আগারগাঁওয়ে গাছের হাসপাতাল

রয়েছে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস

  শেকৃবি সংবাদদাতা ১২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হাসপাতাল

নগর সভ্যতার ইট-কাঠের শহরগুলো থেকে দ্রুত হারিয়ে যাচ্ছে সবুজ। সমাজের একটা অংশ সবুজকে ধরে রাখতে চায় আবাসস্থলে গাছ লাগিয়ে। কিন্তু সময় কিংবা সঠিকভাবে পরিচর্যার অভাবে ছাদ-বাগান করতে পারেন না অনেকেই।

মানুষ কিংবা পশুপাখির যে কোনো রোগের চিকিৎসায় আছে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল। আছেন বড় বড় ডিগ্রিধারী চিকিৎসকও। কিন্তু গাছের রোগে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালের কথা বললে অনেকে হয়তো বা হেসেই ফেলবেন।

হ্যাঁ, হাসপাতালের মাধ্যমে এখন চিকিৎসা হবে গাছের। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পরিবেশ অধিদফতরের পাশে গাছের চিকিৎসায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে ‘গ্রিন সেভার্স অ্যাসোসিয়েশন’ নামের একটি সংগঠন। সংগঠনটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে বাগান করে দেয়ার পাশাপাশি গাছের যে কোনো সমস্যা হলেই পাঠায় একজন পরিচর্যাকারী বা গাছের ডাক্তার। গাছের সেবার জন্য আছে হাসপাতাল ও অ্যাম্বুলেন্স সেবা।

আগারগাঁও পরিবেশ অধিদফতরের সামনে সরেজমিন দেখা যায় ছোট্ট একটু জায়গা। যেখানে সবুজ রঙের সাইনবোর্ডে লেখা গাছের হাসপাতাল। তার সামনে দাঁড় করিয়ে রাখা একটি গাড়ি। এ গাড়িটি আসলে গাছের অ্যাম্বুলেন্স।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের দেয়া এ গাড়িটি দিয়েই ‘গ্রিন সেভার্স’ প্রতিনিয়ত গাছের সেবা দিয়ে আসছে। তাদের এ ব্যতিক্রমধর্মী গাছের সেবা ২০১০ সালে চালু হয়। হাসপাতালে সবসময় থাকেন গাছের ডাক্তারও। হাসপাতালে রয়েছে গাছ লাগানো। আম, পেয়ারা, কামরাঙা, লেবু ছাড়াও বিভিন্ন সৌন্দর্যবর্ধক গাছ।

ডাক্তাররা বুধবার ব্যতীত প্রতিদিন সকালে সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে পড়েন। সাইকেলের পেছনে থাকে একটি বাক্স। ভেতরে গাছের জন্য নানা ওষুধ আর গাছ পরিচর্যার যন্ত্রপাতি। যেসব বাড়িতে গ্রিন সেভার্সের করা ছাদ-বাগান আছে সেখানে নিয়মিত দেখভাল করাই তাদের কাজ।

তাদের উদ্দেশ্য ঢাকাকে একটি সবুজের নগরে পরিণত করা। এ সংগঠনের আরেকটি কাজ হল প্রজেক্ট অক্সিজেন ব্যাংক। স্কুল শিক্ষার্থীদের গাছ লাগানো ও পরিচর্যা শেখানোর মধ্য দিয়ে গাছের প্রতি তাদের ভালোবাসা তৈরি করাই তাদের মূল লক্ষ্য। গাছের হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা আহসান রনি যুগান্তরকে বলেন, মানুষের যেমন প্রাণ আছে, তেমনি গাছেরও। গাছ আমাদের প্রতিনিয়ত বাঁচিয়ে রাখে। মানুষের বেঁচে থাকার জন্য হলেও গাছকে বাঁচাতে হবে, তাই আমার এ উদ্যোগ। তিনি বলেন, যারা বাড়ির ছাদে বাগান, ব্যালকনিতে বাগান করতে চান তাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে তারা কোথায় গাছ পাবেন, কোথায় টব পাবেন, কোথায় মাটি? আবার অনেক সময় দেখা যায়, গাছের যত্ন করার কেউ থাকে না। তাই আমরা এ সেবা দিয়ে থাকি, যাতে এক স্থান থেকে সব সুবিধা পাওয়া যায়। আমাদের হেল্পলাইনে কল দিলে গ্রাহকরা পেতে পারেন নানা পরামর্শ। তিনি আরও বলেন, আমরা সাপ্তাহিক, মাসিক কিস্তিতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে গাছের পরিচর্যা করে থাকি। গাছের চিকিৎসা করতে কোনো ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় না। তবে গাছের কন্ডিশন খুবই খারাপ হলে কেমিক্যাল ব্যবহার করতে হয় বলেও জানান তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্সে পড়ার সময়েই আহসান রনির এ চিন্তা মাথায় আসে। গড়ে তোলেন সবুজ বাঁচানোর সংগঠন গ্রিন সেভার্স। তার এ প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে ২৩ জন গাছের ডাক্তার রয়েছেন। রাজধানী ও এর আশপাশের এলাকা অনুযায়ী ডাক্তারদের জন্য ৩০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। পরিবেশবান্ধব সংগঠন গ্রিন সেভার্সে জমা করা হয় ফি’র টাকা। উল্লেখ্য সরকারি বা বেসরকারি কোনো সহায়তা পেলে বৃহৎ পরিসরে সেবা দেয়া সম্ভব বলে জানান রনি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×