আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর গণসংযোগ লিফলেট বিতরণ
jugantor
ডিএনসিসি ৫১ নম্বর ওয়ার্ড
আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর গণসংযোগ লিফলেট বিতরণ

  উত্তরা প্রতিনিধি  

২০ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আওয়ামী লীগ

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ৫১ নম্বর ওয়ার্ডে ডোর টু ডোর প্রচারণা চালাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী শরীফুর রহমান (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট)। এ সময় তিনি লিফলেট বিতরণ করেন। ভোটারদের বিভিন্ন ধরনের প্রতিশ্রুতি দেন।

এলাকাবাসী জানান, তিনি অত্যন্ত বিনয়ী ও নিরহঙ্কার মানুষ। তারা তাকে পুনরায় ভোট দেয়ার আশ্বাস দেন। ১১ নং সেক্টরের বাসিন্দা জসিম উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, তিনি নির্লোভ নিরহঙ্কার উচ্চ শিক্ষিত ও একজন ভালো মানুষ।

তার কাছে কোনো বিষয়ে এলাকাবাসী গিয়ে কখনো ফেরত আসে না। কী দিন কী রাত, তার কাছে কোনো অসময় নেই। সব সময়ই তিনি তৎপর থাকেন এলাকাবাসীর সেবা করার জন্য। তাই আমরা পুনরায় তাকেই ৫১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে পেতে চাই।

শরীফুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ৫১ নং ওয়ার্ডবাসীর ভালোবাসাই আমার অনুপ্রেরণা। আমার বাবা হাজী নওয়াব আলী মাস্টার সারাজীবন এলাকাবাসীর কল্যাণে তাদের পাশে থেকেছেন।

নির্বাচিত হয়েই ৯ মাস আমি এলাকার উন্নয়নে আত্মনিয়োগ করেছি। আমি পুনরায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করব।

ডিএনসিসি ৫১ নম্বর ওয়ার্ড

আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর গণসংযোগ লিফলেট বিতরণ

 উত্তরা প্রতিনিধি 
২০ জানুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
আওয়ামী লীগ
ফাইল ছবি

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ৫১ নম্বর ওয়ার্ডে ডোর টু ডোর প্রচারণা চালাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী শরীফুর রহমান (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট)। এ সময় তিনি লিফলেট বিতরণ করেন। ভোটারদের বিভিন্ন ধরনের প্রতিশ্রুতি দেন।

এলাকাবাসী জানান, তিনি অত্যন্ত বিনয়ী ও নিরহঙ্কার মানুষ। তারা তাকে পুনরায় ভোট দেয়ার আশ্বাস দেন। ১১ নং সেক্টরের বাসিন্দা জসিম উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, তিনি নির্লোভ নিরহঙ্কার উচ্চ শিক্ষিত ও একজন ভালো মানুষ।

তার কাছে কোনো বিষয়ে এলাকাবাসী গিয়ে কখনো ফেরত আসে না। কী দিন কী রাত, তার কাছে কোনো অসময় নেই। সব সময়ই তিনি তৎপর থাকেন এলাকাবাসীর সেবা করার জন্য। তাই আমরা পুনরায় তাকেই ৫১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে পেতে চাই।

শরীফুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ৫১ নং ওয়ার্ডবাসীর ভালোবাসাই আমার অনুপ্রেরণা। আমার বাবা হাজী নওয়াব আলী মাস্টার সারাজীবন এলাকাবাসীর কল্যাণে তাদের পাশে থেকেছেন।

নির্বাচিত হয়েই ৯ মাস আমি এলাকার উন্নয়নে আত্মনিয়োগ করেছি। আমি পুনরায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করব।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচন

২১ জানুয়ারি, ২০২০