মেয়ের ঘাতকের সর্বোচ্চ শাস্তি দেখে যেতে চাই

ষাটোর্ধ্ব বাবার আকুতি

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ১১ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শাস্তি

‘হয় আপস করো, না হয় মরো’ একমাত্র মেয়ের হত্যা মামলা তুলে নিতে এভাবেই এক বাবাকে হুমকি দিচ্ছে আসামিপক্ষের লোকজন।

তাই মেয়ে কামরুন নাহার তূর্ণার হত্যার বিচার, ঘাতকের সর্বোচ্চ শাস্তি ও নিজের জীবনের নিরাপত্তা চান ষাটোর্ধ্ব মফিজুল হক। বুধবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নিয়ে তিনি এই দাবি তুলে ধরেন। এ সময় তার গলায় তূর্ণার ছবি ঝুলানো ছিল। মৃত্যুর আগে মেয়ে হত্যার বিচার দেখে যাওয়ার আকুতি জানান এই অসহায় বাবা।

২০১২ সালের জানুয়ারিতে জেলার আশুগঞ্জ উপজেলার চরচারতলা গ্রামের আমিরুল হকের ছেলে আরিফুল হক রনির সঙ্গে পারিবারিকভাবে তার চাচাতো বোন কামরুন নাহার তূর্ণার বিয়ে হয়। তাদের একটি মেয়ে সন্তানও রয়েছে। বিয়ের পরই তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। এর জেরে ২০১৭ সালের ২৪ এপিল তূর্ণাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে রনি। হত্যার সময় তূর্ণা তিন মাসের গর্ভবতী ছিল।

এ ঘটনায় স্বামী রনিকে আসামি করে ২৫ এপ্রিল আশুগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা করেন মফিজুল। ওই বছরের ২১ মে আদালতে আত্মসমর্পণ করলে বিচারক রনিকে কারগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। পরে জামিনে আসার পরই মামলা তুলে নিতে মফিজুলকে হুমকি দিচ্ছে রনি।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বলেন, মফিজুল হক তাকে হুমকি দেয়ার কোনো অভিযোগ থানায় করেছেন কিনা জানা নেই। থাকলে তদন্ত করে আদালতকে জানানো হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×