দলে শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে : ওবায়দুল কাদের

খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে সরকার হস্তক্ষেপ করেনি, করছে না, করবেও না

  যুগান্তর রিপোর্ট ২০ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

স্থানীয় সরকার ও জাতীয় নির্বাচনে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে শিগগিরই ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, সম্প্রতি দলের শৃঙ্খলা বিচ্যুতি নিয়ে নেত্রীর (আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) সঙ্গে আলোচনা করেছি। দলের পরবর্তী ওয়ার্কিং কমিটির মিটিংয়ে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। যারা শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করব- নেত্রী এমন আভাস দিয়েছেন।

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ এ সভার আয়োজন করে। ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বড় সংগঠন। বড় পরিবার। এখানে সবসময় সবকিছু শৃঙ্খলার মধ্যে হবে- এমনটা সর্বক্ষেত্রে আশা করা যায় না। তবে বিগত জাতীয় নির্বাচনে আমরা ইতিহাসের একটা বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছি। অল্প কয়েকজন বিদ্রোহী ছিল কিন্তু নির্বাচনের আগেই তারা প্রত্যাহার করে নিয়েছিল। শেষপর্যন্ত মাত্র দু’জন বিদ্রোহী ছিল। উপজেলা নির্বাচন ও ইউনিয়ন পরিষদের স্থানীয় নির্বাচনেও কিছু বিদ্রোহ কিছু কলহ-কোন্দল আছে। মঙ্গলবার যেসব উপজেলা নির্বাচন হয়েছে তাতে ছয়জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আগেই নির্বাচিত হয়েছিলেন। কাজেই এখানে অর্ধেকই বিদ্রোহী প্রার্থী জয়লাভ করেছে- এ কথা বলার কোনো কারণ নেই।

খালেদা জিয়ার জামিন প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, আমার বক্তব্যের জন্য নাকি বিএনপি নেত্রীর জামিন হচ্ছে না- বিএনপি নেতাদের এমন কথা হাস্যকর। আমার বক্তব্যের সঙ্গে বিএনপি নেত্রীর জামিন না হওয়ার মধ্যে তারা কীভাবে যোগসূত্র খুঁজে পেলেন, সেটা বোধগম্য নয়। তিনি বলেন, আমি আগেও বলেছি বেগম জিয়ার জামিনের ব্যাপারে সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। ৩০-৩২টা মামলায় তার জামিন হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়াতেই তার জামিন হচ্ছে। আমি বলেছি- আদালত বেগম জিয়াকে মুক্তি দিলে সরকার সেখানে কোনো হস্তক্ষেপ অতীতেও করেনি, বর্তমানে করছে না, ভবিষ্যতেও করবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অনেক নতুন মুখ আওয়ামী লীগের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। সামাজিক সাংস্কৃতিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার যারা অতীতে আওয়ামী লীগে আসেন নাই, তারাও এবার নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি বলেন, আবেগ কিন্তু বেশি দিন থাকে না। আবেগের সঙ্গে চেতনা থাকতে হবে। আপনারা আবার নতুন করে সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করেন।

দুর্দিন-দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাকর্মীদের খোঁজখবর রাখার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, দলে কারও দায়িত্ব চিরস্থায়ী নয়, আপনারা যদি দায়িত্বে থাকাকালে ভালো কাজ করেন, সৎভাবে চলেন, স্বচ্ছতার সঙ্গে কাজ করেন, তাহলে যখন দায়িত্বে থাকবেন না, তখন আপনাকে সবাই সম্মান দেবে, সালাম দেবে। আর আপনি যদি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে দলের মধ্যে উপদল সৃষ্টি করেন, ঘরের মধ্যে ঘর করতে যান, তাহলে যখন পাওয়ার থাকবে না তখন কেউ আপনাকে সালাম দেবে না।

দলের অভ্যন্তরের কোলহ-কোন্দলের কারণগুলো দূর করার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, কমিটি করতে গিয়ে নিজের লোক খুঁজবেন না। দলের লোক খুঁজবেন। কেউ নিজের থাকবে না। নিজের লোক কখনও চিরস্থায়ী হয় না। দলের জন্য লোক সৃষ্টি করেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমাদের সহযোগী সংগঠনগুলো যাদের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে, গঠনতান্ত্রিকভাবে তাদের অলরেডি আমরা নির্দেশনা দিয়েছি সম্মেলন সমাপ্ত করার জন্য। শুধু সহযোগী সংগঠন নয়, আওয়ামী লীগেরও সেই জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা যেসব শাখা সংগঠনগুলোর মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে তাদেরও জাতীয় সম্মেলনের আগে স্ব স্ব শাখার সম্মেলন কাজ সমাপ্ত করার জন্য কেন্দ্র থেকে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। সভায় মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, নাশকতা করে কেউ পার পাবে না। এ ব্যাপারে আমাদের গোয়েন্দা বাহিনী প্রস্তুত আছে। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আমরা মহানগর আওয়ামী লীগের ঐতিহ্য তুলে ধরব। আগামী বছর আমরা মুজিব বর্ষ পালন করব। তারপর আমরা স্বাধীনতার ৫০ বছর পালন করব। আমরা যেন মুজিব বর্ষকে সফলভাবে পালন করতে পারি তার একটি ট্রায়াল দেব জুন মাসে।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম রহমত উল্লাহর সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানসহ উত্তরের বিভিন্ন থানার নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×