গাজীপুরে গৃহবধূ হত্যা

বন্ধুদের নিয়ে স্ত্রীর লাশ গুম করে স্বামী

  যুগান্তর রিপোর্ট ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী আফরোজাকে হত্যার পর লাশ ঘরেই খাটের নিচে লুকিয়ে রাখে শাজাহান। এরপর বন্ধু খোকন ও মুকুলকে বাসায় ডেকে আনে। তিনজন মিলে আফরোজার লাশ রাতের অন্ধকারে বাড়ির পাশের সেপটিক ট্যাংকে ফেলে দেয়। এ জন্য শাজাহানের কাছ থেকে খোকন চার হাজার এবং মুকুল আড়াই হাজার টাকা নেয়। কিন্তু ফেঁসে যেতে পারে- এ ভয়ে খোকন ও মুকুল পরদিন স্থানীয় কাউন্সিলরকে আফরোজা হত্যার ঘটনা জানিয়ে দেয়।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে শুক্রবার চাঞ্চল্যকর এসব তথ্য জানান র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম।

গত ৩ জানুয়ারি গাজীপুরের ভাওরাইদ এলাকার নিজ বাসায় স্ত্রী আফরোজা বেগমকে (২৬) শ্বাসরোধ করে হত্যা করে শাজাহান মিয়া। পরদিন সেপটিক ট্যাংক থেকে পুলিশ আফরোজার লাশ উদ্ধার করে। এরপর এ ঘটনার ছায়া তদন্তে নামে র‌্যাব-১-এর একটি টিম। বৃহস্পতিবার রাতে ডেমরা থেকে আফরোজার স্বামী শাজাহান মিয়া (২৮) এবং লাশ গুমে সহায়তাকারী তার দুই বন্ধু খোকন মিয়া (২২) ও মুকুল মিয়াকে (২৫) গ্রেফতার করে র‌্যাব-১। সংবাদ সম্মেলনে সারোয়ার বিন কাশেম বলেন, আট বছর আগে গাজীপুরের একটি সুতার মিলে কাজ করার সময় শাজাহান ও আফরোজার মধ্যে প্রেম হয়। এরপর তারা বিয়ে করে। তাদের এক কন্যাসন্তান আছে। কিন্তু বিয়ের পর থেকে যৌতুক দাবি করতে থাকে শাজাহান। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কলহ লেগেই থাকত।

তিনি বলেন, তদন্তে জানতে পেরেছি, ২০১৬ সালে আফরোজা কাজের উদ্দেশ্যে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন। ২০১৮ সালের মাঝামাঝি দেশে ফিরে আসেন। এরপর স্ত্রীর কাছে বিদেশে অর্জিত টাকার হিসাব চাইতে থাকে শাজাহান। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কলহ বেড়ে যায়। গত ৩০ ডিসেম্বর আফরোজা ভোট দিয়ে বাসায় ফেরার পর তাকে বেধড়ক মারধর করে শাজাহান। এরপর ৩ জানুয়ারি সকালে দু’জনের মধ্যে ঝগড়ার একপর্যায়ে আফরোজাকে গলাটিপে হত্যা করে শাজাহান। এরপর খাটের নিচে লাশ লুকিয়ে রাখে।

র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, স্ত্রীর লাশ গুম করতে শাজাহান তার বন্ধু খোকন ও মুকুলকে বাসায় ডেকে আনে। তিনজন মিলে ওই রাতে বাসার পাশের সেপটিক ট্যাংকে আফরোজার লাশ ফেলে দেয়। এরপর শাজাহানের কাছ থেকে খোকন ৪ হাজার এবং মুকুল আড়াই হাজার টাকা নেয়। কিন্তু পরে খোকন ও মুকুল ভয়ে স্থানীয় কাউন্সিলরকে জানায়, রাতে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় তারা দেখে শাজাহান তার স্ত্রীর লাশ সেপটিক ট্যাংকে ফেলে দিচ্ছে। তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ডের মূল আসামি শাহাজানকে গ্রেফতারের পর তার অভিযোগের ভিত্তিতে খোকন ও মুকুলকে গ্রেফতার করা হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×