রংপুর ও ডোমারে ভিজিএফ-ভিজিডির ৮ শতাধিক বস্তা চাল উদ্ধার

আ’লীগ নেতাসহ আটক ৩

  যুগান্তর ডেস্ক ৩১ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চাল

রংপুরে দরিদ্র ও দুস্থ পরিবারের জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিএফ-ভিজিডি কর্মসূচির ৮০০ বস্তা চাল উদ্ধার করেছে র‌্যাব। এ সময় সদর উপজেলার সদ্যপুষ্করণী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল রানা, ব্যবসায়ী আনছারুল ইসলাম ও অটোচালককে আটক করা হয়েছে।

এছাড়া নীলফামারীর ডোমার পৌরসভার আরডিআরএস মোড় থেকে ৩৭ বস্তা ভিজিএফের চাল জব্দ করেছেন এলাকাবাসী। যুগান্তর ব্যুরো ও প্রতিনিধির পাঠানো খবর-

রংপুর : বৃহস্পতিবার গভীর রাতে পালিচড়া থেকে চাল উদ্ধারসহ ইউপি চেয়ারম্যান ও ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় পালিচড়া থেকে চাল নিয়ে যাওয়ার সময় নগরীর দর্শনা থেকে ২১ বস্তা চালসহ অটোচালককে আটক করে তাজহাট থানা পুলিশ। রংপুর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদার রহমান মিলন জানান, আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দুস্থদের জন্য সরকার থেকে জনপ্রতি ১৫ কেজি করে চাল বরাদ্দ দেয়া হয়।

সদর উপজেলার সদ্যপুষ্করণী ইউনিয়নের প্রায় ৬ হাজার ২৯০ জন সুবিধাভোগীর মাঝে বিতরণের জন্য মঙ্গলবার ৩ হাজার ১৪৫ বস্তা চাল ইউনিয়ন পরিষদে আনা হয়। বুধবার ওই এলাকায় চাল বিতরণ শেষে ৬০-৭০ জন কার্ডধারী নারী চাল না পেয়ে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। চাল বিতরণ শেষ হয়েছে জানিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান পরে তাদের চাল প্রদানের আশ্বাস দেন। বিষয়টি জানাজানি হলে তা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরে আসে। বুধবার রাতে ২১ বস্তা চাল স্টেশন এলাকায় নিয়ে যাওয়ার সময় নগরীর দর্শনা থেকে অটোচালকসহ ওই চালগুলো আটক করে তাজহাট থানা পুলিশ।

ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদার রহমান মিলন আরও জানান, বুধবার রাতেই চাল উদ্ধারে অভিযানে নামে র‌্যাব। রাত থেকে ভোর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে পালিচড়া বাজারের আনছারুল ইসলাম, রাঙ্গা, সুমন ব্যাপারী, কুরবান, দিলশানসহ একাধিক গোডাউনে অভিযান চালিয়ে প্রায় ৭ শতাধিক চালের বস্তা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল রানা ও ব্যবসায়ী আনছারুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে।

এসব চাল কালোবাজারে বিক্রির জন্য মজুদ করা হয়েছিল বলে তিনি দাবি করেন। ঘটনাস্থল থেকে র‌্যাবের এক কর্মকর্তা জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল রানা ও ব্যবসায়ী আনছারুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল রানা র‌্যাব হেফাজতে থাকায় তার বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

ডোমার (নীলফামারী) : ডোমার উপজেলা প্রকল্প কার্যালয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মোহাইমিনুল ইসলাম জানান, এভাবে প্যাকিং বস্তার চাল ক্রয়-বিক্রয় আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। ভ্যানচালকদের ভাষ্যমতে চালের বস্তার মালিক চাল ব্যবসায়ী মশিয়ার, সফিয়ার ও আনোয়ার। ডোমার উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে ফাতিমা জানান, আপাতত চালের বস্তা জব্দ করা হয়েছে। আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×