কৃষ্ণা রায়ের দুর্ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে
jugantor
কৃষ্ণা রায়ের দুর্ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে
-নৌপ্রতিমন্ত্রী

  যুগান্তর রিপোর্ট ও শেকৃবি প্রতিনিধি  

০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

সড়ক দুর্ঘটনায় পা হারানো চিকিৎসাধীন কৃষ্ণা রায়কে দেখতে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে গিয়েছিলেন নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। পরে তিনি বলেন, গাড়ি দুর্ঘটনায় আহত বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তা কৃষ্ণা রায়ের চিকিৎসায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ দুর্ঘটনার জন্য অপরাধীদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।

শনিবার রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে যান নৌপ্রতিমন্ত্রী। এ সময় অন্যদের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব আসাদুল ইসলাম, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান প্রণয় কান্তি বিশ্বাস এবং পঙ্গু হাসপাতালের পরিচালক আবদুল গনি মোল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, চিকিৎসকরা কৃষ্ণা রায়ের চিকিৎসায় সর্বাত্মক চেষ্টা করছেন। এর থেকে জটিল চিকিৎসার সক্ষমতা আমাদের রয়েছে। কৃষ্ণা রায়ের একটি পা ফেরত পাওয়া যাবে না, তবে তাকে সুস্থ করার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, কৃষ্ণা রায়ের চিকিৎসার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় অবহিত রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তদন্ত করে অপরাধীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার ব্যবস্থা করবে। তিনি কৃষ্ণা রায়ের স্বামী রাধা শ্যাম চৌধুরী ও তার ছেলে কৌশিকের সঙ্গে কথা বলে তাদের সান্ত্বনা দেন।

পরে কৃষ্ণার স্বামী রাধা শ্যাম চৌধুরী বলেন, মামলা তো করেছি। কিন্তু পুলিশ এখনও আসামিদের ধরতে পারেনি। আমরা এর বিচার চাই।

কৃষ্ণা রায়ের দুর্ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে

-নৌপ্রতিমন্ত্রী
 যুগান্তর রিপোর্ট ও শেকৃবি প্রতিনিধি 
০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী
নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। ফাইল ছবি

সড়ক দুর্ঘটনায় পা হারানো চিকিৎসাধীন কৃষ্ণা রায়কে দেখতে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে গিয়েছিলেন নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। পরে তিনি বলেন, গাড়ি দুর্ঘটনায় আহত বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তা কৃষ্ণা রায়ের চিকিৎসায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ দুর্ঘটনার জন্য অপরাধীদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।

শনিবার রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে যান নৌপ্রতিমন্ত্রী। এ সময় অন্যদের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব আসাদুল ইসলাম, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান প্রণয় কান্তি বিশ্বাস এবং পঙ্গু হাসপাতালের পরিচালক আবদুল গনি মোল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, চিকিৎসকরা কৃষ্ণা রায়ের চিকিৎসায় সর্বাত্মক চেষ্টা করছেন। এর থেকে জটিল চিকিৎসার সক্ষমতা আমাদের রয়েছে। কৃষ্ণা রায়ের একটি পা ফেরত পাওয়া যাবে না, তবে তাকে সুস্থ করার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, কৃষ্ণা রায়ের চিকিৎসার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় অবহিত রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তদন্ত করে অপরাধীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার ব্যবস্থা করবে। তিনি কৃষ্ণা রায়ের স্বামী রাধা শ্যাম চৌধুরী ও তার ছেলে কৌশিকের সঙ্গে কথা বলে তাদের সান্ত্বনা দেন।

পরে কৃষ্ণার স্বামী রাধা শ্যাম চৌধুরী বলেন, মামলা তো করেছি। কিন্তু পুলিশ এখনও আসামিদের ধরতে পারেনি। আমরা এর বিচার চাই।