এক বছরের মধ্যেই সব কাজ শেষ করব

  এস এম শহীদ, মধুপুর (টাঙ্গাইল) ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজা ধনপতি সিংহের রাজধানী টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী এখন নানা সমস্যায় জর্জরিত। ১৯৯৬ সালের ১২ আগস্ট ধনবাড়ী পৌরসভা হিসেবে উন্নীত হলেও সেখানে তেমন নাগরিক সুযোগ-সুবিধা বাড়েনি। প্রতিষ্ঠার দুই দশক পেরিয়ে গেলেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা নবাব নওয়াব আলী চৌধুরীর স্মৃতিবিজড়িত ধনবাড়ী পৌরসভায় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়নি। তবে উপজেলায় উন্নীত হওয়ায় ধনবাড়ীতে হাসপাতাল, ফায়ার সার্ভিস ও সাবরেজিস্ট্রার অফিসসহ কিছু অবকাঠামোগত উন্নতি হয়েছে।

এক বছর আগে কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে কাঁচাবাজার ও কাপড়হাটিতে পাকা মার্কেট নির্মিত হলেও ব্যবহারের জন্য সেগুলো উন্মুক্ত করা হয়নি। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহে মেয়রের নির্বাচনী প্রতিশ্র“তিরও বাস্তবায়ন নেই। তবে পৌর মেয়র খন্দকার মনজুরুল ইসলাম তপনের আশার বাণী হল- জনগণের দোয়া ও সমর্থন এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য তার পাশে থাকলে এক বছরের মধ্যে অসম্পন্ন সব কাজ তিনি সম্পন্ন করবেন।

পৌরবাসীর অভিযোগ, নিজবর্নি থেকে রূপশান্তি ও রামকৃষ্ণবাড়ীর রাস্তার বেহাল দশায় তারা অতিষ্ঠ। শুধু ওই রাস্তা নয়, টাকুরিয়া, ছত্রপাড়াসহ বিভিন্ন রাস্তার বেহাল দশায় জনমনে অসন্তোষ বিরাজ করছে। ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ নাগরিক সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে পৌর মেয়র অনেকাংশেই ব্যর্থ। এসব অভিযোগের কিছুটা যুগান্তরের কাছে স্বীকার করে মেয়র তপন বলেন, এবারের মারাÍক বন্যায় রাস্তাঘাট বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ডাম্পিং প্লেস না থাকায় ভাড়া জায়গায় ময়লা ফেলা হচ্ছে। জায়গার অভাবে বাস টার্মিনাল নির্মাণ করা যাচ্ছে না। অডিটোরিয়াম, পৌর পার্কও নির্মাণ করা যায়নি। তবে নিজের সফলতার কথা তুলে ধরে তপন জানান, প্রায় পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ কাজসম্পন্ন দুটি পৌর মার্কেট চালুর অপেক্ষায় রয়েছে। এগুলো শিগগিরই উদ্বোধন করা হবে। তিনি বলেন, প্রথম মেয়াদের প্রতিশ্র“তি অনুযায়ী পৌর কবরস্থান করা হয়েছে। সড়ক বাতি লাগানো, ময়লা ফেলার জায়গা নির্ধারণ, পাবলিক টয়লেট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হয়েছে। মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজিমুক্ত পৌর শহর গঠনে কাজ করছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ প্রকল্পের কাজও দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। প্রথম মেয়াদে শুরু করা অসম্পন্ন উন্নয়নমূলক কাজগুলো সমাপ্ত করে ঐতিহ্যের ধনবাড়ীকে আধুনিক ও উন্নত পৌরসভায় পরিণত করতে তার স্বপ্ন ও ব্রতের কথা তিনি তুলে ধরেন। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক খাদ্যমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাকের উন্নয়নমুখী কর্মকাণ্ডে নিজেকে সহায়ক শক্তি হিসেবে প্রকাশ করে মেয়র তপন বলেন, বিভিন্ন কমিটি ও স্থানীয় নাগরিকদের মতামতের ভিত্তিতে পরিকল্পনা অনুযায়ী পৌরসভাকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। ধনবাড়ীবাসী তাকে ভুল বুঝবেন না বলে তার বিশ্বাস। জনগণের দোয়া ও সমর্থন এবং এমপি পাশে থাকলে এক বছরের মধ্যে অসম্পন্ন কাজ সম্পন্ন করা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রেখে ধনবাড়ীকে আধুনিক শহর বানাতে তিনি সবার সহযোগিতা ও আশীর্বাদ কামনা করেন।

২০০১ সালের প্রথম পৌরসভা নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি বদিউল আলম মঞ্জু এবং দ্বিতীয় মেয়াদে মেয়র নির্বাচিত হন বিএনপির হাবিবুল্লাহ ফকির। এরপর দুই দফায় মেয়র নির্বাচিত হন ধনবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খোন্দকার তপন। এর আগে মুশুদ্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে তপন দুই দফা দায়িত্ব পালন করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter