রাজশাহীতে নগরবাসীর ক্ষোভ

ওয়াসার পানি পান-অযোগ্য

  আনু মোস্তফা, রাজশাহী ব্যুরো ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পরিশোধন

পরিশোধন ছাড়াই বছরের পর বছর ধরে পান অযোগ্য পানি নগরবাসীকে সরবরাহ করছে রাজশাহী ওয়াসা। এমন অভিযোগ নগরবাসীর। তাদের দাবি, গভীর নলকূপের মাধ্যমে ভূগর্ভ থেকে তুলে পাইপলাইনে নগরবাসীকে যে পানি ওয়াসা সরবরাহ করে তা সুপেয় নয়।

এ কারণে বিশুদ্ধ ও নিরাপদ পানির জন্য অনেকে হস্তচালিত নলকূপ থেকে পানি সংগ্রহের পর ফিল্টার করে পান করেন। ওয়াসার পানিতে শুধু ধোয়ামোছার কাজ সারেন। তবে রাজশাহী ওয়াসার কর্মকর্তাদের দাবি, পাইপলাইনে সরবরাহকৃত পানি পানযোগ্য ও নিরাপদ।

জানা গেছে, ৫ লাখ ৫১ হাজার ৬৩০ জন অধিবাসীর রাজশাহী নগরীতে ওয়াসার গ্রাহক সংখ্যা ৪২ হাজার ৪৮০ জন। ওয়াসার দাবি, তারা ৪ লাখ ৪ হাজার ২১০ জনের জন্য পানি সরবরাহ করছে। এই হিসাবে নগরীর মোট জনসংখ্যার ৭৩ দশমিক ২৮ ভাগ মানুষ পানি সরবরাহের আওতায় রয়েছেন। নগরীতে দৈনিক ১১ দশমিক ৩৩ কোটি লিটার চাহিদার বিপরীতে ৯৬টি গভীর নলকূপের মাধ্যমে দৈনিক ৭ দশমিক ৭৮ কোটি লিটার পানি উত্তোলন করে ওয়াসা। তবে ওয়াসা বিক্রি করতে পারে মাত্র ৫ দশমিক ১০ কোটি লিটার।

বাকি ২ দশমিক ৬৮ কোটি লিটার পানির হিসাব পায় না সংস্থাটি। ওয়াসার সূত্র মতে, সরবরাহকৃত পানির ৯৬ ভাগই আসে ভূগর্ভস্থ উৎস থেকে। নগরীর শ্যামপুরে ওয়াসার ৫টি শোধনাগার রয়েছে- যেগুলো সচল থাকে মাত্র ৪ মাস। ফলে সাময়িকভাবে বাকি ৪ ভাগ পানি আসে এই শোধনাগার এবং হস্তচালিত নলকূপ থেকে।

নগরীর দোশর মণ্ডলের মোড়ের বাসিন্দা দুরুল হোদা বলেন, ওয়াসার পানিতে প্রচুর আয়রন থাকে। ফলে এই পানি খেলে পেটের পীড়ায় আক্রান্তের আশঙ্কা থেকে আমরা হস্তচালিত নলকূপের পানি ফিল্টার করে পান করি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×