মালয়েশিয়া থেকে এক মাসে ১৫৮ কোটি টাকা রেমিটেন্স

  আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া ০৩ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মালয়েশিয়ায় কর্মরত বাংলাদেশিরা গত এক মাসে দেশে ১৫৮ কোটি টাকা রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন। এ ছাড়া চলতি বছরের গেল ৫ মাসে মালয়েশিয়া অগ্রণী রেমিটেন্স হাউসের মাধ্যমে প্রবাসীরা দেশে ২৩০ কোটি ৯০ লাখ ৮৮ হাজার এবং ন্যাশনাল ব্যাংকের মাধ্যমে ৪২০ কোটি ৬০ লাখ ৪৫ হাজার টাকা পাঠিয়েছেন।

চলতি বছরের শুরু থেকে ২ জুন পর্যন্ত বৈধ পথে এ পরিমাণ টাকা মালয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন মালয়েশিয়ার এনবিএল ও অগ্রণী রেমিটেন্স-এর সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে প্রবাসীরা বলছেন, অবৈধ পথে এর দ্বিগুণ টাকা পাঠানো হয়েছে। জানা গেছে, মালয়েশিয়ায় বাঙালিরা হুন্ডি ব্যবসায় জড়িত, যা বাংলাদেশ সরকারের রেমিটেন্স খাতে কু-প্রভাব পড়ছে। মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি ১টি সরকারি ও দুটি বেসরকারি ব্যাংকের শাখা থাকার পরও হুন্ডিকে সঠিক হিসেবে মনে করছে অনেকে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, এ ব্যবসার সঙ্গে শতাধিক বাংলাদেশি জড়িত রয়েছেন। প্রতিটি প্রদেশে রয়েছে তাদের শক্তিশালী নেটওয়ার্ক। এ নেটওয়ার্ক প্রতিদিন গড়ে প্রায় ২-৩ কোটি টাকা লেনদেন করে হুন্ডির মাধ্যমে। মালয়েশিয়া থেকে ৭০ শতাংশ প্রবাসী হুন্ডির মাধ্যমে দেশে অর্থ পাঠান। ৭০ শতাংশের মধ্যে ৪০ শতাংশ অবৈধ এবং ৩০ শতাংশ বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে কাজ করেন।

কারণ হিসেবে জানা গেছে, বৈধ কাগজপত্র না থাকায় অবৈধরা পুলিশের ভয়ে হুন্ডি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করে দেশে অর্থ পাঠান।

মালয়েশিয়ার এনবিএল রেমিটেন্স হাউসের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট শেখ আক্তার উদ্দিন আহমেদ রোববার এ প্রতিবেদককে জানান, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ২ জুন পর্যন্ত এনবিএলের ৯টি শাখার মাধ্যমে ৪২০ কোটি ৬০ লাখ ৪৫ হাজার টাকার রেমিটেন্স প্রবাসীরা পাঠিয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×