বিআরডিবি’র কৃষি কর্মসূচি

২১৩০ কর্মচারীর মানবেতর জীবন

বেতন-ভাতা মিলছে না ৩২ মাস * রাজস্বভুক্ত করার দাবি

  মতিন আব্দুল্লাহ ২১ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিআরডিবি

নাটোরের লালপুরে কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতির কর্মচারী মো. আবদুল হক। ৩২ মাস বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। অনাহারে-অর্ধহারে দিন কাটছে। বেতন-ভাতার দাবি নিয়ে মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

এ কর্মসূচিতে অংশ নিতে যাতায়াতের অর্থ জোগাড় করেছেন পোষা ছাগল বিক্রি করে। তার বিশ্বাস, তাদের এ দাবি সাংবাদিকরা প্রচার করলে সমস্যার সমাধান মিলবে।

শুধু আবদুল হক নন, তার মতো চরম অর্থ সংকটে মানবেতর জীবনযাপন করছেন বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবি) আওতাধীন দেশের ৪৭৮টি উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতির (ইউসিসিএ) ২ হাজার ১৩০ কর্মচারী। দেশের কৃষিবিপ্লব ঘটাতে ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর উদ্যোগে ইউসিসিএ গঠিত হয়। সেই থেকে এই সমিতির মাধ্যমে কৃষকদের ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম চালু রয়েছে। কিন্তু প্রশাসনিক নানা জটিলতায় তারা সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। বিআরডিবি এ ব্যাপারে কার্যকর উদ্যোগ নিলে বিদ্যমান সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে অভিমত ভুক্তভোগীদের।

এ প্রসঙ্গে বিআরডিবি’র মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) মুহাম্মদ মউদুদউর রশীদ সফদার যুগান্তরকে বলেন, ‘ইউসিসিএ’র কর্মচারীদের রাজস্বভুক্ত করার ব্যাপারে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রণালয়ের একটি কমিটির সুপারিশ রয়েছে। তবে বিদ্যমান আইন ও বিধি অনুযায়ী সেটা বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। এজন্য এ ব্যাপারে কার্যকর সিদ্ধান্ত নিতে হলে অর্থ মন্ত্রণালয় ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত প্রয়োজন।’

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ইউসিসিএ কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মো. দুলাল মিয়া যুগান্তরকে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর গঠিত ইউসিসিএ এখনও দেশের কৃষকের একমাত্র সরকারি ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠান। এ উদ্যোগের ফলে দেশের কৃষিবিপ্লব সাধিত হয়েছে এবং বর্তমানে দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। কিন্তু এ কাজের অন্যতম কারিগররা চরম অবহেলিত।’

তিনি আরও বলেন, আমাদের দাবি বাস্তবায়নে সরকারি কমিটির সুপারিশ থাকলেও বিআরডিবি তা উপেক্ষা করে চলেছে। এ ব্যাপারে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে প্রধানমন্ত্রী, এলজিআরডিমন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর বিশেষ সহায়তা কামনা করছি।

অনুসন্ধানে জানা যায়, দেশের কৃষি খাতে বিপ্লব ঘটিয়ে খাদ্য সংকট নিরসনের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালে ইউসিসিএ গঠন করেন। এ সমিতির মাধ্যমে সেময় দেশের প্রান্তিক কৃষককে চাষাবাদে ঋণ দেয়া হয়। দেশের কৃষি খাতের উন্নতি সাধনে সরকারের এ কর্মসূচি বড় অবদান রাখছে। বঙ্গবন্ধুর গড়ে তোলা এ কর্মসূচির কর্মচারীদের ১৯৮২ সাল পর্যন্ত রাজস্ব খাত থেকে বেতন-ভাতা দেয়া হতো। একইসঙ্গে এ প্রকল্প বাস্তবায়নে জড়িত তিন রসরকারি কর্মকর্তাও রাজস্ব খাত থেকে বেতন-ভাতা পেতেন।

কিন্তু ১৯৮২ সালে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি) গঠনের পর ইউসিসিএ’র কর্মচারীদের সরকারি কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা বন্ধ করে দেয়। তখন শুধু উপজেলা পর্যায়ের ৩ কর্মচারী, জেলা ও দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের রাজস্ব খাত থেকে বেতন-ভাতা দেয়া হতো। আর অন্যদের সমিতির নিজস্ব আয় থেকে বেতন-ভাতা প্রদানের নিয়ম চালু করে। সেই থেকে সমিতির নিজস্ব আয় থেকে তাদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করছে বিআরডিবি। আয়ের সংকুলান না হওয়ায় সব উপজেলায় বেতন-ভাতা পরিশোধ করা সম্ভব হয় না। এ কারণে শুরু থেকে ইউসিসিএ’র কর্মচারীরা দাবি জানিয়ে আসছে, তাদের শুরুর মতো রাজস্বভুক্ত করার।

আরও জানা যায়, ২০০৮ সালে বিআরডিবি’র ৪২তম বোর্ড সভায় এবং ২০১০ সালে ৪৪তম বোর্ড সভায় সিদ্ধান্ত হয়, ইউসিসিএ’র কর্মচারীদের রাজস্বভুক্ত করা হবে। এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সাত সদস্যের কমিটি হয়। কমিটি ২০১২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন জমা দেয়। কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে ইউসিসিএ কর্মচারীদের রাজস্ব বাজেটে অন্তর্ভুক্ত করার পূর্বপর্যন্ত বিআরডিবিকে ৭০ ভাগ স্যালারি সাপোর্ট দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

এরপর তিন বছর (২০১৩-২০১৪, ২০১৪-২০১৫, ২০১৬-২০১৭) ইউসিসিএ’র কর্মচারীদের ৫০ ভাগ বেতন-ভাতা দিয়েছে বিআরডিবি। পরে সাত বছর পার হলেও বিআরডিবি ইউসিসিএ কর্মচারীদের রাজস্বভুক্তির কোনো উদ্যোগ নেয়নি। সমিতির নিজস্ব আয় দিয়ে তাদের বেতন হচ্ছে না। অন্যদিকে রাজস্বভুক্ত না করায় জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ থেকেও তারা বঞ্চিত।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×