ডিএসসিসি কাউন্সিলর নির্বাচন ২০২০

২৭ নম্বর ওয়ার্ড: জলাবদ্ধতার স্থায়ী সমাধান করার প্রতিশ্রুতি

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ডিএসসিসি
ফাইল ছবি

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) ২৭ নম্বর ওয়ার্ডে ড্রেনেজ ও পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থার আধুনিকায়ন করে জলাবদ্ধতার স্থায়ী সমাধান করতে চান সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

পানি ও মশক সমস্যা সমাধান করার অঙ্গীকার করেছেন তারা। এছাড়া পরিকল্পিত ও প্রশস্ত রাস্তা নির্মাণের পরিকল্পনার কথা জানান সম্ভাব্যরা।

ডিএসসিসির ২৭ নম্বর ওয়ার্ডে বৃষ্টির পানি অপসারণের জন্য নর্দমাসহ পরিকল্পিত ও প্রশস্ত রাস্তা নির্মাণের পরিকল্পনা করেছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ওয়ার্ডে পরিকল্পিত ও শিশু-কিশোরবান্ধব খেলার মাঠ স্থাপনেরও প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন অনেকে।

এছাড়াও ওয়ার্ডটিতে কমিউনিটি সেন্টার, ব্যায়ামাগার, পাঠাগারসহ নাগরিকদের বিনোদনের কোনো ব্যবস্থা নেই। এগুলো সম্ভাব্য প্রার্থীরা করতে চান।

অলিগলির ভেতর মাদকের প্রভাব থাকায় ওয়ার্ডটিতে মাদক নির্মূলে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন তারা। তাছাড়া নানা প্রতিবন্ধকতা দূর করে এ ওয়ার্ডকে পরিকল্পিত আধুনিক নাগরিক সুবিধাসম্পন্ন মডেল ওয়ার্ডে রূপান্তর করারও অঙ্গীকার করেছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

২৭ নম্বর ওয়ার্ড ডিএসসিসির অঞ্চল-৩ এর আওতাধীন। এ ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা প্রায় ১৮ হাজার হলেও ওয়ার্ডটিতে প্রায় ২ লক্ষাধিক মানুষের বসবাস। ওয়ার্ডটি গিঞ্জি ঘনবসতিপূর্ণ ছোটোখাটো সরু গলিতে ঠাসা।

এটি সংসদীয় ঢাকা-৭ আসন অন্তর্ভুক্ত এলাকা। ওয়ার্ডটি হোসেনি দালান, নাজিম উদ্দিন রোড, বকশীবাজার, নবাব বাগিচা, আমলাপাড়া সিটি কর্পোরেশন রোড, ওমেস দত্ত রোডসহ ১৪টি পাড়া-মহল্লা রয়েছে।

ডিএসসিসির ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের সম্ভাব্য ওয়ার্ড কাউন্সিলর হিসেবে আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হলেন- বর্তমান কাউন্সিলর ড. ওমর বিন আজিজ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. দেলোয়ার হোসেন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আনিসুর রহমান হুমায়ূন, ঢাকা মহানগর বিএনপির সহ-সাধারণ সম্পাদক সাহিদা মোরশেদ ও ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নাসির আহমেদ প্রমুখ।

চকবাজার থানাধীন ডিএসসিসির ২৭ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় রাস্তা ও ড্রেনেজ উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। তবে এখানকার গুরুত্বপূর্ণ চাঁনখার পুল মোড়, নাজিম উদ্দিন রোড, বকশীবাজার প্রধান সড়কসহ সর্বত্রই তীব্র যানজট লেগেই থাকে।

তাছাড়া এখানে স্যুয়ারেজ ব্যবস্থাহীন অপরিকল্পিত ও অপ্রশস্ত রাস্তা রয়েছে। সরু রাস্তায় রিকশা পার্কিং বেশি থাকায় সড়কে অনিয়ম-অব্যবস্থাপনা লেগেই থাকে।

ওয়ার্ডে স্থায়ী খেলার মাঠ, স্থায়ী কাঁচাবাজার ও স্বাস্থ্য কেন্দ্র না থাকায় সমস্যায় রয়েছেন বাসিন্দারা। তাছাড়া অভ্যন্তরীণ এলাকার সর্বত্রই নোংরা পরিবেশ ও ধুলাবালি বেশি থাকায় মশা-মাছির উপদ্রব বেশি।

