চকবাজার ট্র্যাজেডি

ভ্যানেই পুড়ে মারা যান কুড়িগ্রামের ৩ যুবক

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজধানীর চকবাজার ট্র্যাজেডির শিকার হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন কুড়িগ্রামের তিন যুবক। এদের একজন হচ্ছেন সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের মাঠেরপাড় শিবেরচরের আবদুল কাদেরের পুত্র সজীব (২৩) এবং অপর দু’জনের বাড়ি নাগেশ্বরী উপজেলায়। এর মধ্যে মৃত মোজাম্মেলের ছেলে রাজু মিয়ার (১৮) বাড়ি হাজীপাড়া ইউনিয়নের গোবর্ধনকুঠি গ্রামে এবং তৃতীয় যুবক খোরশেদ আলম (২২) একই উপজেলার আবু বক্করের ছেলে। এরা পুরান ঢাকার একটি জুতার দোকানে কাজ করতেন। দুর্ঘটনার সময় তারা কারখানার মালামাল ভ্যানে করে অন্য দোকানে সরবরাহ করতে গিয়ে আগুনের কবলে পড়ে। আগুনের ঝাপটায় ভ্যানের মধ্যেই পুড়ে মারা যান দরিদ্র ঘরের এ তিন সন্তান। পরিবারকে সহায়তায় এরা ঢাকার একটি জুতার দোকানে কাজ করছিলেন। ঘটনার দিন বুধবার রাত ১০টার দিকে অন্য দোকানে মালামাল ডেলিভারি করতে গিয়েছিলেন তারা। শুক্রবার ভোরে তাদের লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছার পর কান্নার রোল পড়ে যায়। পরে নিজ নিজ এলাকায় তাদের লাশ দাফন করা হয়। তারা তিনজনই কিশোর বয়স থেকেই ওই জুতার দোকানে কাজ নেন। সন্তান হারিয়ে সজীবের বাবা আবদুল কাদের বারবার মূর্ছা যাচ্ছিলেন। আর বলছিলেন, বাবারে মোর ছওয়াটাক তোমরা আনি দেও। মুই অ্যালা কার ভরসায় বাঁচিম। রাজুর ভাই মাসুদ জানায়, বাড়ির ভিটা ছাড়া আমাদের আর কিছু নেই। বাবা মারা যাওয়ার পর ১১ বছর আগে রাজু ঢাকায় কাজ নেয়। খোরশেদের মামা নবীউল্লাহ জানান, খোরশেদ আলম তার পিতার একমাত্র ছেলে। ছোট্ট বাড়ির ভিটা ছাড়া তাদের কোনো জমিজমা নেই। জুতার দোকানে কাজ করে দিনমজুর বাবাকে সাহায্য করতেন। একমাত্র সন্তান হারিয়ে আবু বক্কর ছটফট করছেন আর বলছেন, অ্যালা মুই কাক নিয়া থাকিম। কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন জানান, দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবার সম্পর্কে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। প্রত্যেক পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়ার বিষয়টি বিবেচনায় রয়েছে।

আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×