‘রাষ্ট্রনায়কের পাশাপাশি শেখ হাসিনা দায়বদ্ধ লেখক’

বাংলা একাডেমিতে শেখ হাসিনার বই নিয়ে সপ্তাহব্যাপী প্রদর্শনী শুরু

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার ১০ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

‘রাষ্ট্রনায়কের পাশাপাশি শেখ হাসিনা দায়বদ্ধ লেখক’
লেখক শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি সংস্কৃতিক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি ও অধ্যাপক আনিসুজ্জামানসহ অন্যরা। ছবি: যুগান্তর

রাজনীতিবিদ ও রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা যতটা আলোচিত হয়েছেন লেখক শেখ হাসিনাও ঠিক ততটা আলোচনা পাওয়ার দাবিদার। তার লেখায় বাংলাদেশের মানুষের দারিদ্র্য দূরীকরণ, শিক্ষাবিস্তার এবং গণতন্ত্রের প্রসার- জনমানুষের সঙ্গে সম্পৃক্ত এই তিনটি বিষয় মূল প্রতিপাদ্য হিসেবে ধরা দেয়।

তার মানবিক অঙ্গীকার, উপলব্ধির সততা আর প্রকাশভঙ্গির সারল্য একজন সফল রাজনৈতিক নেতা ও রাষ্ট্রনায়কের পাশাপাশি তাকে পরিণত করেছে একজন দায়বদ্ধ লেখকে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৩তম জন্মদিন উদ্যাপন উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

বুধবার একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে ‘লেখক শেখ হাসিনা’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান, শেখ হাসিনাকে নিবেদিত স্বরচিত কবিতাপাঠ, আবৃত্তি ও সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সে সঙ্গে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে শেখ হাসিনা রচিত ও সম্পাদিত গ্রন্থের সপ্তাহব্যাপী প্রদর্শনীরও আয়োজন করা হয়েছে। অতিথিরা সবাই মিলে উদ্বোধন করেন এ বই প্রদর্শনীর।

‘লেখক শেখ হাসিনা’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কবি কামাল চৌধুরী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি সচিব মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির সভাপতি ও জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। আলোচনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

গান দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা এবং নজরুলগীতি পরিবেশন করেন শিল্পী খায়রুল আনাম শাকিল।

অনুষ্ঠানে স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন কবি রুবী রহমান, কবি মুহাম্মদ সামাদ এবং কবি মহাদেব সাহার কবিতা আবৃত্তি করেন মো. শওকত আলী।

সুকান্ত ভট্টাচার্যের কবিতা আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী আহ্কামউল্লাহ এবং শেখ হাসিনাকে নিয়ে লেখা সৈয়দ শামসুল হকের কবিতা আবৃত্তি করেন ডালিয়া আহমেদ।

জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান বলেন, ত্রিশ বছর আগে শেখ হাসিনার প্রথম গ্রন্থ ‘ওরা টোকাই কেন’-এর ভূমিকা লিখেছিলাম আমি।

তখন ভাবিনি রাজনীতির প্রবল দাবি মিটিয়ে তিনি লেখালেখি অব্যাহত রাখতে পারবেন। কিন্তু আমাদের বিস্মিত করে দিয়ে রাজনীতির পাশাপাশি লেখালেখিতেও শেখ হাসিনা সমান সক্রিয়তার পরিচয় দিয়ে চলেছেন।

তার রচনায় দারিদ্র্য দূরীকরণ, শিক্ষাবিস্তার এবং গণতন্ত্রের প্রসার- জনমানুষের সঙ্গে সম্পৃক্ত এই তিনটি বিষয় মূল প্রতিপাদ্য হিসেবে ধরা দেয়।

কবি কামাল চৌধুরী বলেন, শেখ হাসিনার লেখালেখিকে মোটা দাগে দু’ভাগে বিভক্ত করা যায়। একটি আত্মজৈবনিক স্মৃতিকথা, যেখানে ওঠে এসেছে তার গ্রাম-জীবন, শৈশব-কৈশোরের স্মৃতি, পারিবারিক জীবন, পিতার অম্লান স্মৃতিচারণ।

অন্য অংশে তার রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক চিন্তা ও উন্নয়নদর্শন প্রতিফলিত। কেএম খালিদ এমপি বলেন, বাংলার মানুষের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক এবং সামাজিক মুক্তির লক্ষ্যে নিরলস সংগ্রামের পাশাপাশি এদেশের সাংস্কৃতিক জাগরণেও শেখ হাসিনা ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করছেন।

শিক্ষাজীবনে তিনি বাংলা সাহিত্যের ছাত্রী আর তার নিজ রাজনৈতিক জীবনেও রয়েছে সাহিত্যের নিবিড় প্রভাব। মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল এনডিসি বলেন, শেখ হাসিনা তার রচনায় কঠিন কথাও সহজ করে বলেন। মাটি ও মানুষের প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসার প্রকাশ মুদ্রিত রয়েছে তার অক্ষরে অক্ষরে।

চারুকলায় বাংলাদেশ ও ভারতের শিল্পীদের যৌথ চিত্রপ্রদর্শনী শুরু : বাংলাদেশ ও ভারতের ২০ জন শিল্পীর যৌথ চিত্রকর্ম প্রদর্শনী ‘কোলাজ’ শুরু হয়েছে। বুধবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের জয়নুল গ্যালারিতে এই প্রদর্শনী শুরু হয়েছে।

এদিন বিকালে প্রদর্শনীর উদ্বোধনীতে উপস্থিত ছিলেন চিত্রশিল্পী সমরজিৎ রায় চৌধুরী, চিত্রশিল্পী হামিদুজ্জামান খান, চারুকলা অনুষদের ডিন নিসার হোসেন, নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুজাহিদুর রহমান হেলো সরকার ও শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের সাধারণ সম্পাদক লায়ন মো. মজিবুর রহমান হাওলাদার। প্রদর্শনীতে অংশ নেয়া শিল্পীরা হলেন ভারত থেকে রূপালী রায়, প্রভাত চন্দ্র সেন, অঞ্জনসেন গুপ্ত, সন্ত সরকার, সোমা মাঝি, তন্ময় বিশ্বাস, প্রত্যুষা মুখার্জি, সন্দীপ ভট্টাচার্য, পপী ব্যানার্জি, উমা বর্ধন।

দেশের শিল্পীরা হলেন আফরোজা খন্দকার, লায়লা আঞ্জুমান আরা, কমর মুস্তারী শাপলা, সুজন দে, প্রহলাদ কর্মকার, ঊর্মিলা দাস, আহসান আহমেদ প্রমুখ।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×