আলিয়াঁস ফ্রঁসেজে দলীয় প্রদর্শনী ‘অনুষঙ্গ’ শুরু

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শিল্পীরা তাদের পরিপার্শ্বের গভীর পর্যবেক্ষক এবং শিল্পকর্মে তা সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্মভাবে তুলে ধরেছেন। তাদের চিত্রকর্মগুলো সজীব ও প্রাণবন্ত। যা দর্শকদের এক ধরনের তৃপ্তিসুখকর অনুভূতিতে জারিত করবে। রাজধানীর আলিয়াঁস ফ্রঁসেজ দ্য ঢাকার গ্যালারি জুমে শুরু হয়েছে ‘অনুষঙ্গ’ শীর্ষক দলীয় চিত্রপ্রদর্শনী।

মঙ্গলবার বিকালে শুরু হয়েছে দলগত প্রদর্শনী। উদ্বোধনী আয়োজনে অতিথি ছিলেন শিল্পী হাসান মাহমুদ এবং গ্যালারি শিল্পাঙ্গনের পরিচালক রুমি নোমান।

মাহাবুব আলম তার শিল্পকর্মে কালির তরল প্রবাহে বা সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম আঁচড়ে বৃক্ষরাজি এবং ভূপ্রকৃতি চিত্রায়িত করেছেন। ইকবাল বাহার চৌধুরীর অ্যাক্রিলিক শিল্পকর্মগুলো, আক্ষরিক ও ভাবার্থে, এক ঘূর্ণিকেই দৃশ্যমান করে তোলে, তার বিমূর্ত হস্তশিল্প যেন নিশ্চুপ প্যালেটের এক একটা গল্পের বয়ান। এসএম এহসানের কোলাগ্রাফগুলো বিন্যাসিত, অকপট এবং বক্তব্যসমৃদ্ধ। কুন্তল বড়াই কাজগুলো যেন একটু বিশেষভাবে ধ্রুপদী অথচ প্রান্তসীমায় ঝুলন্ত, যেন তার কাজ নিচু ও উচ্চমাত্রার প্রকাশবাদী রঙের গোলোকধাঁধা পাকিয়ে তুলেছে, যেন ইচ্ছা করলেই এক জাদুর ঘূর্ণিতে তারা বহির্বাস্তবতায় কায়াময় হয়ে উঠত পারে। পারভেজ হাসান রিগ্যানের ফর্মে রয়েছে বেশ রূপকধর্মিতা এবং তাতে যে রঙ মূর্ত হয়ে উঠেছে তাও বেশ অনেকটা ঝলমলে এবং স্নিগ্ধ।

হাতে বোনা সূচিশিল্প এবং পশমি গেরোর বুননে নাবিলা নবী এনেছেন ট্যাপেস্ট্রির এক সংগ্রহ, যার শিল্পরূপ প্রতিফলিত করে প্রাকৃতিক উপাদানসমূহ, যেমন লাল-গোলাপ এবং ফর্মেও সেগুলো বলিষ্ঠ ও মনোমুগ্ধকর। নবরাজ রায় এর ফর্মও বর্ণনা করে সেই রঙিন তৃণভূমি যেথা প্রাণী আর পাখি এক হয়ে মিশে গেছে। অ্যাক্রিলিক মাধ্যমের ব্যবহারে শারমিন আকতার লীনা আঁকেন প্রতিনিধিত্বমূলক অবয়ব, যেমন গভীর শ্যামলিমা ও পাতার মোটিফের মাঝে কোনো তরুণীর হাতে অলঙ্কৃত পাখি। প্রদীপ সাহার শিল্পকর্মে পাওয়া যায় এক ধোঁয়াশার আবরণ, যার আড়ালে হয়তো উঁকি দেয় পাহাড়ের ওপর কোনো কুঁড়েঘর অথবা প্রকৃতি ও মানবসৃষ্ট স্থাপনার সুখস্থিত মিথস্ক্রিয়া। বাপ্পি লিংকন রায়ের রঙগুলো যেন অস্থিরচিত্ত। বাংলাদেশের লোকায়ত শিল্পরূপ আর শৈলির উত্তরাধিকারে, প্রীতম পিতুর ক্যানভাস প্রদর্শন করে রৌদ্রালোকিত দিনে পাখিদের কাকলিকূজন উৎসব। রাজিন মুসতাফা দীপ্র তার শিল্পকর্মে নীল এবং কমলার বিভিন্ন শেডে বিভিন্ন রঙের ছোপ বসান আর এভাবেই পেয়ে যান ভালোবাসাময় গতি। জাকিয়া আফরোজের কাজে খুঁজে পাওয়া যায় গামছা বোনার প্যাটার্ন। সাজিয়া রহমান সন্ধ্যার বৃষ্টি-অনুপ্রাণিত শিল্পকর্মগুলো হয়তো আমাদের মনে প্রথম বৃষ্টির সোঁদা ঘ্রাণ জাগিয়ে তুলতে পারে, কারণ তিনি কালার স্কিম হিসেবে মাটির বিভিন্ন রঙকে ব্যবহার করেন। অন্যান্য অনুভূতির সঙ্গে সঙ্গে, ভয়ার্ত এবং অপরিচিত ভাব ফুটিয়ে তোলার জন্য নাসরিন জাহান অনিকা তার শিল্পকর্মে অনুজ্জ্বল পশ্চাৎপটে ব্যবহার করেন আকুয়াটিন্ট টেকনিক।

দলীয় এ প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী শিল্পীরা হলেন- নাসরিন জাহান, সাজিয়া রহমান সন্ধ্যা, জাকিয়া আফরোজ, রাজিন মুসতাফা দীপ্র, প্রীতম পিতু, বাপ্পি লিংকন রায়, প্রদীপ সাহা, শারমিন আকতার লীনা, নবরাজ রায়, নাবিলা নবী, পারভেজ হাসান রিগান, কুন্তল বড়াই, এসএম এহসান, ইকবাল বাহার চৌধুরী এবং মাহাবুব আলম। প্রদর্শনীটি চলবে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। সোমবার থেকে বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টা থেকে রাত ৯টা এবং শুক্রবার ও শনিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা এবং বিকাল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রদর্শনীটি খোলা থাকবে। রোববার সাপ্তাহিক বন্ধ। প্রদর্শনীটি সবার জন্য উন্মুক্ত।

জাদুঘরে স্বননের আবৃত্তিসন্ধ্যা : কবিতার বাণী বাচিক শিল্পীদের কণ্ঠে উচ্চারিত হল নান্দনিকভাবে। মুখরিত হলো জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তন। এমন দৃশ্যকল্পই চিত্রিত হয়েছিল আবৃত্তির সংগঠন স্বনন আয়োজিত আবৃত্তির আসরে। প্রতিষ্ঠার ৩৪ বছর পূর্তি উদযাপনে এই আবৃত্তি সন্ধ্যার আয়োজন করে সংগঠনটি। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই আবৃত্তিসন্ধ্যা।

অনুষ্ঠানে শুরুতেই ৩৪টি মোমবাতি প্রজ্বালনের মধ্য দিয়ে ৩৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনের উদ্বোধন করেন বরেণ্য অভিনেত্রী সুবর্ণা মোস্তফা।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন অভিনয় ও বাচিক শিল্পী জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়।

স্বাগত বক্তৃতা করেন আবৃত্তিশিল্পী রূপা চক্রবর্তী।

অনুষ্ঠানে আবৃত্তি করেন নাজমুল আহসান, শাম্মিন সুলতানা মুন্নি, মুনা চৌধুরী, মো. নুরুজ্জামান, নাবিলা ঊর্মি, শৈলেন্দ্র বিশ্বাস, রূপা চক্রবর্তী প্রমুখ।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, জীবনানন্দ দাশ, নির্মলেন্দু গুণ, মুহম্মদ নূরুল হুদা, হাবীবুল্লাহ সিরাজী, কামাল চৌধুরী, তসলিমা নাসরিনসহ বরেণ্য কবিদের কবিতা আবৃত্তি করেন আয়োজক সংগঠন স্বননের শিল্পীরা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×