বাকসু নির্বাচন নিয়ে তোড়জোড়

বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা * ছাত্রদল বলছে পরিবেশ নেই

  তন্ময় তপু, বরিশাল ব্যুরো ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বরিশালের ঐতিহ্যবাহী বিএম কলেজ ছাত্র সংসদ (বাকসু) নির্বাচন নিয়ে তোড়জোড় শুরু হয়েছে। এ কারণে কাম্পাসে ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীদের মধ্যে উদ্দীপনা লক্ষ করা যাচ্ছে। ছাত্রলীগ, ছাত্রমৈত্রী, ছাত্র ইউনিয়ন এবং ছাত্র ফ্রন্টের নেতারা বাকসু নির্বাচন নিয়ে নানা পরিকল্পনার কথা বললেও ক্যাম্পাসে দেখা যাচ্ছে না ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের। তাদের অভিযোগ, নির্বাচনের কোনো পরিবেশই নেই। তারা ছাত্রলীগের হুমকিধমকিতে কলেজে প্রবেশ করতে পারছেন না

জানা গেছে, বিএম কলেজ ছাত্র সংসদ গঠনের দাবিতে ছাত্র সংগঠনগুলো আনেক আগ থেকেই আন্দোলন করে আসছে। তবে বিভিন্ন কারণে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের আয়োজন করতে পারেনি কলেজ কর্তৃপক্ষ। সর্বশেষ এই কলেজে ছাত্র সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০০৩ সালে। ওই নির্বাচনে ছাত্রদল থেকে মশিউল আলম সেন্টু ভিপি নির্বাচিত হন। এরপর আর নির্বাচন হয়নি। ২০১১ সালে তিন মাসের জন্য বাকসুর আদলে অস্থায়ী ছাত্র কর্মপরিষদ গঠন করা হয়। পরিষদে ভিপি হন কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মঈন তুষার। তবে নানা বিতর্কের মুখে এবং সাবেক সিটি মেয়র শওকত হোসেন হিরনের মৃত্যুর পর স্থবির হয়ে পড়ে কর্মপরিষদের কার্যক্রম। এরপর নানা সময় বাকসু নির্বাচনের দাবি উঠলেও তাতে কান দেয়নি কলেজ প্রশাসন। এখন নতুন করে ছাত্র সংসদ নির্বাচন হোক, তা ছাত্র-শিক্ষক সবাই চাচ্ছেন।

কলেজ সূত্রে জানা যায়, বাকসু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তৎপর ১০ ছাত্র নেতা। এর মধ্যে আছেন বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি ও বিএম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আতিকুল্লাহ মুনিম। তিনি সহসভাপতি (ভিপি) প্রার্থী হতে চান। এছাড়া বিএম কলেজের অস্থায়ী কর্মপরিষদের সাহিত্য সম্পাদক নূর আল আহাদ সাঈদী, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজভী আহম্মেদ রাজা রাঢ়ী, মানবকল্যাণ সম্পাদক তোহারুল ইসলাম কবির, শহীদুল ইসলাম সাদ্দাম, ছাত্র মৈত্রীর বিএম কলেজ শাখার সভাপতি জয় চক্রবর্তী, সাবেক সভাপতি নূর নিরব, ছাত্র ইউনিয়নের আহ্বায়ক কিশোর চন্দ্র বালা, ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি মোজাম্মেল হক, সাধারণ সম্পাদক সাগর দাস এবং ছাত্রলীগ নেতা খায়রুল হাসান সৈকত প্রার্থী হবেন বলে জানা গেছে। ছাত্রলীগ নেতা আতিকুল্লাহ মুনিম জানান, একটি কলেজে ছাত্র সংসদ খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আশা করছি, কলেজ প্রশাসন আর বেশি বিলম্ব করবে না। দ্রুত নির্বাচন হলে শিক্ষার্থীদের স্বার্থ নিয়ে কাজ করা যাবে। এছাড়া এটা শিক্ষার্থীদের প্রাণের দাবিও। রেজভী আহম্মেদ রাজা রাঢ়ী বলেন, দীর্ঘ বছর বাকসুর কোনো কার্যক্রম নেই। আমরা চাই কলেজের ছাত্র সংসদ সচল করতে। এটা হলে ক্যাম্পাসে চাঞ্চল্য ফিরে আসবে। ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি জয় চক্রবর্তীর মতে, নানা কারণে নির্বাচনের আয়োজন করতে পারেনি কলেজ কর্তৃপক্ষ। এবার যদি উদ্যোগ নেয়া হয়, তাহলে সেটা উত্তম সিদ্ধান্ত হবে। আমরাও আমাদের ক্যাম্পাসে প্রাণচাঞ্চল্য দেখতে চাই। শিক্ষার্থীরা তাদের দাবি আদায়ের মুখপাত্র পাচ্ছে না। যে কারণে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। এ কারণেই ছাত্র সংসদের নির্বাচন অত্যাবশ্যক। বরিশাল মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন কবির জানান, এ মুহূর্তে বিএম কলেজে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের পরিবেশ নেই। এক পাক্ষিক রাজনীতি চলছে। যেখানে প্রশাসনের সাপোর্টও পাচ্ছেন তারা। কলেজ কর্তৃপক্ষ যদি নিরাপত্তা নিশ্চিত দেয়, তাহলে অবশ্যই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে ছাত্রদল। কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক আলামিন সরোয়ার জানান, বাকসু নির্বাচন অত্যন্ত জরুরি। নির্বাচনের কার্যক্রম শুরু হলে বাকসু নির্বাচনের কার্যক্রমও শুরু হবে। কলেজের অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান সিকদার বলেন, দেশের কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদ নেই। তারপরও আমরা নির্বাচন আয়োজনের চেষ্টা করছি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×