চট্টগ্রাম-৯: ব্যারিস্টার-ডাক্তারে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

প্রচারে এগিয়ে নওফেল, কারাবন্দি শাহাদাতের ভরসা ‘সহানুভূতি’র ভোট

  মজুমদার নাজিম উদ্দিন, চট্টগ্রাম ব্যুরো ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

লড়াই

চট্টগ্রাম-৯ (কোতোয়ালি-বাকলিয়া) আসনে জমে উঠেছে নির্বাচনী লড়াই। আসনটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও বিএনপি প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেনের মধ্যে দ্বিমুখী লড়াইয়ের আভাস মিলছে।

৭ নভেম্বর গ্রেফতার হয়ে কারগারে আছেন ডা. শাহাদাত। কারাগারে থেকেই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। কারাগারে বসেই চালিয়ে যাচ্ছেন নির্বাচনী প্রচার। নিজে নির্বাচনের মাঠে না থাকলেও তার পক্ষে দলীয় নেতাকর্মীরা ভোট চাচ্ছেন। তাই শাহাদাতের নির্বাচনী প্রচার খুব একটা জোরালো নয়। তবে প্রচারে সুবিধাজনক অবস্থায় আছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী নওফেল।

তিনি নিজে মাঠে আছেন। সঙ্গে আছেন নেতাকর্মীরা। এছাড়া ভোটের লড়াইয়ে নওফেলের প্লাস পয়েন্ট ক্লিন ইমেজ। শাহাদাতের ইমেজও ভালো। তবে কারাগারে থাকায় শাহাদাত পেতে পারেন ভোটারের বাড়তি সহানভূতি। ব্যারিস্টার আর ডাক্তারের মধ্যে শেষ পর্যন্ত হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে বলে মনে করছেন ভোটাররা।

কৌশলগত কারণে চট্টগ্রাম-৯ আসন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দু’দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ।

এটি ভিআইপি আসন হিসেবে পরিচিত। দু’দল থেকেই সিনিয়র নেতাদের এখানে মনোনয়ন দেয়া হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। আওয়ামী লীগ প্রার্থী নওফেল ও বিএনপি প্রার্থী শাহাদাত বয়সে তরুণ হলেও নিজ নিজ দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে রয়েছেন। নওফেল আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন। শাহাদাতও বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের (চট্টগ্রাম বিভাগ) দায়িত্ব পালন করেছেন কিছুদিন। পরে তাকে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হয়। এখনও তিনি এ পদেই রয়েছেন।

এ দুই প্রার্থী আগে কখনও জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেননি। এবারই প্রথম মনোনয়ন পেয়েছেন। তাই যিনি জিতবেন, তিনিই প্রথবারের মতো জাতীয় সংসদে চট্টগ্রাম-৯ আসনের প্রতিনিধিত্ব করবেন।

এ আসনের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, পাড়া-মহল্লা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা গণসংযোগ করছেন। ভোট চাইছেন নওফেলের জন্য। তার ব্যানার ও পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো নির্বাচনী এলাকা। চট্টগ্রামের প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর বড় ছেলে নওফেল।

নিজের জনপ্রিয়তার পাশাপশি বাবার জনপ্রিয়তা তার সঙ্গে রয়েছে। সজ্জন ব্যক্তি হিসেবে নওফেলের সুনাম রয়েছে। এদিকে ডা. শাহাদাতের পক্ষে তার দলের নেতাকর্মীরা প্রচার চালাচ্ছেন। তবে প্রচার খুব জোরালো নয়। তার পক্ষে পোস্টারও তেমন একটা দেখা যায়নি।

জানতে চাইলে বিএনপি প্রার্থী ডা. শাহাদাতের প্রধান নির্বাচন সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট বদরুল আনোয়ার বলেন, ‘আমাদের প্রার্থী কারাগারে। আর আওয়ামী লীগ প্রার্থী বাইরে। সুতরাং পার্থক্যটা বুঝতেই পারছেন। এরপরও আমরা মনে করেছিলাম নির্বাচনী প্রচারণায় লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড থাকবে। কিন্তু হল তার উল্টোটা। পোস্টার লাগাতে, মাইকিং করতে গেলে বাধা দেয়া হচ্ছে। গণসংযোগও করতে দিচ্ছে না। নেতাকর্মীরা মাঠে নামলেই পুলিশ ধরে নিয়ে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ ও প্রশাসন আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা করছে, যাতে ভোটাররা ভয়ে কেন্দ্রে না যায়। এত কিছুর পরও আমরা আশাবাদী সুষ্ঠু নির্বাচন হলে শাহাদাতই জিতবেন।’

তিনি বলেন, নির্যাতন নিপীড়নের মাত্রা ভোটাররা দেখছেন। তারা ভয় পাওয়ার পরিবর্তে উল্টো শাহাদাতের জন্য সহানুভূতিশীল হয়ে ভোট দিতে কেন্দ্রে আসবেন।

ঘটনাপ্রবাহ : চট্টগ্রাম-৯: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×