ডিএনসিসি কাউন্সিলর নির্বাচন ২০২০ : আধুনিক বাসযোগ্য ওয়ার্ড গড়ার অঙ্গীকার

  শান্তিনগর প্রতিনিধি ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ২৩নং ওয়ার্ডকে আধুনিক ও বাসযোগ্য করার অঙ্গীকার করছেন সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা। একই সঙ্গে মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজদের নির্মূল করতে চান তারা। সরকারি জায়গা দখল বন্ধসহ ওয়ার্ডের ড্রেনেজ ও পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার আধুনিকায়ন, পানি এবং মশক সমস্যার সমাধান, প্রশস্ত রাস্তা ও খেলার মাঠ করতে চান তারা।

ডিএনসিসি অঞ্চল ০৩ আওতাধীন এ ওয়ার্ড। প্রায় ৪৯ হাজার ভোটার অধ্যুষিত ডিএনসিসির ২৩নং ওয়ার্ড। এখানে হোল্ডিং রয়েছে ১৭৮২টি। খিলগাঁও ‘বি’ জোন, খিলগাঁও পূর্ব হাজীপাড়া, মালিবাগ চৌধুরীপাড়া (নূর মসজিদের উত্তর মহল্লাসহ), মালিবাগ এবং মালিবাগ বাজার রোড, (সবুজবাগ অংশ) নিয়ে এ ওয়ার্ড।

ডিএনসিসির ২৩নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা হলেন, রামপুরা থানা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক কামাল আহমেদ দুলু, ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার ফয়সাল বাশার (ফুয়াদ), ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাখাওয়াত হোসেন শওকত, রামপুরা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান বাদল। রামপুরা থানা আওয়ামী লীগের ১নং সাংগঠনিক সম্পাদক বর্তমান কাউন্সিলর মোস্তাক আহমেদ। স্থানীয়দের অভিযোগ নির্বাচনের পর এ পর্যন্ত ওয়ার্ডে দৃশ্যমান কোনো উন্নয়ন হয়নি। ওয়ার্ডে নাগরিকদের সামাজিক অনুষ্ঠান করার জন্য নেই কোনো কমিউনিটি সেন্টার। শিশু-কিশোরদের খেলার জন্য নেই কোনো মাঠ। একটি ঈদগাঁ আছে তা দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার করা হচ্ছে না। অনেক স্থানে বসে মাদকসেবীদের আড্ডা। অভিযোগ রয়েছে বর্তমান কাউন্সিলরের লোকজন টেন্ডারবাজি ডিস, ইন্টারনেট ও ফুটপাতের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মাসিক চাঁদা উঠান। এসব অভিযোগের বিষয়ে কাউন্সিলর মোস্তাক আহমেদ বলেন, নির্বাচন এসেছে তাই একটি গ্রুপ আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। বিশ-ত্রিশ বছর আগের রাজনীতির মামলাগুলো থানা থেকে শেষ হয়েছে। আমি খারাপ লোক হলে জনগণ আমাকে কেন নির্বাচিত করবে। রামপুরা থানা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক কামাল আহমেদ দুলু বলেন, এ ওয়ার্ডে সামান্য বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতা হয়। শিশু-কিশোরদের বিনোদনের কোনো ব্যবস্থা নেই। রাস্তাঘাট ভাঙাচুরা। এসব সমস্যা সমাধানে আমি কার্যকর ব্যবস্থা নেব। আমি নির্বাচিত হলে এ ওয়ার্র্ডের নাগরিকদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করব। শিশু-কিশোরদের জন্য গ্রিন ও মডেল ওয়ার্ড গড়ে তুলব। দলমত নির্বিশেষে সবার জন্য কাজ করা আমার উদ্দেশ্য। ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাখাওয়াত হোসেন শওকত বলেন, আমি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। তৃণমূল থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসছি। দল যাকে মনোনয়ন দেয় আমি তার পক্ষে কাজ করব। আশা করি দল আমাকে মনোনয়ন দেবে। কেননা রাজনীতি করতে গিয়ে অনেক জুলুম নির্যাতনের শিকার হয়েছি।

সরদার ফয়সাল বাশার ফুয়াদ বলেন, নাগরিকরা বিগত দিনে তেমন কোনো সেবা পায়নি। আমি নির্বাচিত হলে দখল সরকারি জায়গা উদ্ধার করব। সেখানে খেলার মাঠ ও বিনোদন কেন্দ্র করা হবে। এছাড়া, মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলব। বর্তমান কাউন্সিলর মোস্তাক আহমেদ বলেন, আমি নির্বাচনে যা প্রতিজ্ঞা করেছি তা শতভাগ বাস্তবায়ন না করতে পারলেও ৯৫ ভাগ কাজ করতে পেরেছি। ওয়ার্ডেও জলাবদ্ধতা নিরসনসহ অনেক রাস্তাও সংস্কার করেছি। এখন আর গ্যাস ও পানির সমস্যা নেই। ওয়ার্ডে কমিউনিটি সেন্টার ও খেলার মাঠ করতে পারিনি। নির্বাচিত হলে এগুলো বাস্তবায়ন করব।

আরও খবর
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত