বাদামতলীর চালের আড়তে র‌্যাবের অভিযান

এগারো প্রতিষ্ঠানকে ১৪ লাখ টাকা অর্থদণ্ড

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৪ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসে লকডাউন আতঙ্কে কেনাকাটা বেড়ে যাওয়ায় কোনো কারণ ছাড়াই বাড়িয়ে দেয়া হয়েছিল চালের দাম। আর তাই রাজধানীর বাদামতলীতে চালের অন্যতম বৃহৎ আড়তে অভিযান পরিচালনা করেছে র‌্যাব। ১১টি চালের আড়তকে ১৪ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি প্রতিষ্ঠানকে সিলগালা করে দেয়া হয়েছে।

সোমবার সকাল থেকে সাদা পোশাকে র‌্যাবের সদস্যরা বাজারে অবস্থান ও যাচাই-বাছাই করেন। বেলা ১১টায় শুরু হয় মূল অভিযান। চলে বিকাল পর্যন্ত। অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছেন র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম। তিনি বলেন, ক্রেতাদের অতিরিক্ত কেনাকাটার ফলে কোনো কারণ ছাড়াই দাম বাড়ানোর অভিযোগ রয়েছে আড়তদারদের বিরুদ্ধে। তাই আমরা দাম বাড়ানোর কারণ জানতে অভিযান পরিচালনা করেছি। তাদের ক্রয় চালানের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে বাড়তি দামে চাল বিক্রির সত্যতা পাওয়ায় ১১টি প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সিলগালা করে দেয়া হয়েছে একটি প্রতিষ্ঠান। র‌্যাব জানায়, এর মধ্যে মেসার্স নিউ বশির রাইস এজেন্সি, মেসার্স হাজী রাইস এজেন্সি, মেসার্স ভূঁইয়া রাইস এজেন্সি, মেসার্স নিউ পপুলার রাইস এজেন্সি, মেসার্স ভাই ভাই রাইস এজেন্সি ও আল্লাহ ভরসা রাইস এজেন্সিকে ১ লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এছাড়া মেসার্স তাসলিমা রাইস এজেন্সির দুটি প্রতিষ্ঠানকে মোট দেড় লাখ টাকা, মেসার্স আলেকচান রাইস এজেন্সির দুটি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৩ লাখ টাকা, মেসার্স ফেমাস রাইস এজেন্সির দুটি প্রতিষ্ঠানকে মোট ২ লাখ টাকা ও জনপ্রিয় রাইস এজেন্সিকে ৭৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এছাড়া মেসার্স মায়া ট্রেডার্সকে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ডের পাশাপাশি সিলগালা করে দেয়া হয়েছে। এর আগে একই কারণে শনিবার যাত্রাবাড়ীর আলু-পেঁয়াজের আড়ত ও রোববার শ্যামবাজারের আড়তে অভিযান চালায় র‌্যাব। এতে প্রায় পৌনে এক কোটি টাকা জরিমানাসহ ব্যবসায়ীদের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

ভোক্তা অধিদফতরের অভিযান : সোমবার রাজধানীর পশ্চিম নাখালপাড়ার একটি দোকানে শিশু খাদ্য বেশি দামে বিক্রি করায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের অভিযানে একটি প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয়েছে। একই দিন ইত্তেফাক মোড়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার নিয়ে প্রতারণা করায় দুই প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে অধিদফতর। অধিদফতরের উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, রাজধানীতে মোট ৬টি টিম বাজার মনিটরিংয়ের কাজ করছে। কোনো ধরনের অনিয়ম পেলে সঙ্গে সঙ্গে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হচ্ছে না।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত