রবীন্দ্রগীতি আলেখ্য ‘আপন হৃদয়গহন-দ্বারে’ মঞ্চস্থ

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার ০৫ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রবীন্দ্রজয়ন্তীকে সামনে রেখে রবীন্দ্রগীতি আলেখ্য ‘আপন হৃদয়গহন-দ্বারে’ মঞ্চস্থ হল। ভেসে বেড়াল কবিগুরুর গানের সুর আর কবিতা-ছন্দ। এই পরিবেশনাটির আয়োজন করলেন জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদের ঢাকা মহানগর শাখার শিল্পীরা। গীতি-আলেখ্যটি রচনা করেছেন অরুণাভ লাহিড়ী। শুক্রবার সন্ধ্যায় ধানমণ্ডি ছায়ানট সংস্কৃতি প্রধান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনের শুরুতেই সংগঠনের শিল্পীরা সম্মেলক কণ্ঠে গেয়ে শোনান ‘কোন আলোতে প্রাণের প্রদীপ’। শিল্পীরা আরও গেয়ে শোনান ‘বিশ্বসাথে যোগে যেথায় বিহারো’, ‘আমার প্রাণের মানুষ আছে’, ‘গ্রামছাড়া ঐ রাঙ্গামাটির পথ’, ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে’ ও ‘বাংলার মাটি বাংলার জল’। অনুষ্ঠানে একক কণ্ঠে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শ্রাবণী মজুমদার, নাসরিন বাঁধন, কল্লোল সেন গুপ্ত, মানসী সাধু, সুদীপ সরকার, মোস্তাফিজুর রহমান তূর্য, বিথী রহমান, হৃষিৎ মুখোপাধ্যায়, আশরাফুজ্জামান পিনু প্রমুখ। তারা পরিবেশন করেন ‘আমি কান পেতে রয়’, ‘না চাহিলে যারে পাওয়া যায়’, ‘আমি তারেই খুঁজে বেড়াই’, ‘এই যে তোমার প্রেম ওগো হৃদয়হরণ’, ‘কৃষ্ণকলি আমি তারেই বলি’, ‘রইল বলে রাখলে যারে’। রবীন্দ্রনাথের লেখার অংশ থেকে পাঠ করেন বাচিকশিল্পী গোলাম রব্বানী ও কৃষ্টি হেফাজ।

একদিনে দুই প্রদর্শনী শুরু : শুক্রবার রাজধানীতে দুটি চিত্রপ্রদর্শনী শুরু হয়েছে। আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার লা গ্যালারিতে শুরু হয়েছে কুন্তল বাড়ৈয়ের ‘ডিসপ্লেড ইন ঢাকা’ এবং বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের চিত্রশালায় শুরু হয়েছে সুমন কুমার সরকারের ‘বরেন্দ্র কাব্য-২’ শীর্ষক দুটি পৃথক প্রদর্শনী।

কুন্তল বাড়ৈর প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন নগর পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক নজরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ইতালিয় দূতাবাসের উপ-প্রধান গুইসেপ সেমেনজা, বসুন্ধরা গ্রুপের পরিচালক ইয়াশা সোবহান এবং ইডার চারুকলা বিভাগের প্রধান শাহ্জাহান আহমেদ বিকাশ।

জনসংখ্যার বিস্ফোরণ, যানজট, উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে ধীরগতি, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ আর উন্মত্ততা-তিলোত্তমা ঢাকা এখন বাস অযোগ্য এক নরক! নারকীয় দিনযাপনে হাঁপিয়ে ওঠা চিরন্তন অভ্যস্ততার নাগরিক জীবনেও ‘নতুন তত্ত্ব’ অনুসন্ধান করেছেন শিল্পী কুন্তল বাড়ৈ। কুন্তলের একক প্রদর্শনীটি ১৯ মে পর্যন্ত চলবে। সোমবার থেকে বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টা থেকে রাত ৯টা এবং শুক্রবার ও শনিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা এবং বিকাল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রদর্শনীটি খোলা থাকবে। রোববার সাপ্তাহিক বন্ধ।

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের চিত্রশালায় সুমন কুমার সরকারের ক্যানভাসে দেখা মিলল বরেন্দ্রভূমির আখ্যান। জলরঙে আঁকা ছবিগুলোতে উঠে এসেছে কৃষিনির্ভর সমাজের আখ্যান। রঙে-রেখায় উদ্ভাসিত হয়েছে বরেন্দ্রভূমির চালচিত্র। ‘বরেন্দ্র কাব্য-২’ শীর্ষক এই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক বিশ্বজিৎ ঘোষ। বিশেষ অতিথি ছিলেন যুগ্ম সচিব ও নগর পরিকল্পনাবিদ মো. আশরাফুল ইসলাম। উদ্বোধনী আয়োজনে মুখ্য আলোচক ছিলেন চিত্রশিল্পী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের প্রাচ্যকলা বিভাগের চেয়ারম্যান মলয় বালা। অনুভূতি ব্যক্ত করেন সুমন কুমার সরকার।

৩০টি চিত্রকর্মে সজ্জিত এ প্রদর্শনী চলবে ১০ মে পর্যন্ত। প্রতিদিন দুপুর ২টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

‘কবিতায় আঁকি জীবন’ : নতুন আবৃত্তি সংগঠন বৈঠক শুক্রবার শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার স্টুডিও থিয়েটার হলে পরিবেশন করে নিজেদের প্রথম আবৃত্তি প্রযোজনা ‘কবিতায় আঁকি জীবন’। এ আয়োজনের উদ্বোধক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

আবৃত্তি করেন বৈঠকের ছয়জন প্রতিশ্রুতিশীল আবৃত্তিশিল্পী- সালমা শবনম, নাজনীন নাজ, আনজোমোরা মুন্নী, উম্মে হাবিবা শিবলী, আসাদুজ্জামান সাজু এবং হাসান মাহাদী লালটু। তারা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, জীবনানন্দ দাশ, শামসুর রাহমান, আহসান হাবীব, আবু হেনা মোস্তফা কামাল, রফিক আজাদ, মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, নির্মলেন্দু গুণ, পূর্ণেন্দু পত্রী, রুদ্র গোস্বামী, সুবোধ সরকার, শক্তি চট্টোপাধ্যায়, শাহীন রেজা রাসেলসহ বিভিন্ন সময়ের কবীদের ২৭টি কবিতা নিয়ে সাজানো হয় প্রযোজনাটি।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter