লেগুনায় পিছু হটছে পুলিশ

প্রয়োজনে নতুন রুট পারমিট

  সিরাজুল ইসলাম ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

লেগুনা

রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে লেগুনা ইস্যুতে পিছু হটছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

পুলিশের সাম্প্রতিক নিষেধাজ্ঞার কারণে রাজধানীর বেশিরভাগ সড়কে লেগুনা চলাচল বন্ধ থাকলেও আগামী রোব-সোমবার থেকে ফের চলাচল শুরু হতে পারে।

এ নিয়ে ডিএমপি সদর দফতরে দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে। প্রয়োজনে নতুন রুট পারমিট দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে। রোববার ডিএমপি সদর দফতরে এ ইস্যুতে বিশেষ বৈঠক হবে।

রাজধানীর সড়কে লেগুনা চলাচলের ব্যবস্থা করা নিয়ে একজন প্রভাবশালী মন্ত্রী ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেছেন বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় লেগুনা মালিক-শ্রমিক ও ডিএমপির উচ্চপর্যায় থেকে যুগান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

এদিকে ট্রাফিক সচেতনতা কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনেও সড়কে শৃঙ্খলা ফেরেনি। বৃহস্পতিবারও হেলমেট ছাড়া জ্বালানি নিয়েছেন মোটরসাইকেল চালকরা। যাত্রী ওঠা-নামার জন্য যত্রতত্র বাস থামানোর দৃশ্য সব সড়কেই দেখা গেছে।

লেগুনা না চলায় রাজধানীর ফার্মগেটসহ অনেক এলাকায় যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে দেখা গেছে। তবে রাস্তায় শৃঙ্খলা ফেরাতে বৃহস্পতিবারও রেড ক্রিসেন্ট, রোভার স্কাউট ও গার্লস গাইডের সদস্যদের দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে।

অনেক চেষ্টা করে তারা পথচারীদের ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করাতে পারলেও অনেক ক্ষেত্রেই তারা ব্যর্থ হয়েছে।

জানতে চাইলে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মীর রেজাউল আলম যুগান্তরকে বলেন, লেগুনা মালিকদের সঙ্গে কয়েক দফা আলোচনা করেছি। এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। রোববার ফের বৈঠক হবে। লেগুনার রুট পারমিট দেয় রিজিওনাল ট্রান্সপোর্ট কমিটি (আরটিসি)। এর প্রধান হলেন ডিএমপি কমিশনার। প্রয়োজনে লেগুনার জন্য রাজধানীতে নতুন রুট পারমিট দেয়া হবে।

ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারের উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান বলেন, ডিএমপি কমিশনার মঙ্গলবার কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন। এগুলো বাস্তবায়নে সময় লাগবে। দীর্ঘদিনের এ সমস্যা একদিনে সমাধান সম্ভব নয়। সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতায় যৌথ তদারকির মাধ্যমে কমিশনার স্যারের নির্দেশ বাস্তবায়ন করা হবে। মাসব্যাপী ট্রাফিক সচেতনতা কার্যক্রমের উদ্বোধন উপলক্ষে মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছিলেন, রাজধানীর প্রধান সড়কে লেগুনা চলতে দেয়া হবে না। সড়কে দুর্ঘটনার অন্যতম কারণও এই লেগুনা।

ইন্দিরা পরিবহনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) দেলোয়ার হোসেন চুন্নু যুগান্তরকে বলেন, একটি পক্ষ ডিএমপি কমিশনারকে বুঝিয়েছিল যে, রাজধানীতে যেসব লেগুনা চলাচল করে সেগুলো হল নছিমন-করিমন টাইপের। এদের বৈধ কাগজপত্র নেই। নেই রুট পারমিটও। লেগুনা বন্ধের ঘোষণা দেয়ার পর আমরা একজন মন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করি। তিনি এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেন। এরপর বুধবার আমরা কমিশনারের সঙ্গে দেখা করি। আমরা তার সঙ্গে এ নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা করেছি; তাকে বুঝিয়েছি।

এক প্রশ্নের জবাবে দেলোয়ার হোসেন চুন্নু বলেন, রাজধানীর ১৫৯টি রুটে লেগুনা-হিউম্যান হলার চলাচল করে। ইন্দিরা রোড থেকে ঝিগাতলা, ৬০ ফিট ও মোহাম্মদপুরে ১৩০টি লেগুনা চলাচল করে। এর মধ্যে ১২০টির রুট পারমিট ও বৈধ কাগজপত্র রয়েছে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কমিশনার এবং যুগ্ম-কমিশনারের সঙ্গে কথা বলার পরই বৃহস্পতিবার সকালে রাস্তায় লেগুনা নামানো হয়েছিল। চালাতে দেয়া হয়নি। আশা করছি, রোববারের মিটিংয়ে এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পাওয়া যাবে।

ফার্মগেট অটো-টেম্পো-হিউম্যান হলার ইউনিয়নের সভাপতি নজরুল ইসলাম বলেন, আনন্দ সিনেমা হলের সামনে থেকে নিউমার্কেট পর্যন্ত ৫০টি লেগুনা চলাচল করে। এর মধ্যে ৪০টিরই রুট পারমিটসহ বৈধ কাগজপত্র আছে। লেগুনা বন্ধ থাকায় অনেক যাত্রী ভোগান্তির মধ্যে পড়েন। তিনি জানান, ফার্মগেট থেকে নিউমার্কেটে যেতে-আসতে লেগুনায় খরচ হয় ২৪ টাকা। লেগুনা না থাকায় খরচ হচ্ছে ২০০ টাকা। এই রুটে ঢাকা কলেজ, ইডেন কলেজ, সিটি কলেজ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের যাত্রীরা যাতায়াত করে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter