কদমতলীতে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি: যুগান্তর

কদমতলী থানার জুরাইনে রহিম বাদশা হৃদয় (২৩) নামে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। সে পেশায় মুদি দোকানি। সোমবার রাতে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

কদমতলী থানার এসআই মো. কবির হোসেন সোমবার রাত ২টায় কলাবাগানের গ্রিন লাইফ হাসপাতালের আইসিইউ থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

জুরাইন আলম মার্কেট এলাকায় তার বাসা। সেখানে পরিবারের সঙ্গেই থাকত রহিম বাদশা হৃদয়। এসআই কবির হোসেন বলেন, হৃদয়ের মুখমণ্ডলে বিভিন্ন স্থানে থেঁতলানো জখম ছিল।

এ ছাড়াও আঙুলে জখম ছিল। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। তিনি বলেন, তার পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, একটি ৪ তলা ভবনে ছাদে তাকে ডেকে নিয়ে মারধর করে ফেলে দেয়া হয়েছে।

তবে স্থানীয় কয়েকটি সূত্রে জানা গেছে, ওই বাসার ছাদে এলাকার কিছু ছেলে উঠে মাদক সেবন করে। বাড়ির মালিক আসছে শুনে তাড়াহুড়ো করে নামতে গিয়ে সজিব ও রহিম বাদশা হৃদয় আহত হয়।

এর মধ্যে রহিম বাদশা হৃদয় ছিল গুরুতর আহত। পরে আশপাশের লোকজন হৃদয়কে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়। সেখান থেকে গ্রিন লাইফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আর সজিব স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নেয়। হৃদয়ের খালা ছালমা বেগম বলেন, মৃত্যুর সংবাদ শুনে আমি এসেছি, তবে কেউ ফেলে দিয়েছে না পড়ে গেছে, এটা এখনও জানতে পারিনি।

হৃদয়ের বাবার নাম শফিক হিটলার, মা নাজমা বেগম। দুই ভাইবোনের মধ্যে সে ছিল বড়। সে তার মামার মুদি দোকানে কাজ করে। তার স্ত্রীর নাম লাভলী আক্তার। দু’বছর আগে বিয়ে হয় তাদের। মঙ্গলবার দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনরা লাশ নিয়ে যান।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত