বিক্ষোভের মুখে পিছু হটল বিআইডব্লিউটিএ

আগের মতোই তিন ঘাটে নৌকায় পারাপার চলবে

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৪ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আগের মতোই তিন ঘাটে নৌকায় পারাপার চলবে
ফাইল ছবি

বুড়িগঙ্গা নদীর সদরঘাট (ঢাকা নদীবন্দর) ও কেরানীগঞ্জে পারাপারে দুটি খেয়াঘাট বন্ধের সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হটেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও ব্যবসায়ীদের দাবির মুখে ওই সিদ্ধান্ত বাতিল করে আগের মতোই নৌকায় যাত্রী পারপার চলবে। তবে দুর্ঘটনা রোধে বাড়ানো হবে টহল কার্যক্রম।

পাশাপাশি সদরঘাটের পন্টুনের দুই পার্শ্বে অবকাঠামো তৈরির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। অবকাঠামো তৈরির পর নির্দিষ্ট স্থানে নৌকা চলাচল করবে। বুধবার বিকালে ঢাকা নদীবন্দরে এক যৌথসভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

ওই সভায় নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, স্থানীয় সংসদ সদস্য বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, নৌপরিবহন সচিব মো. আবদুস সামাদসহ সংশ্লিষ্টরা অংশ নেন।

সভার সিদ্ধান্তের বিষয়ে নৌপরিবহন সচিব মো. আবদুস সামাদ যুগান্তরকে বলেন, আমরা সার্বিক দিক পর্যালোচনা করে আগের মতোই নৌকা পারাপার করতে দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

পাশাপাশি সদরঘাটের দুই পার্শ্বে নদী পারাপারের উপযোগী অবকাঠামো তৈরি করারও সিদ্ধান্ত হয়েছে। অবকাঠামো তৈরির পরই নৌকাঘাট স্থানান্তর করা হবে। তিনি বলেন, তবে নৌ দুর্ঘটনা এড়াতে বুড়িগঙ্গায় টহল বাড়ানো হবে।

ধাপে ধাপে অযন্ত্রচালিত নৌযান বন্ধ করে দেয়া হবে। এসব নৌযানের চালকদের কর্মসংস্থানও করা হবে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাতে সদরঘাটে লঞ্চের ধাক্কায় নৌকাডুবির ঘটনায় ছয়জন প্রাণ হারান।

এরপর বিআইডব্লিউটিএ গত সোমবার সিদ্ধান্ত নেয়, সদরঘাট থেকে কেরানীগঞ্জের কালীগঞ্জ, সিমসনঘাট থেকে কালীগঞ্জের পথে খেয়ানৌকা চলাচল বন্ধ থাকবে। শুধু ওয়াইজঘাট থেকে আগানগর পথে নৌকা চলবে। ওই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার বিক্ষোভ করেন খেয়ানৌকার মাঝি, তৈরি পোশাক ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা।

সভায় অংশ নেয়া একাধিক কর্মকর্তা জানান, ওই সভায় ব্যবসায়ী ও কেরানীগঞ্জের জনপ্রতিনিধিরা দুটি ঘাট বন্ধ করে দেয়ার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তব্য দেন। তারা বলেন, বর্তমানে তিনটি পয়েন্টে নৌকা পারাপার হয়।

দুটি ঘাট বন্ধ করে দেয়ায় কেরানীগঞ্জের বাণিজ্যিক কার্যক্রম থমকে গেছে। অথচ বিআইডব্লিউটিএ বিকল্প কোনো ব্যবস্থা করেনি। এ অবস্থা চলতে থাকলে কেরানীগঞ্জের ব্যবসা চরম ক্ষতির মুখে পড়বে। ওই সভায় ঘাট দুটি সচল রাখার পক্ষে-বিপক্ষে তুমুল বিতণ্ডা হয়।

একপর্যায়ে আগের মতোই নৌকা পারাপার অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিআইডব্লিউটিএর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, সদরঘাট এলাকায় এলোমেলো নৌকা চলাচল করায় প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে। সর্বশেষ নৌ দুর্ঘটনায় ছয়জন মারা যাওয়ার ঘটনা কেন্দ্র করে দুটি ঘাট বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

যদিও এ সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে সংস্থাটির কর্মকর্তাদের ভেতরেই ভিন্নমত রয়েছে। তবুও কয়েক কর্মকর্তার প্রবল দাবির মুখে নৌকা পারাপার বন্ধ করা হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×