৬ লাখ মানুষের প্যালিয়েটিভ সেবা প্রয়োজন

বিএসএমএমইউতে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস পালিত

  যুগান্তর রিপোর্ট ১১ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বব্যাপী বছরে প্রায় আড়াই কোটি মানুষের জীবনের শেষ দিনগুলোতে প্যালিয়েটিভ কেয়ারের প্রয়োজন হয়। আর বাংলাদেশে প্রায় ৬ লাখ মানুষের প্রশমন সেবার প্রয়োজন। প্যালিয়েটিভ কেয়ারের প্রাপ্যতার বিচারে পৃথিবীর ৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৭৯তম।

বিশ্ব হসপিস অ্যান্ড প্যালিয়েটিভ কেয়ার দিবসকে সামনে রেখে বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ডা. মিল্টন হলে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে এ তথ্য জানানো হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএসএমএমইউ’র ভিসি অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। এ বছর বিশ্ব হসপিস অ্যান্ড প্যালিয়েটিভ কেয়ার দিবসের প্রতিপাদ্য হলো ‘আমার যত্ন, আমার অধিকার’। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বিএসএমএমইউ’র সেন্টার ফর প্যালিয়েটিভ কেয়ার ২০০৮ সাল থেকে এ সেবা প্রদান করে আসছে। বহির্বিভাগ, আন্তঃবিভাগ, দিবা সেবা, লিম্ফিডিমা কেয়ার, রেজিস্টার্ড রোগীদের জন্য ২৪ ঘণ্টা টেলিফোন সার্ভিস, হোম কেয়ার সেবা ছাড়াও কড়াইল এবং নারায়ণগঞ্জে কমিউনিটি লেভেলে জনসাধারণের মাঝে এই সেবা প্রদান করে আসছে এ সেন্টার। ডাক্তার, নার্স, প্যালিয়েটিভ কেয়ার সহকারী (পিসিএ), স্বেচ্ছাসেবক এর পাশাপাশি রোগীর পরিবার বা পরিচর্যাকারীদের জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে এ সেন্টার।

ভিসি কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, প্যালিয়েটিভ সেবা হল সত্যিকার অর্থেই একটি মহতী সেবা কার্যক্রম। এটা নিরাময় অযোগ্য রোগে আক্রান্ত, প্রান্তিক মানুষ ও পরিবারের ভোগান্তি কমানোর বিজ্ঞানসম্মত প্রচেষ্টা। নিরাময় অযোগ্য জীবন সীমিত রোগে আক্রান্ত মৃত্যু পথযাত্রী মানুষ যথাযথ চিকিৎসাসেবা এবং পরিচর্যা পাওয়ার অধিকার রাখে।

প্রসঙ্গত, নিরাময় অযোগ্য বিভিন্ন রোগ যেমন ক্যান্সার, এইডস কিংবা প্রান্তিক পর্যায়ের হার্ট ফেইলিউর, কিডনি অথবা ফুসফুসের রোগ, স্ট্রোক, স্মৃতিভ্রষ্টতা ইত্যাদি রোগে আক্রান্ত মানুষ এবং তাদের পরিবার এ সেবা ব্যবস্থায় উপকৃত হতে পারেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে বি ব্লকের সামনে থেকে ভিসি অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার নেতৃত্বে একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন অংশ প্রদক্ষিণ করে। এ বছর বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের প্রতিপাদ্য হল ‘মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়ন ও আত্মহত্যা প্রতিরোধ’।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×