খাদ্য ও স্যানিটেশন শাখা

ভেজালবিরোধীসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা

  যুগান্তর ডেস্ক    ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১০টি অঞ্চলে স্যানিটেশন শাখার কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। উত্তরের ৫টি অঞ্চল হল- উত্তরা-০১, মিরপুর-২, মহাখালী-০৩, মিরপুর ১০-০৪, কারওয়ানবাজার-০৫। দক্ষিণের ৫টি অঞ্চল হল- নগরভবন ১২ তলা-০১, নগরভবন ২য় তলা-০২, আজিমপুর-০৩, খিলগাঁও-০৪, সায়েদাবাদ-০৫।

কে কার্যক্রম পরিচালনা করে : স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ভ্রাম্যমাণ আদালতে প্রসিকিউশনের দায়িত্ব পালন করেন। তারা স্থানীয় সরকার আইন-২০০৯, ভোক্তা অধিকার আইন-২০০৯ এবং নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩-এর বিভিন্ন ধারাগুলো ভেজালবিরোধী কার্যক্রমে প্রয়োগ করে থাকে।

খাদ্য ও স্যানিটেশনের আওতায় কী কী রয়েছে :

১. ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সভা-সমাবেশ।

২. ব্যবসায়ীদের স্বাস্থ্যশিক্ষা প্রদান।

৩. যেসব ব্যবসায়ী আইন অমান্য করেন তাদের নোটিশ প্রদান।

৪. ভেজাল সন্দেহে খাদ্যের নমুনা সংগ্রহ এবং ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ।

৫. ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহণ।

৬. কাঁচা পায়খানা অপসারণ/নোটিশ প্রদান।

৭. স্থানীয় সরকার আইন-২০০৯, ভোক্তা অধিকার আইন-২০০৯ এবং নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩ প্রয়োগ করার জন্য প্রসিকিউশন অফিসারের দায়িত্ব পালন।

৮. মৃত্যু সনদ প্রদানের ক্ষেত্রে রিপোর্ট প্রদান।

জেল ও জরিমানা বিধান : বিভিন্ন খাবার প্রতিষ্ঠান থেকে ভেজাল সন্দেহে খাদ্যের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। ভেজাল প্রমাণিত হলে নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩ অনুযায়ী ২ বছরের জেল অথবা অনাদায়ী ৩-৬ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। স্থানীয় সরকার আইন-২০০৯ অনুযায়ী সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter