ভোটে ‘বর্ণচোরাদের’ জবাব দেবে জনগণ : মোহাম্মদ নাসিম

নির্বাচনে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি ১৪ দলের

  যুগান্তর রিপোর্ট ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বর্ণচোরা

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, যারা বঙ্গবন্ধুর কথা বলেন, মুজিব কোট এখনও পরে থাকেন, তারা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে, খুনিদের পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। এর বিচার ৩০ ডিসেম্বর জনগণ দিয়ে দেবে। এই বর্ণচোরা ভণ্ডদের বিরুদ্ধে ভোট দিয়ে জনগণ প্রমাণ করে দেবে, তাদের সঙ্গে দেশের জনগণ নেই।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মঙ্গলবার এক মতবিনিময় সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠন এবং হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সঙ্গে এ মতবিনিময় সভা করে কেন্দ্রীয় ১৪ দল।

সূত্র জানায়, সভায় হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্যপরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত নির্বাচনকালীন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতনের বিষয়টি তুলে ধরে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান। এছাড়া একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির ৩০-৩৫টি আসনের কথা উল্লেখ করে বলেন, এগুলো সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। এর জবাবে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, নির্বাচনকালীন এ দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের (ইসি)। আমরা নির্বাচন কমিশনের কাছে বিষয়গুলো জোরালোভাবে তুলে ধরব।

সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ইসির প্রতি আহ্বান জানান নাসিম। ইসির উদ্দেশে তিনি বলেন, যখনই নির্বাচন আসে, তখনই একটি অপশক্তি সংখ্যালঘুদের ভয়ভীতি দেখানোর চেষ্টা করে। অনেক সময় আঘাত করার চেষ্টা করে। নির্বাচনী প্রক্রিয়া যেহেতু শুরু হয়ে গেছে, এখন থেকে সংখ্যালঘু ভাইবোনদের নিরাপত্তা দিতে হবে। নির্বাচনের সময়, নির্বাচনের পরে সংখ্যালঘুদের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এ ব্যাপারে কোনো গাফিলতি সহ্য করা হবে না। এটা ১৪ দলের পক্ষে থেকে স্পষ্ট বলে দিতে চাই।

ড. কামাল, মাহমুদুর রহমান মান্না ও রেজা কিবরিয়া ‘মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের’ শক্তির সঙ্গে যোগ দিয়েছেন, এটা আওয়ামী লীগের জন্য দুর্ভাগ্য কিনা- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, এটি আমাদের দুর্ভাগ্যের ব্যাপার না। জাতির দুর্ভাগ্য। যারা বিপক্ষে যোগ দিয়েছেন, তাদেরই দুর্ভাগ্য।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কথা বলে, মুজিবের চেতনার কথা বলে যারা বিএনপি-জামায়াত নামক দুষ্টচক্র, পরাজিত শক্তির পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে, তাদের ইনশাল্লাহ আগামী নির্বাচনে চূড়ান্তভাবে পরাজিত করা হবে। আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণ এই বর্ণচোরা ভণ্ডদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করবে ব্যালটের মাধ্যমে।

মতবিনিময় সভার আলোচনা প্রসঙ্গে জোটের মুখপাত্র নাসিম বলেন, ১৪ দল ও উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধা এবং হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতারা আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির বিজয় নিশ্চিত করার জন্য মাঠে-ময়দানে কাজ করবে। ১৪ দলের ঘোষণা অনুযায়ী, আগামী বিজয় দিবস থেকে বা ডিসেম্বরের শুরু থেকেই বিজয় মঞ্চের কাজ শুরু হবে। সবাই মিলে সম্মিলিতভাবে সারা দেশের জেলা-উপজেলায় বিজয় মঞ্চ স্থাপন করা হবে। মঞ্চে বিজয়ের গান হবে, বঙ্গবন্ধুর কথা হবে, স্বাধীনতার ইতিহাসের কথা হবে। আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার বিজয়ের জন্য দলের লড়াই-সংগ্রামের কথা বলা হবে।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ১৪ দলের একটি নির্বাচনী প্রচার কমিটি হয়েছে। এ কমিটির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠন ও অন্যান্য সংগঠনের একটি কমিটি করা হবে। কমিটি প্রয়োজনে প্রতিটি জেলা, উপজেলায় গিয়ে কাজ করবে।

সংবাদ সম্মেলনে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, আমরা একটি পোস্টার তৈরি করব। যেখানে ‘রাজাকার, আলবদর, স্বাধীনতাবিরোধীদের ভোট দেবেন না’, ‘স্বাধীনতার পক্ষের মানুষকে ভোট দিন’, ‘শ্রমিক কর্মচারী, মুক্তিযোদ্ধা হত্যাকারীদের ভোট দেবেন না’, ‘তরুণের প্রথম ভোট, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে হোক’, ‘রাজাকারমুক্ত সংসদ চাই’- এ স্লোগানগুলো থাকবে। তিনি আরও বলেন, আগামীতে এমন হওয়া উচিত, যদি কোনো রাজাকার নির্বাচিত হয় তাকে সংসদে ঢুকতে দেয়া হবে না। কোনো স্বাধীনতাবিরোধী সংসদে ঢোকার অধিকার রাখে না।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়া, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সেক্টর কমান্ডার কেএম শফিউল্লাহ, আওয়ামী লীগের উপ-দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়–য়া, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দিলীপ রায় প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×