ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

কারওয়ান বাজারে আম ও কলা ধ্বংস

  যুগান্তর রিপোর্ট ২২ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত ৪০০ মণ আম জব্দ করার ৬ দিনের ব্যবধানে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের ফলের আড়ত থেকে আবারও অপরিপক্ব আম এবং কলা জব্দ করে ধ্বংস করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে এ অভিযান পরিচালনা করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মশিউর রহমান। এসব আম কলার মালিক সোনার বাংলা বাণিজ্যালয় অভিযানে আবদুল হালিম নামে এক ব্যক্তিকে ১ মাসের জেল দেয়া হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট মশিউর রহমান বলেন, আমগুলো অপরিপক্ব ছিল, সরকার নির্ধারিত তারিখের আগেই গাছ থেকে আম পেড়ে এখানে বিক্রি করা হচ্ছিল।

সোমবার পৌনে ১টার দিকে কারওয়ান বাজারে অভিযানে যায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মশিউর রহমান। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন মোহাম্মদপুর জোনের এডিসি হাফিজ আল ফারুক, পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান বিএসটিআইর ফিল্ড অফিসার এএফএম হাসিবুল হাসানসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

অভিযানের শুরুতেই সোনার বাংলা বাণিজ্যালয়ে যান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মশিউর রহমান। সেখানে প্রতি ক্যারট থেকে ২-৩টি করে আম নিয়ে নিজেই ছুরি দিয়ে মাঝখান থেকে কেটে পরীক্ষা করেন। এ সময় অনেক আম আঁটিসহ মাঝ বরাবর দু’ভাগ হয়ে যাওয়ায় সেগুলোকে অপরিপক্ব হিসেবে শনাক্ত করা হয়। এসব আম জব্দের নির্দেশ দেয়া হয়। আমগুলোর ভেতরে হালকা হলুদ ও সবুজ রঙের আর আঁটিগুলো সম্পূর্ণ সাদা। অপরিপক্ব আম বিক্রির অভিযোগে দোকানের ৩৫০ কেজি আম (২৫ কেজি করে ১৪ ক্যারট) এবং ২শ’ কাঁদি অপরিপক্ক কলা জব্দ করে সেগুলো সিটি কর্পোরেশনের বুলডুজার দিয়ে ধ্বংস করা হয়। অভিযানের সময় সোনার বাংলা বাণিজ্যালয়ের মালিক কিংবা কর্মচারী কাউকে দোকানে পাওয়া যায়নি। ভ্রাম্যমাণ আদালতের সংবাদ পেয়ে অন্য আড়তদার ও ব্যবসায়ীরাও পালিয়ে যান।

অভিযান প্রসঙ্গে মশিউর রহমান বলেন, গোডাউন থেকে উদ্ধার অধিকাংশ আম অপরিপক্ব ও এর আঁটি নরম। এগুলো সরকার নির্ধারিত সময়ের আগেই গাছ থেকে পেড়ে এনে বিক্রি করা হচ্ছে। তাই আমগুলো নষ্ট করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

পচা খাবার বিক্রি, তিন রেস্টুরেন্টকে জরিমানা : বাসি, পচা ও মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার বিক্রি করায় তোপখানা তিন রেস্টুরেন্টকে সাড়ে চার লাখ টাকা জরিমানা করেছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার বিকালে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমের নেতৃত্বে এই অভিযান চলে। অভিযানে বৈশাখী রেস্টুরেন্টকে ৫০ হাজার টাকা, মোঘল দরবারকে এক লাখ টাকা এবং ধানসিঁড়ি রেস্টুরেন্টকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম যুগান্তরকে বলেন, অভিযানে পচা মাংস, চার দিন আগে বানানো গ্রিলসহ বাসি খাবার জব্দ করা হয়। এমনকি তারা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরি করে বিক্রি করছিল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter