বারডেম হাসপাতালে রোগীর আত্মহত্যা
jugantor
বারডেম হাসপাতালে রোগীর আত্মহত্যা

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৫ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বারডেম হাসপাতালের বাথরুমে গলায় ফাঁস দিয়ে হানিফা হোসেন হানিফ (৩৫) নামে এক রোগী আত্মহত্যা করেছেন। মঙ্গলবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। হানিফের স্ত্রী মাসুমা আক্তার বলেন, হানিফ পেশায় কাঠমিস্ত্রি ছিলেন। চার-পাঁচ বছর ধরে তিনি ডায়াবেটিকসহ বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন। এজন্য তাকে ২০ মার্চ বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি হাসপাতালের নবম তলার একটি ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। তিনি জানান, গত রাত সাড়ে ১১টায় তারা দু’জন হাসপাতালের বেডে ঘুমিয়ে পড়েন। এরপর রাত ৩টার দিকে হানিফকে বেডে দেখতে না পেয়ে হাসপাতালের বাথরুমের দরজা বন্ধ দেখে চিৎকার শুরু করেন। পরে হাসপাতালের স্টাফ ও নার্সরা এগিয়ে গিয়ে বাথরুমের দরজা খুলে শাওয়ারের সঙ্গে গলায় লুঙ্গি পেঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে।

রমনা থানার এসআই বিপ্লব সরকার বলেন, বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে হানিফ বারডেম হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, পেটের ব্যথা সহ্য করতে না পেরে ভোরে তিনি বাথরুমে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। হানিফ নারায়ণগঞ্জ আড়াইহাজার উপজেলার বাহেরচর গ্রামের মৃত আবদুল মান্নানের ছেলে।

বারডেম হাসপাতালে রোগীর আত্মহত্যা

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৫ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বারডেম হাসপাতালের বাথরুমে গলায় ফাঁস দিয়ে হানিফা হোসেন হানিফ (৩৫) নামে এক রোগী আত্মহত্যা করেছেন। মঙ্গলবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। হানিফের স্ত্রী মাসুমা আক্তার বলেন, হানিফ পেশায় কাঠমিস্ত্রি ছিলেন। চার-পাঁচ বছর ধরে তিনি ডায়াবেটিকসহ বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন। এজন্য তাকে ২০ মার্চ বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি হাসপাতালের নবম তলার একটি ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। তিনি জানান, গত রাত সাড়ে ১১টায় তারা দু’জন হাসপাতালের বেডে ঘুমিয়ে পড়েন। এরপর রাত ৩টার দিকে হানিফকে বেডে দেখতে না পেয়ে হাসপাতালের বাথরুমের দরজা বন্ধ দেখে চিৎকার শুরু করেন। পরে হাসপাতালের স্টাফ ও নার্সরা এগিয়ে গিয়ে বাথরুমের দরজা খুলে শাওয়ারের সঙ্গে গলায় লুঙ্গি পেঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে।

রমনা থানার এসআই বিপ্লব সরকার বলেন, বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে হানিফ বারডেম হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, পেটের ব্যথা সহ্য করতে না পেরে ভোরে তিনি বাথরুমে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। হানিফ নারায়ণগঞ্জ আড়াইহাজার উপজেলার বাহেরচর গ্রামের মৃত আবদুল মান্নানের ছেলে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন