জাতীয় ভ্যাট দিবস আজ

নতুন আইনে একাধিক স্তরে ভ্যাট হার

ড. কামাল হোসেনের কর ফাঁকি খতিয়ে দেখা হচ্ছে-এনবিআর চেয়ারম্যান

  যুগান্তর রিপোর্ট ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নতুন আইনে একাধিক স্তরে ভ্যাট হার

নতুন আইনে ঢালাওভাবে সব পণ্যের ওপর ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট আরোপ করা হবে না। এতে জনগণ ও ব্যবসায়ীদের কিছু ক্ষেত্রে অসুবিধা হতে পারে।

তাই আগামী বছরের ১ জুলাই বাস্তবায়ন হতে যাওয়া নতুন আইনে একাধিক স্তরে ভ্যাট হার রাখা হবে। আইন বাস্তবায়নের আগে ব্যবসায়ীদের সুপারিশের ভিত্তিতে সংশোধন করা হবে।

রোববার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান সংস্থাটির চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া। জাতীয় ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ উপলক্ষে এনবিআরের নেয়া কার্যক্রম তুলে ধরতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ‘ভ্যাট দিচ্ছে জনগণ, দেশের হচ্ছে উন্নয়ন’- স্লোগান নিয়ে সারা দেশে আজ জাতীয় ভ্যাট দিবস এবং ১০-১৫ ডিসেম্বর ভ্যাট সপ্তাহ পালন করবে এনবিআর। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বাণী দিয়েছেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ১৯৯১ সালের ভ্যাট আইনটি ভালো ছিল। তবে নতুন আইনে এটিকে আরও যুগোপযোগী করা হয়েছে। বিশ্বের অনেক দেশে ১৫ শতাংশের বেশি ভ্যাট আছে। তবে আমাদের প্রেক্ষাপটে একক হার ১৫ শতাংশ নির্ধারণ করলে কঠিন সমস্যা হবে। সাধারণ মানুষের ওপর যাতে অতিরিক্ত করের বোঝা না চাপে সে জন্য একাধিক হার করা হবে।

তিনি আরও বলেন, বাজেটে রাজস্ব আয়ের উচ্চাভিলাষী লক্ষ্যমাত্রা দেয়া হয়েছে। জনসচেতনতা বাড়িয়ে এ উচ্চাভিলাষী লক্ষ্যমাত্রা আদায় সম্ভব। ভ্যাটে প্রচুর ফাঁকি আছে। জনগণ ভ্যাট দেয়, কিন্তু ব্যবসায়ীরা সেটা যথাযথভাবে সরকারি কোষাগারে জমা দেয় না। জনবলের স্বল্পতার কারণে সব সময় ব্যবসায়ীদের মনিটরিং করা যায় না। আবার সব সময় মনিটরিং করলে অনেকে উৎপাত মনে করতে পারে। ভ্যাট গোয়েন্দার মাধ্যমে অভিযান চালানে সরকারের বিভিন্ন মহল নালিশ করে।

অটোমেশন চালু করলে ভ্যাট আদায় আরও কয়েকগুণ বাড়ানো সম্ভব মন্তব্য করে তিনি বলেন, এখন ব্যবসায়ীদের রেকর্ড পদ্ধতি স্বচ্ছ নয়। কর্মকর্তারাও এর সুযোগ নেয়। ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি) ও অনলাইনে রিটার্ন দাখিল চালু হলে উভয় দিকে হয়রানি-দুর্নীতি কমবে। ব্যবসায়ীরা যেমন তথ্য গোপন করতে পারবে না, তেমনি কর্মকর্তাদেরও ঘুষ-দুর্নীতির সুযোগ থাকবে না। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে ড. কামাল হোসেনের কর ফাঁকি খতিয়ে দেখা হচ্ছে কিনা- এ প্রশ্নের জবাবে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ড. কামালের কর ফাঁকি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এ বিষয়ে কাজ চলছে। একটু সময় লাগবে, যেমন ব্যাংক সার্চ দিতে হবে। এই মুহূর্তে যদি খড়গহস্ত হয়ে যাই তাহলে অনেকে ভাববে উনি বিরোধী দলের পক্ষ হয়ে ইলেকশন করছে এ জন্য ধরছি। যাই হোক এ প্রক্রিয়া চালু আছে। সংবাদ সম্মেলনে শুল্ক ও ভ্যাট প্রশাসনের সদস্য প্রকাশ দেওয়ান; শুল্ক নিরীক্ষা আধুনিকায়ন ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের সদস্য খন্দকার আমিনুর রহমান, ভ্যাট বাস্তবায়নের সদস্য শাহনাজ পারভীন, ভ্যাটনীতির সদস্য রেজাউল হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ভ্যাট দিবসের বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি, যুগোপযোগী রাজস্ব নীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন এবং রাজস্বসংশ্লিষ্ট কর্মকাণ্ডে অত্যাধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার করে রাজস্ব প্রশাসন সুসংগঠিত ও সুসংহত করার মাধ্যমে রাজস্ব আহরণে মানসম্মত পরিবর্তন আনা হয়েছে।’ তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের রূপকল্প ২০২১ ও রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নের জন্য অন্যতম শর্ত আত্মনির্ভরশীলতা অর্জন।

আত্মনির্ভরশীলতা অর্জনের পূর্বশর্ত হচ্ছে যথাযথ রাজস্ব আহরণ। রাজস্ব বৃদ্ধির অন্যতম সহায়ক শক্তি জনবল। আমাদের সরকারের মেয়াদে উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় জনবল নিয়োগ দেয়া হয়েছে। রাজস্ব প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে এর সুফলও আমরা পাচ্ছি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×