রাবিতে বক্তারা

ড. জোহা প্রবীণ বিজ্ঞানীদের মনে তীব্র অনুরণন

  রাজশাহী ব্যুরো ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের প্রফেসর শ্যামল চক্রবর্তী বলেছেন, যেসব গুণাবলীর জন্য একজন পাঠদাতা প্রকৃত শিক্ষকের মর্যাদা লাভ করেন ড. শামসুজ্জোহা সেই স্থান অর্জন করেছিলেন। শুধু তাই নয়, ১৯৬৯ সালে ড. জোহার প্রাণদান প্রবীণ বিজ্ঞানীদের মনে এক তীব্র অনুরণন তৈরি করেছিল। যা তরুণ সমাজের কাছে অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। সোমবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট ভবনে আয়োজিত জোহা স্মারক বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি।

প্রফেসর চক্রবর্তী বলেন, ড. জোহা নিজের জীবন দান করে আমাদের জানিয়ে দিয়েছেন তার প্রত্যায়ী আত্মদানে তৈরি হয়েছে পাকিস্তানের বন্দিশালা থেকে মুক্ত বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে মনে রাখতে হবে পৃথিবীতে জোহার মত মানুষ প্রচুর জন্ম নেয় না। ড. জোহা একজনই। এমন একজন শিক্ষক যিনি ছাত্রের জন্য নিজের বুক পেতে দিয়েছেন। রসায়ন বিভাগের আয়োজনে স্মারক বক্তৃতায় শ্যামল চক্রবর্তী ‘চরিতার্থ এক বিজ্ঞান জীবন : নির্মিত ও সমকালের ভাবনা’ বিষয়ক প্রবন্ধ পাঠ করেন।

রসায়ন বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. বেলায়েত হোসেন হাওলাদারের সভাপতিত্বে প্রধান পৃষ্ঠপোষকের বক্তব্য বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি প্রফেসর ড. এম আব্দুস সোবহান বলেন, ড. জোহার মৃত্যুর মধ্যদিয়ে আমাদের স্বাধীনতার আন্দোলনের সূত্রপাত হয়। তাঁর এই আত্মহুতি বৃথা যায়নি। পরবর্তী সময়ে দেশের সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে এ আত্মহুতি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে। অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন প্রোভিসি প্রফেসর ড. আনন্দ কুমার সাহা, প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া প্রমুখ।

রসায়ন বিভাগের শিক্ষাথী ফারজানা ও ইমন ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান, ছাত্র উপদেষ্টা প্রফেসর ড. লায়লা আরজুমান বানু, জনসংযোগ দফতরের প্রশাসক প্রফেসর ড. প্রভাষ কুমার কর্মকার, শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি প্রফেসর ড. নজরুল ইসলামসহ বিভিন্ন বিভাগের দুই শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

জোহা দিবস উপলক্ষে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে কালো পতাকা উত্তোলন, এরপর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহীদ ড. জোহার মাজার ও জোহা স্মৃতিফলকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

এ ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, আবাসিক হল, স্কুল, পেশাজীবী সমিতি, প্রেস ক্লাব, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শহীদ ড. জোহার মাজার ও জোহা স্মৃতিফলকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এদিন বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআনখানি এবং মোনাজাত ও সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে দোয়া মাহফিল ও প্রদীপ প্রজ্জ্বালন অনুষ্ঠিত হয়। এদিন শহীদ স্মৃতি সংগ্রহশালা সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত ছিল।

আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×