বর্ণাঢ্য আয়োজনে র‌্যাবের বাংলা বর্ষবরণ

অবৈধভাবে বাংলাদেশে আসায় ৪৯৫ জন আটক-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  যুগান্তর রিপোর্ট ২১ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাবের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত রাজধানীর কুর্মিটোলায় র‌্যাবের হেডকোয়ার্টার প্রাঙ্গণে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে র‌্যাবের পক্ষ থেকে প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়। প্রীতিভোজে বাংলার ঐতিহ্যবাহী খাবারের পসরা সাজানো হয়। প্রীতিভোজ শেষে বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে গ্রামবাংলার নানা ঐতিহ্যকে ফুটিয়ে তোলা হয়। গ্রামবাংলার বৈচিত্র্য তুলে ধরতে সাপ খেলা, বানর খেলা, নাচ-গান এবং জাদু প্রদর্শনসহ নানা আয়োজন ছিল অনুষ্ঠানে। বিভিন্ন স্টল, গাছ-গাছালি, পাখ-পাখালির মাধ্যমে র‌্যাব হেডকোয়ার্টারে ফিরিয়ে আনা হয় গ্রামীণ পরিবেশ। সব মিলিয়ে র‌্যাব হেডকোয়ার্টার যেন হয়ে ওঠে এক মিনি বাংলাদেশ।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত এবং পুলিশের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাসহ পদস্থ সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাব সভাপতি সাইফুল আলম, কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলনসহ সিনিয়র সাংবাদিক এবং গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের স্বাগত জানান র‌্যাব ডিজি বেনজীর আহমেদসহ পদস্থ কর্মকর্তারা। সবার অংশগ্রহণে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান পরিণত হয় এক মিলন মেলায়।

এ বিষয়ে র‌্যাব লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান যুগান্তরকে বলেন, রাষ্ট্রীয়ভাবে যখন পহেলা বৈশাখ উদযাপন করা হয় তখন সব র‌্যাব সদস্যদের সাধারণ মানুষের নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকতে হয়। তাই তখন র‌্যাব সদস্যদের পক্ষে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করা সম্ভব হয় না। এ কারণে পহেলা বৈশাখের কয়েক দিন পর র‌্যাবের পক্ষ থেকে এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সব ধরনের স্টেকহোল্ডারের সঙ্গে র‌্যাবের বন্ধন দৃঢ় হয়। র‌্যাব সদস্যদের পরিবারের সদস্যরা ‘গেট টুগেদার’র সুযোগ পান। সবাই আনন্দ উপভোগের সুযোগ পান। ভবিষ্যতেও এ ধরনের অনুষ্ঠান অব্যাহত থাকবে।

অবৈধভাবে বাংলাদেশে আসায় ৪৯৫ জন আটক -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, কেবল বাংলাদেশ থেকেই মানবপাচার হয়নি। অন্যান্য দেশ থেকেও অবৈধভাবে বাংলাদেশে আসছে বিদেশিরা। অবৈধভাবে এদেশে আসায় ৪৯৫ জন আটক হয়েছে। এদের মধ্যে ৫৭ জনের শাস্তি হয়েছে। শনিবার সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে মানবপাচার প্রতিরোধে ইউএনডিপির সহযোগিতায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশন আয়োজিত দিনব্যাপী সেমিনারের প্রথম সেশনে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রলুব্ধ হয়ে দেশ থেকে মানবপাচার হচ্ছে। তিনি বলেন, প্রলুব্ধ হয়ে কেউ যেন দেশ ছেড়ে না যায়, তা নিশ্চিত করতে সবাই মিলে একযোগে কাজ করতে হবে। এক্ষেত্রে করণীয় সবকিছু করবে সরকার। তবে দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের কারণে প্রলুব্ধ হয়ে পাচারের সংখ্যা কমে আসছে। মন্ত্রী আরও বলেন, পাচার ঠেকাতে সব আইন যথাযথভাবে প্রয়োগ করা হচ্ছে। সব জেলায় কমিটি কাজ করছে।

সেমিনারে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক বলেন, পাচারের শিকার হয়ে বিভিন্ন দেশে যারা দুঃসহ জীবনযাপন করছেন, তাদের মানবাধিকার নিশ্চিত করে ফিরিয়ে আনতে হবে। পাচার ঠেকাতে আইনের কঠোর প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। ২০১২ সালে এ সংক্রান্ত আইন হলেও ৭ বছরে ট্রাইব্যুনাল গঠন করা যায়নি। তাই অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করা যাচ্ছে না।

জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠান আইওএম-এর বাংলাদেশ মিশনের প্রধান জর্জি গিগাওরি বলেন, কেন, কীভাবে পাচার হচ্ছে, তা খুঁজে বের করতে হবে। সবাই মিলে বাংলাদেশ থেকে এবং বিশ্ব থেকে মানবপাচার বন্ধ করতে হবে। এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক, ভারতের এটিএসইসি’র জাতীয় সমন্বয়কারী ও মহাসচিব মানবেন্দ্রনাথ মণ্ডল প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×