আজ বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবস

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৮ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দিবস

বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবস আজ। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও নানা আয়োজনে দিবসটি পালিত হচ্ছে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য, ‘অনাগত সন্তানকে দিতে থ্যালাসেমিয়া থেকে সুরক্ষা, বিয়ের আগে করুন রক্তের ইলেকট্রোফোরেসিস পরীক্ষা।’

বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণী দিয়েছেন। এতে তিনি বলেন, ১ থেকে ৩ বছরের শিশুদের মধ্যে এই রোগের লক্ষণ প্রকাশ পায়। আক্রান্ত শিশুদের শরীরে মারাত্মক রক্তশূন্যতা দেখা দেয়, ফলে ২-৪ সপ্তাহ পরপর শরীরে বাড়তি রক্তকণিকা যোগ করে ঘাটতি পূরণ করতে হয়। বাংলাদেশে প্রতি বছর প্রায় ৭ হাজার শিশু থ্যালাসেমিয়া নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। বিয়ের আগেই থ্যালাসেমিয়া এ রোগ সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে সহজেই এ রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

চিকিৎসকদের মতে, থ্যালাসেমিয়া একটি বংশগত রক্তের রোগ। রক্তে যদি হিমোগ্লোবিনের মাত্রা কম থাকে তাহলে থ্যালাসেমিয়া হয়। এর ফলে রক্তস্বল্পতা দেখা দিতে পারে। থ্যালাসেমিয়া ধারণকারী মানুষ সাধারণত রক্তে অক্সিজেন স্বল্পতা বা অ্যানিমিয়াতে ভুগে থাকেন। অ্যানিমিয়ার ফলে অবসাদগ্রস্ততা থেকে শুরু করে অঙ্গহানি পর্যন্ত ঘটতে পারে।

দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় থ্যালাসেমিয়া প্রতিরোধ আন্দোলন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আলোচনা সভার আয়োজন করে। এছাড়া আজ সকাল সাড়ে ১০টায় স্বাস্থ্য অধিদফতরে আরেকটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া বাংলাদেশ থ্যালাসেমিয়া ফাউন্ডেশন এবং অন্যান্য সংগঠনের সহযোগিতায় বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবস উদ্যাপিত হতে যাচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×