রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন

হোল্ডিং ট্যাক্সের বকেয়া ১৫ কোটি টাকা আদায়ে কঠোর পদক্ষেপ

  আনু মোস্তফা, রাজশাহী ব্যুরো ২১ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পদক্ষেপ

সরকারি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানসহ দেড় হাজার ব্যক্তির কাছে প্রায় ১৫ কোটি টাকা হোল্ডিং ট্যাক্স বকেয়া পড়েছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের (রাসিক)। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নিয়ম থাকলেও ১০টি সরকারি প্রতিষ্ঠান কখনোই হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধ করেনি।

এসব প্রতিষ্ঠানের কাছে বকেয়া হোল্ডিং ট্যাক্স আদায়ে রাসিকের রাজস্ব শাখা থেকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে কয়েকবার চিঠি দেয়া হয়েছে। তাতেও বকেয়া হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধ করেনি প্রতিষ্ঠানগুলো। সর্বশেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোসহ হোল্ডিং কর খেলাপি সবার পরিষেবা বন্ধ করাসহ সংশ্লিষ্টদের মালামাল ক্রোকেরও কথা ভাবছে রাসিক।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সর্বশেষ খানা জরিপ অনুযায়ী রাজশাহী মহানগরীতে ৬০ হাজার ৩৪৬টি হোল্ডিং রয়েছে। বছরে এসব হোল্ডিং থেকে ১১ কোটি ৩৪ লাখ ৪৮ হাজার টাকা ট্যাক্স আদায় হওয়ার কথা। কিন্তু বছরে আদায়যোগ্য ট্যাক্সের ২০ শতাংশও আদায় হয় না। এতে অন্যান্য খাতের টাকা দিয়ে নাগরিক পরিষেবাগুলো চালু রাখতে বাধ্য হয় তারা। জানা গেছে, ১৬ এপ্রিল থেকে নগরীর হোল্ডিং ট্যাক্স আদায় পক্ষ শুরু হয়েছে। চলবে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত। এরই মধ্যে বড় বড় ট্যাক্স খেলাপিদের জরুরি চিঠি দিয়েছে রাসিক। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হোল্ডিং কর পরিশোধ না করলে পরবর্তী পদকে।ষপের কথাও জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কয়েকটি সরকারি প্রতিষ্ঠানসহ প্রায় দেড় হাজার হোল্ডিংধারীর কাছে রাসিকের বকেয়ার পরিমাণ প্রায় ১৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) কাছে বকেয়া রয়েছে ১ কোটি ৪১ লাখ ৪১ হাজার টাকা।

এছাড়া জেলা শিল্পকলা একাডেমির কাছে ৪ লাখ ৬৮ হাজার, রাজশাহী রাইফেলস ক্লাবের কাছে ৪ লাখ ১১ হাজার, বিভাগীয় স্টেডিয়ামের কাছে ৪৮ লাখ ২০ হাজার, জেলা স্টেডিয়ামের কাছে ৯৮ লাখ ৯১ সহাজার ৬৯৮, রাজশাহী মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের কাছে ১ কোটি ৩ লাখ ৮০ হাজার ৬৯০, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কাছে ৭ লাখ ৪১ হাজার ৬০০, আন্তর্জাতিক টেনিস কমপ্লেক্সের কাছে ১৫ লাখ ৩৮ হাজার ৪৪৯ টাকা, রাজশাহী টেক্সটাইল মিলসের কাছে ২ কোটি ৩৬ লাখ ২৭ হাজার ৮৭৬ এবং রাজশাহী সার্ভে অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউটের কাছে ১৫ লাখ ৭ হাজার ৯২০ টাকা বকেয়া রয়েছে।

রাসিকের মতে, এই ১০টি প্রতিষ্ঠান আগে কখনোই হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধ করেনি। এছাড়া এক শ্রেণীর চিকিৎসক, ইঞ্জিনিয়ার ও ধনীক শ্রেণীর লোকেরাই হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধে অনীহা ও অসহযোগিতা করে আসছে। বরং মধ্যম আয়ের মানুষেরাই অধিকাংশ ক্ষেত্রে নিয়মিত ট্যাক্স পরিশোধ করে থাকে।

এ বিষয়ে রাসিকের হোল্ডিং ট্যাক্স রিভিউ কমিটির সভাপতি নিযাম উল আযীম বলছেন, মাত্র দেড় হাজার ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের কাছে এই মোটা অংকের টাকা বকেয়া পড়েছে। ট্যাক্স পরিশোধে তাদের একাধিকবার চিঠিও দেয়া হয়েছে। তাতেও সাড়া নেই। এ অবস্থায় খেলাপিদের সব নাগরিক পরিষেবা বন্ধ করার কথা ভাবছে রাসিক।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×