চারপাশ। যানজট ও দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে ছাত্রছাত্রী ও পথচারীরা। তুরাগের কামারপাড়া

এলাকার পথচারী লতিফ সরকার বলেন, এ এলাকায় আমি জন্ম থেকে এসব ব্যবসা দেখে আসছি। কেউ তাদের বাধা দিচ্ছে না। ৪-৫ বছর আগে একটি দোকান তুরাগ থানা পুলিশ ভেঙে দিয়েছিল। দু’দিন পর আবার আগের মতো দখল করে ব্যবসা শুরু করেছে।

ব্যবসায়ী আব্দুল করিম জানান, সবকিছু মেনেজ করেই ব্যবসা করছি। কারও ক্ষতি করে ব্যবসা করছি না। মাঝে মাঝে বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের লোকজন এসে আমাদের উচ্ছেদ করে দেয়। আমরা গরিব, ছোটখাটো ব্যবসা করে খাই, আমাদের পেটে লাথি মেড়ে লাভ কি?

আহছানিয়া মিশন এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) জায়গা দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে দোকানপাট। মোটরসাইকেল, গাড়ি ও রিকশা মেরামতের কাজ চলছে সড়কের ওপরেই। কামারপাড়া ব্রিজ থেকে স্লুইস গেট পর্যন্ত চলাচলের নতুন রাস্তাটিতে যেন চলছে দখলের উৎসব।

দোকানদার, বাড়ির মালিকেরা যে যেভাবে খুশি পাউবোর জায়গা দখল করে ব্যবহার করছেন। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন সড়কের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের কথা বললেও তা ঘোষণাতেই আটকে আছে।

এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আঞ্চলিক (অঞ্চল-৩) নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হেমায়েত হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি যুগান্তরকে জানান, রাস্তার ওপরে বাঁশের ব্যবসা, কোনো রকম ইট-বালি ও দোকানপাট রাখতে পারবে না।

যদি রাখে তাদের ম্যাজিট্রেট জরিমানা করতে পারবেন। কয়েকবার জরিমানা করেছেনও। তিনি আরও জানান, রাস্তার ড্রেন ভরে যায় মাটি ও বালিতে। তারপরও রাস্তার ওপর বাঁশ ও নির্মাণ সামগ্রী যাতে না রাখে ম্যাজিস্ট্রেটকে ব্যবস্থা নিতে বলা হবে।

এ বিষয়ে তুরাগ থানার ওসি (অপারেশন) মো. দুলাল হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি যুগান্তরকে বলেন, রাস্তা দখল করে বাঁশের ব্যবসা করছে এ পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। যদি তুরাগ এলাকায় রাস্তা দখল করে কেউ কোনো ব্যবসা-বাণিজ্য করে তাহলে সঙ্গে সঙ্গে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×