তেজগাঁও সাতরাস্তা মোড়

ব্যবহারের অযোগ্য দুটি যাত্রী ছাউনি

রয়েছে স্থায়ী দুটি দোকান

  তেজগাঁও প্রতিনিধি ২৪ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নগরীর তেজগাঁও সাতরাস্তায় দুটি যাত্রী ছাউনি অযত্ন-অবহেলায় বেহাল হয়ে পড়েছে। যাত্রী বা পথচারীদের জন্য তৈরি করা ছাউনিগুলো দখল ও ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে আছে। দীর্ঘদিন সংস্কার না করা ও অযত্ন-অবহেলায় যাত্রী ছাউনির কিছু স্থানে ভেঙে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এতে বাসের জন্য অপেক্ষমান যাত্রী ও পথচারীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

তেজগাঁও সাতরাস্তা এলাকায় বাসের জন্য অপেক্ষমাণ যাত্রীদের বিশ্রাম নেয়ার জন্য তৈরি করা হয় রাস্তায় দু’পাশে দুটি যাত্রী ছাউনি। অথচ রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে আছে এসব যাত্রী ছাউনি। এ দুটি যাত্রী ছাউনির বসার বেঞ্চ ভাঙা, পলেস্তারা খসে পড়ছে। ময়লা জমে জমে কালচে রং ধারণ করেছে। অবৈধ দখল, মাদকসেবী, ভিক্ষুক ও হকারদের আড্ডাখানায় পরিণত হয়েছে এ দুটি যাত্রী ছাউনি। নাগরিকদের সুবিধার পরিবর্তে এ দুটি যাত্রী ছাউনির কারণে মানুষের ভোগান্তি বাড়ছে। জানা যায়, আশির দশকে নির্মিত এ যাত্রী ছাউনিগুলোতে তেমন একটা উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি।

যাত্রী ছাউনির একটি সাতরাস্তার পশ্চিম পাশে কেন্দ্রীয় ঔষাধাগার (সিএমএসডি) সামনে ও অন্যটি পূর্ব পাশে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব গ্লাস অ্যান্ড সিরামিক্সের সামনে। ছাউনি দুটির একাংশে রয়েছে দোকান। এছাড়াও ছাউনিতে রয়েছে ভাসমান চা-সিগারেটের দোকান। বসার জন্য সিমেন্টের তৈরি বেঞ্চ রয়েছে। তবে, বেঞ্চে একাংশ ভেঙে আছে। ছাদ ও দেয়ালের পলেস্তারা খসে পড়ছে। পোস্টারেও ছেয়ে গেছে পুরো ছাউনি। আবর্জনায় ভরপুর হওয়ায় সবসময় মশার উপদ্রব থাকে।

যাত্রী ছাউনিতে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন মহসীন উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি। ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, আমাদের অর্থ দিয়ে, আমাদের জন্য তৈরি করা ছাউনি কেন ব্যবহারের অযোগ্য থাকবে? বসার জন্য ছোট একটি বেঞ্চ রয়েছে, সেটিও ভাঙা। আবর্জনার গন্ধে থাকা যায় না। একটু বিশ্রাম নিতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে যেতে হয়।

আরেক পথচারী জাহিদ হাসান বলেন, যাত্রী ছাউনিতে শুধু বাসের যাত্রীরা অপেক্ষা করে না। অনেক দূর থেকে আসা পথচারীরাও বিশ্রাম নেয়। বিশেষ করে, রোদ বৃষ্টি থেকে আশ্রয় নিতে যাত্রী ছাউনির প্রয়োজন অনেক বেশি। তবে, এ ছাউনির বিভিন্ন অংশ ভেঙে গেছে। যাত্রী ছাউনি দুটিতে স্থায়ী দুটি দোকান রয়েছে।

রাস্তার পূর্ব পাশে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব গ্লাস অ্যান্ড সিরামিক্স সামনে যাত্রী ছাউনি দোকানদার মো. আবদুল মান্নান জানান, সিটি কর্পোরেশন থেকে টেন্ডারের মাধ্যমে আবু ইউসুফ এ দোকান নিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এ ছাউনির সংস্কার করা হয় না। তবে, প্রায় পাঁচ বছর আগে প্রধানমন্ত্রী আসায় রং করা হয়েছিল। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন উন্নয়ন না করায় এ যাত্রী ছাউনিতে পথচারীবান্ধব পরিবেশ নেই। বসারও ব্যবস্থা খুবই কম।

আরেক পথচারী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থী আনুবা বলেন, যাত্রী ছাউনিগুলোর যে অবস্থা এতে ছেলেদেরই বসার পরিবেশ নেই। মেয়েরা কিভাবে বসবে। সরকারের উচিত এসব ছোট বিষয়গুলোকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখা। বিশেষ করে নারীদের চলার পরিবেশ সৃষ্টি করা।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান, তেজগাঁও সাতরাস্তার যাত্রী ছাউনি দুটি শিগগির সংস্কার করা হবে। ইতিমধ্যে রাস্তার ফুটপাতের উন্নয়ন কাজ শুরু হয়েছে। ছাউনিগুলোতে বনায়ন ও ডিজিটালাইজ করা হবে। এছাড়াও সিটি কর্পোরেশনের যেসব যাত্রী ছাউনি মেয়াদ শেষ। সেসব যাত্রী ছাউনি ভেঙে নতুনভাবে নির্মাণ করা হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×