সন্ধ্যা নামতেই ঝাঁকে ঝাঁকে মশার আক্রমণ শুরু হয়। এখানকার সড়কের দু’পাশেই এলোমেলোভাবে পার্কিং করা থাকে ব্যক্তিগত গাড়িসহ শত শত রিকশা। এ ওয়ার্ডে গাড়ি পার্কিংয়ের আলাদা ব্যবস্থা নেই।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, বৃষ্টি হলেই অভ্যন্তরীণ সড়ক ও গলিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। সেই পানি নামতেও দীর্ঘ সময় লাগে। এখানে ডিএসসিসির একটি জরাজীর্ণ কমিউনিটি সেন্টার থাকলেও নানা অব্যবস্থাপনায় স্থানীয়রা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।

এ কারণে নিুবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের বেলায় বিয়েসহ সামাজিক অনুষ্ঠানের অতিরিক্ত খরচ বহন করতে হয়। এছাড়া ওয়াসার দুর্গন্ধযুক্ত পানির কারণে ভোগান্তিতে পড়ছে বাসিন্দারা। শীতে গ্যাস সরবরাহ সমস্যা রয়েছে।

এলাকায় অপরিকল্পিত উন্নয়নে স্থানীয়দের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। এ ওয়ার্ডে মাদকের আনাগোনা এখনও কমেনি বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

বর্তমান কাউন্সিলর ড. ওমর বিন আজিজ যুগান্তরকে বলেন, আমি কাউন্সিলরের দায়িত্ব পাওয়ার পর এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে অনেক কাজ করেছি। অল্প সময়ের মধ্যে বাকি কাজ সম্পন্ন হবে।

ওয়ার্ডটির গলিগুলো সরু হওয়া ও বাড়ির মালিকদের আন্তরিকতার অভাবে রাস্তাগুলো প্রশস্ত করা যাচ্ছে না। তবে এ এলাকায় ড্যাবের আওতায় একটি প্রকল্প আসছে, যার মাধ্যমে রাস্তাঘাট প্রশস্ত করা হবে।

এছাড়া হাজী গোলাম মোরশেদ কমিউনিটি সেন্টারটিকে আধুনিকায়ন করে ব্যায়ামাগার, পাঠাগারসহ একটি অত্যাধুনিক ভবন নির্মাণ করা হবে। চলতি নির্বাচনে দল থেকে আবারও মনোনয়ন পেলে এ ওয়ার্ডকে আধুনিক নাগরিকবান্ধব এলাকা হিসেবে গড়ে তুলব।

ডিএসসিসি ২৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আনিসুর রহমান হুমায়ূন যুগান্তরকে বলেন, মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে পুরাতন জেলখানার জায়গায় একটি খেলার মাঠ নির্মাণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা চাইব।

এছাড়া জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করার পাশাপাশি যানজট নিরসন, মাদক নিয়ন্ত্রণ করে যুব সমাজকে আলোর পথে নিয়ে আসব। এলাকার বর্জ্য ব্যবস্থাপনাকে আরও গতিশীল করে একটি আধুনিক এইচটিএস স্থাপনের সর্বাত্মক চেষ্টা চালাব।

ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নাসির আহমেদ যুগান্তরকে বলেন, আমি দল থেকে মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে এলাকাবাসীর নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করব। পাশাপাশি খেলাধুলার প্রসার করে যুব সমাজকে আলোর পথে নিয়ে আসব।

ঢাকা মহানগর বিএনপির সহ-সাধারণ সম্পাদক সাহিদা মোরশেদ যুগান্তরকে বলেন, আমার প্রয়াত স্বামী হাজী গোলাম মোরশেদ এ ওয়ার্ডে ২৯ বছর কাউন্সিলরের দায়িত্ব পালন করেছেন। আমি নির্বাচিত হলে তার অসম্পূর্ণ কাজ সম্পন্ন করব।

এছাড়া স্থানীয় নাগরিকদের কল্যাণে যা করা প্রয়োজন, আমি তাই করব। এলাকার বেকার যুবকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×