৫০ নম্বর ওয়ার্ড: নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি

  একেএম সীমান্ত ও আরিফ আহমেদ পলয় ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

৫০ নম্বর ওয়ার্ড: নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি
ফাইল ছবি

অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ সব ধরনের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ৫০নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীরা ভোট প্রার্থনা করছেন।

এ লক্ষ্যে তারা ওয়ার্ডের প্রতিটি এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন। নতুন নতুন রাস্তা নির্মাণ, পুরনো রাস্তাগুলোর সংস্কার ও ওয়ার্ডের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোয় নিরাপত্তা বিধানে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন প্রার্থীরা।

এছাড়া শাখা রাস্তাগুলোকে ড্রেনসহ জনগণের চলাচলের উপযোগী করে গড়ে তোলা, শিশুদের জন্য পার্ক ও খেলার মাঠ নির্মাণ, কমিউনিটি সেন্টার স্থাপন ও কলেজগামী ছাত্রীদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অঙ্গীকার করছেন তারা।

সম্পূর্ণ ওয়ার্ডকে নির্বাচিত হওয়ার ছয় মাসের মধ্যে মাদকমুক্ত করতে চান প্রার্থীরা।

ডিএনসিসির নবগঠিত এ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হতে এবার ভোটের মাঠে লড়ছেন জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর উত্তরের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দক্ষিণখান থানা জাতীয় পার্টির সিনিয়র সহসভাপতি ফজলুল হক শিশির (মিষ্টিকুমড়া), বিমানবন্দর থানা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. নুরুজ্জামান বাবলু (ঠেলাগাড়ি), ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সহসভাপতি ডিএম শামীম (লাটিম), দক্ষিণখান থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু হানিফ (ঘুড়ি), দক্ষিণখান ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার আকরাম উদ্দিন (টিফিন ক্যারিয়ার) ও দক্ষিণখান ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম রিপন (ট্রাক্টর)।

নগরীর মোল্লারটেক, ইরশাল, আজমপুর উত্তর ও দক্ষিণ নিয়ে গঠিত ডিএনসিসির ৫০নং ওয়ার্ড। জনসংখ্যা বর্তমানে প্রায় দেড় লাখ। ভোটার রয়েছেন ৫১ হাজার ৯০৭ জন।

ওয়ার্ড হিসেবে সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্ত হলেও এখনও এখানে পৌঁছেনি নগর জীবনের কোনো সুবিধা। এ এলাকার ভোটারদের প্রধান দাবি নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ। জলাবদ্ধতা, ভাঙা ও সরু রাস্তা, মাদকের প্রাদুর্ভাব রয়েছে ব্যাপক আকারে।

পানি নিষ্কাশনে ড্রেনেজ সিস্টেম বলে কিছু নেই এ ওয়ার্ডে। এ কারণে শুষ্ক মৌসুমেও উন্মুক্ত ড্রেন থেকে ময়লার পানি উপচে পড়ছে মূল রাস্তায়। বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতায় চরমভাবে নাকাল হতে হয় সাধারণ মানুষকে।

এ ওয়ার্ডে স্যুয়ারেজ ও আবর্জনা অপসারণ ব্যবস্থা নেই বললেই চলে। এলাকাবাসীর বিনোদনের জন্য নেই কোনো পার্ক, খেলার মাঠ, সরকারি হাসপাতাল, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়।

তরুণ প্রার্থী ফজলুল হক শিশির বলেন, আমি নির্বাচিত হলে এলাকার পয়ঃনিষ্কাশন ও জলাবদ্ধতা দূরীকরণে আধুনিক ড্রেনেজ সিস্টেম চালু করব। সব রাস্তা প্রশস্ত করব, গ্যাস সরবরাহের জন্য সরকারের প্রতি জনগণের হয়ে যা যা করার করব।

যদিও স্থান সংকট, তবুও খেলার মাঠ তৈরি করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করব। এলাকার সার্বিক নিরাপত্তা বিধানে সিসি ক্যামেরা বসাব। মাদক নির্মূলে কাজ করব।

ইতঃপূর্বে এলাকাবাসীর পানির সংকট দূর করতে পাম্প স্থাপনের জন্য আমি নিজ মালিকানাধীন দেড় কাঠা জমি নামমাত্র মূল্যে ওয়াসাকে দিয়েছি।

প্রয়োজনে আগামী দিনে এলাকাবাসীর পানির সংকট দূরীকরণে পাম্প স্থাপনের জন্য আরও জমির ব্যবস্থা করব। আরেক প্রার্থী নুরুজ্জামান বাবলু বলেন, স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মাদ্রাসাসহ অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে সার্বিক সহযোগিতা করব।

অগ্রাধিকার ভিত্তিতে জলাবদ্ধতা দূরীকরণ ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ সব নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করব। শাখা রাস্তাগুলোকে ড্রেনসহ জনগণের চলাচলের উপযোগী করে গড়ে তুলব। এলাকাবাসীর চিকিৎসার জন্য একটি আধুনিক হাসপাতাল স্থাপন করব। গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোয় সিসি ক্যামেরা বসাব।

ওয়ার্ডের সুবিধা মতো স্থানে একটি শিশুপার্ক ও ছেলেমেয়েদের জন্য খেলাধুলা এবং সামাজিক অনুষ্ঠানের জন্য মাঠ তৈরি করব। ওয়ার্ডের বরাদ্দ করা সব অর্থ সুশীলসমাজের সঙ্গে পরামর্শ করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বরাদ্দ দেব। স্কুল ও কলেজগামী ছাত্রীদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

পাশাপাশি নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ ও পোশাক শিল্পে নিয়োজিত নারী শ্রমিকসহ সব কর্মজীবী নারীর নিরাপত্তা বিধানে কাজ করব।

ঘটনাপ্রবাহ : ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচন

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×