গাজীপুরে মির্জা ফখরুল

খালেদা জিয়ার বার্তা দলকে যে কোনো মূল্যে ঐক্যবদ্ধ রাখুন

  গাজীপুর প্রতিনিধি ০২ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশের ষোলো কোটি মানুষের দেশনেত্রী, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের প্রতীক, গণতন্ত্রের প্রতীক খালেদা জিয়া এখন কারারুদ্ধ। কারাগারে বসেই তিনি প্রতি মুহূর্তে গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করে যাচ্ছেন। তিনি প্রতি সপ্তাহে শুধু একটি মেসেজই পাঠান, যে কোনো মূল্যে দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখুন। আমরা এ পর্যন্ত যতগুলো সিদ্ধান্ত নিয়েছি খালেদা জিয়ার সঙ্গে আলোচনা-পরামর্শ করেই নিয়েছি।

শনিবার বিকালে গাজীপুর মহানগর বিএনপির উদ্যোগে টঙ্গীর দেওড়া এলাকায় আহসান উল্লাহ সরকার ইসলামিক ফাউন্ডেশন চত্বরে প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মির্জা ফখরুল নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, আপনাদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি দূর করুন। যারা অভিমান করে দূরে সরে আছেন তাদের কাছে টেনে নেন। তাদের সঙ্গে সমঝোতা করে এখন এক হন। এটা সব নেতাকর্মীর দাবি, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও দেশনেত্রী খালেদা জিয়ারও দাবি।

ফখরুল আরও বলেন, আজকে আমরা অনেকেই একথা বলে বিভ্রান্ত হচ্ছি যে, আমরা নির্বাচনে গেলাম কেন? নির্বাচনে গিয়েছি গণতন্ত্রকে রক্ষার জন্য। দলকে রক্ষা করার জন্য। আমাদের যে হাজার হাজার নেতাকর্মী কারাগারে ছিলেন তাদের জন্য। আর আমরা পার্লামেন্টে গেলাম কেন?

এ সিদ্ধান্ত আমাদের দলের সিদ্ধান্ত। পার্লামেন্টে যে ক’জন গেছেন, তারা দলের সিদ্ধান্তেই গেছেন। তারা নিজেদের সিদ্ধান্তে যাননি। আমি যে যাইনি তাও দলের সিদ্ধান্তেই যাইনি। আমাদের মনে রাখতে হবে, সব সময় একই রকম চিন্তা করে সফল হওয়া যাবে না। কৌশলী হতে হবে।

সব সময় বিভিন্ন রকম নীতি তৈরি করতে হবে। রণনীতি তৈরি করতে হবে। যার মধ্য দিয়ে আমরা লক্ষ্যে পৌঁছতে পারব। মনে রাখতে হবে, আমরা একটা লক্ষ্যে পৌঁছাতে চাই। এজন্য যে সুযোগটুকু পাই সে সুযোগটুকুই আমাদের নিতে হচ্ছে। আমরা বাইরে যখন কথা বলতে পারছি না।

তখন ওইখানে ওই ছোট্ট জায়গায় (সংসদে) ওই চারজন-পাঁচজন গিয়ে তো কথা বলতে পারবেন। যে কথাগুলো সারা দেশে ছড়িয়ে যাবে। তাদের কথাগুলো সবাই শুনতে পাবেন। তা শুনে আমাদের নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত হবেন। তাদের কথাগুলো শুধু দেশে নয়, আন্তর্জাতিকভাবে ছড়িয়ে যাবে।

তারা বাইরে গিয়েও বলতে পারবেন দেশনেত্রীকে অন্যায়ভাবে আটকে রাখা হয়েছে। এ লড়াই সহজ লড়াই নয়। এ লড়াই আগের মতো লড়াই নয়। এ লড়াইয়ে ভিন্নতা আছে। পৃথিবী পরিবর্তন হচ্ছে, যুগের পরিবর্তন হচ্ছে, রাজনৈতিক হাওয়াও পরিবর্তন হচ্ছে। সেই পরিবর্তনে আমাদের সংগঠনকে যদি এগিয়ে নিতে না পারি আমরা ব্যর্থ হয়ে যাব।

সে কারণে আমাদের কৌশল নিয়ে এগোতে হচ্ছে। ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। অনেকে অনেক কথা বলবেন। আপনারা কেউ বিভ্রান্ত হবেন না।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বাতিল দাবি করে তিনি বলেন, অবিলম্বে এ নির্বাচন বাতিল করে নতুন নির্বাচন দিতে হবে। সেই নতুন নির্বাচনের জন্য নির্বাচনকালীন সময় সহায়ক সরকার অর্থাৎ একটা নিরপেক্ষ সরকার গঠন করতে হবে; যারা নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন পরিচালনা করবে।

আর এটাই হচ্ছে আমাদের দাবি। এ নির্বাচনের মাধ্যমে সত্যিকার অর্থে একটি জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই। আর এ দাবিগুলো আদায় করতে হলে, দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হলে, আমাদের সংগঠনকে শক্তিশালী করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। সে আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য আসুন আমরা সবার আগে সংগঠনকে শক্তিশালী করে তুলি।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, মনের মধ্যে যে ব্যথা-বেদনা আছে তা শক্তিতে রূপান্তরিত করতে হবে। আমাদের মা দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হবে। দেশকে মুক্ত করতে হবে।

তিনি বলেন, এ সংকট শুধু বিএনপির নয়, এ সংকট হচ্ছে জাতির, বাংলাদেশের। আজকে যদি এ সংকট উত্তরণ করতে না পারি বাংলাদেশ থাকবে না। দেশের গণতন্ত্র থাকবে না। সুতরাং দেশ ও জাতির স্বার্থে, গণতন্ত্রের স্বার্থে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আদায় করা একমাত্র কর্তব্য।

গাজীপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. সোহরাব উদ্দিনের সঞ্চালনায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি একেএম ফজলুল হক মিলন বলেন, বর্তমানে যারা ক্ষমতা দখল করে আছে, তারা এ দেশের জনগণের সরকার নয়।

এরা উপদ্রব। এরা জোর করে জনগণের ভোট ছিনিয়ে নিয়ে ক্ষমতা আঁকড়ে আছে। তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, হতাশার কারণ নেই, আমাদের দল আছে, নেতাকর্মী আছে। তবে লাখ লাখ নেতাকর্মীর দরকার নেই। আমাদের দরকার ইমানদার কিছু কর্মীর। যারা দলের সঙ্গে বেইমানি করবে না।

আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, সদস্য মো. মজিবুর রহমান, ডা. মাজহারুল ইসলাম, বিএনপি নেতা শাহ মো. রিয়াজুল হান্নান, গাজীপুর মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি আফজাল হোসেন কায়সার, শহীদ উজ্জামান, আহম্মদ আলী রুশদী, যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুল আলম শুক্কুর, রাশেদুল ইসলাম কিরণ, রাকিব উদ্দিন সরকার পাপ্পু, মহানগর যুবদলের সভাপতি প্রভাষক বসির উদ্দিন, বাসন থানা বিএনপির আহ্বায়ক বসির উদ্দিন বাচ্চু, কাশিমপুর থানা বিএনপির আহ্বায়ক শওকত হোসেন সরকার, মেট্রো সদর থানা বিএনপির আহ্বায়ক মাহবুব উল হক গোলাপ প্রমুখ।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×