জাদুঘরে সৈয়দ আবদুল্লাহ খালিদের প্রদর্শনী

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার ০৫ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জাতীয় জাদুঘরে সোমবার সৈয়দ আবদুল্লাহ খালিদের শিল্পকর্ম প্রদর্শনী ঘুরে দেখছেন জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানসহ অন্যরা। ছবি: যুগান্তর

বাঙালি বীরের জাতি। আর এই বীর বাঙালির ভাবমূর্তি মূর্ত হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার ভাস্কর্যে। এ ভাস্কর্যটি নির্মাণ করে ইতিহাসের অংশ হয়েছেন ভাস্কর সৈয়দ আবদুল্লাহ খালিদ। গুণী এই ভাস্করের শিল্পকর্ম ও স্মৃতি নিদর্শন নিয়ে বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে জাতীয় জাদুঘর।

সোমবার সন্ধ্যায় জাদুঘরের নলিনীকান্ত ভট্টশালী প্রদর্শনী গ্যালারিতে এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সভাপতি শামসুজ্জামান খান।

উদ্বোধনী আনুষ্ঠানিকতায় প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। জাদুঘর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য স্থপতি রবিউল হুসাইনের সভাপতিত্বে এতে আলোচক ছিলেন ভাস্কর হামিদুজ্জামান খান এবং শিল্পসমালোচক মঈনুদ্দিন খালেদ।

স্বাগত বক্তৃতা করেন জাদুঘরের মহাপরিচালক মো. রিয়াজ আহম্মদ। আনিসুজ্জামান বলেন, তিনি শুরু করেছিলেন পেইন্টিং দিয়ে কিন্তু ভাস্কর্য দিয়েই তার পরিচয়। অপরাজেয় বাংলা মুক্তিযুদ্ধের প্রতীক হয়ে আছে। মুক্তিযুদ্ধের আত্মত্যাগ, মহৎ চিন্তার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে তার ভাস্কর্যে।

শামসুজ্জামান খান বলেন, ভাস্কর সৈয়দ আবদুল্লাহ খালিদ অপরাজেয় বাংলার ভাস্কর্যটি খুবই চমৎকারভাবে, অত্যন্ত নান্দনিকতার সঙ্গে ফুটিয়ে তুলেছেন। মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিকামী মানুষের ওপর ভিত্তি করে এ শিল্পকর্মের সৃষ্টি। শিল্পের প্রতি ভালোবাসা ছিল তার প্রখর। নিষ্ঠা ও শক্ত মানসিকতার পরিচয় তার কর্মের মধ্যে খুঁজে পাওয়া যায়।

ভাস্কর হামিদুজ্জামান খান বলেন, খালিদ ছিলেন আমার সহপাঠী। তিনি ছিলেন অত্যন্ত বুদ্ধিমান এবং দেশের প্রতি ছিল তার অকৃত্রিম ভালোবাসা। তিনি এই বাংলার মহান স্থাপত্য শিল্পী। তার হাতেই তৈরি সার্থক ভাস্কর অপরাজেয় বাংলা।

অপরাজেয় বাংলা মানে বাঙালির শক্তি। তিনি শুধু ভাস্করই নয়, তিনি অনেক পেইন্টিংও করেছেন। তার কাজই তাকে অমর করে রেখেছে।

ইকেবানা প্রতিযোগিতা : বাংলাদেশ জাতীয় ইউনেস্কো ক্লাব অ্যাসোসিয়েশন ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ জাতীয় কমিশনের (বিএনসিইউ) যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত হল ইকেবানা প্রতিযোগিতা।

রোববার সকালে রাজধানীর নীলক্ষেতের ব্যানবেইজ ভবনের বিএনসিইউ’র সম্মেলন কক্ষে এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বিএনসিইউ’র ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল ও অতিরিক্ত সচিব মো. মনজুর হোসেন।

ইউনেস্কো ক্লাবের মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন চৌধুরী জানান, ২০ জন প্রতিযোগীর অংশগ্রহণে ২০ বছর ধরে তারা এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে আসছেন।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত