বুয়েট শিক্ষার্থীদের ১৬ দফা আন্দোলন

দাবি পূরণের নোটিশ পেয়ে ক্লাসে ফিরলেন শিক্ষার্থীরা

  ঢাবি প্রতিনিধি ২৩ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দাবি পূরণ

গবেষণায় বরাদ্দ বৃদ্ধি, শিক্ষক মূল্যায়ন প্রোগ্রাম চালু, নতুন ছাত্রকল্যাণ পরিচালকের (ডিএসডব্লিউ) অপসারণসহ ১৬ দফা দাবি পূরণের আশ্বাস পেয়ে শনিবার ক্লাসে ফিরেছেন বুয়েটের শিক্ষার্থীরা।

গত সপ্তাহে টানা আন্দোলনের ৬ষ্ঠ দিনে শিক্ষামন্ত্রীর দাবি পূরণের আশ্বাস ও বুয়েট প্রশাসনের নোটিশ পেয়ে আন্দোলন স্থগিত করেছেন তারা। এ সময় মন্ত্রী শিক্ষার্থীদের দাবিগুলোকে যৌক্তিক বলে উল্লেখ করেন। এর আগে আন্দোলনের ৭ম দিন শুক্রবার গভীর রাতে বুয়েটের ভিসি স্বাক্ষরিত দাবি পূরণের সুনির্দিষ্ট তারিখ সংবলিত একটি নোটিশ দেয়া হয়।

আন্দোলনের মুখপাত্র ও যন্ত্রকৌশল বিভাগের ১৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী হাসান সরোয়ার সৈকত বলেন, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পরে আমরা নোটিশ দেয়ার দাবি জানিয়েছিলাম। শুক্রবার রাতে নোটিশ দেয়ায় ক্লাসে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে নোটিশে উল্লিখিত সময়ের মধ্যে দাবি বাস্তবায়ন না হলে আবার আন্দোলনে নামতে বাধ্য হব।

১৫ জুন থেকে ১৬ দফা দাবি নিয়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলনে নামেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা। দাবি মানতে ভিসিকে তিন দিনের আলটিমেটাম দিলেও তিনি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। ষষ্ঠ দিনে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী। সেখানে ২১ সদস্যের প্রতিনিধি দলের দাবি-দাওয়া শুনে তা পূরণের আশ্বাস দিয়ে প্রশাসনকে উদ্যোগ নিতে নির্দেশ দেন শিক্ষামন্ত্রী। শিক্ষার্থীদের ১৬ দফা দাবি হল ‘বুয়েট গেটের জন্য সিভিল-আর্কিটেকচার ডিপার্টমেন্টের বিশেষজ্ঞ শিক্ষকদের নিয়ে কমিটি গঠন ও ডিজাইনের জন্য ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে প্রতিযোগিতা আয়োজন করার অফিশিয়াল নোটিশ প্রদান; বিতর্কিত নতুন ডিএসডব্লিউ (ছাত্রকল্যাণ দফতরের পরিচালক) অপসারণ করে ছাত্রবান্ধব ডিএসডব্লিউ নিয়োগ; ছাত্রী হলের নাম ‘সাবেকুন নাহার সনি হল’ নামকরণ; শিক্ষার্থীদের ১০৮ ক্রেডিট অর্জনের পর ডাবল সাপ্লিমেন্ট পুনর্বহাল; ভিসি অফিসে আটকে পড়া বিভিন্ন আবাসিক হলের অবকাঠামোগত কাজ সম্পাদন; ‘সিয়াম-সাইফ’ নামে সুইমিংপুল কমপ্লেক্স স্থাপনে ভিসির স্বাক্ষরসহ নোটিশ; নির্মাণাধীন টিএসসি ভবন ও ন্যাম ভবনের কাজ শুরু করা; নিয়মিত শিক্ষক মূল্যায়ন প্রোগ্রাম চালু; বুয়েটের যাবতীয় লেনদেনে ডিজিটাল পদ্ধতি চালু; নির্বিচারে ক্যাম্পাসের গাছ কাটা বন্ধ ও যতগুলো গাছ কাটা হয়েছে তার দ্বিগুণ গাছ উপাচার্যের উপস্থিতিতে লাগানো; গবেষণায় বরাদ্দ বৃদ্ধি; প্রাতিষ্ঠানিক মেইল আইডি প্রদান; ওয়াই-ফাই আধুনিকায়ন; ব্যায়ামাগার আধুনিকায়ন; বুয়েট মাঠের উন্নয়ন ও পরীক্ষার খাতায় রোলের পরিবর্তে কোড সিস্টেম চালু।

বুয়েট প্রশাসনের নোটিশ : দাবি পূরণের বিষয়ে নোটিশে দু’ধরনের কথার উল্লেখ রয়েছে। একটি হল, ১৬ দফা দাবির কয়েকটি বাস্তবায়নে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও কয়েকটির ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। একাডেমিক কয়েকটি বিষয়ের ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল। দাবি পূরণে তাদেরকে অনুরোধ করবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ছাত্রকল্যাণ দফতরের নবনিযুক্ত পরিচালক অধ্যাপক আবুল কাশেম মিয়া পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। শিগগির এ পদে শিক্ষার্থীবান্ধব একজন শিক্ষককে নিয়োগ দেয়া হবে। সাবেকুন নাহার সনির নামে ছাত্রী হলের নামকরণের বিষয়টি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বসবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মকানুন পর্যালোচনা করে ছাত্রী হলের নাম পরিবর্তনের বিষয়ে মতামত দিতে ইতিমধ্যে উচ্চপর্যায়ের একটি কমিটি করা হয়েছে। ডাবল সাপ্লিমেন্ট পরীক্ষার বিষয়টি একাডেমিক কাউন্সিলের আলোচ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের গবেষণায় বরাদ্দ বাড়ানো ও আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে অনুদানের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় ফান্ডের ব্যবস্থা করবে। শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল আইডি দেয়ার বিষয়টি প্রশাসন থেকে এক মাসের মধ্যে সম্পন্ন করা হবে।

নোটিশে জানানো হয়, বুয়েট ফটক নির্মাণের জন্য সিভিল-আর্কিটেকচার বিভাগের বিশেষজ্ঞদের নিয়ে ইতিমধ্যে একটি কমিটি করা হয়েছে এবং নকশার জন্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রতিযোগিতা আয়োজন করার আনুষ্ঠানিক নোটিশ শিগগির জারি করা হবে। আবাসিক হলগুলোর অবকাঠামোগত উন্নয়ন কাজ দ্রুত সম্পাদনে শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। প্রশাসন জানায়, কোনো কৃতী সাঁতারুর নামে সুইমিংপুল কমপ্লেক্স নির্মিত হতে পারে। কাজটি প্রক্রিয়াধীন, বর্তমানে একনেক সভায় পাঠাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। শিক্ষক মূল্যায়নের বিষয়ে বলা হয়, সব বিভাগে নিয়মিত কোর্স শিক্ষক মূল্যায়নের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বিষয়টি একাডেমিক কাউন্সিলের সভার আলোচ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। এ ছাড়া তিন মাসের মধ্যে শ্রেণীকক্ষগুলোয় সাউন্ড সিস্টেম স্থাপন, ক্যাম্পাসকে সবুজায়ন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের যাবতীয় লেনদেনে ডিজিটাল পদ্ধতি প্রবর্তনে তিন মাসের মধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি উপস্থিত থেকে ক্যাম্পাসে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করবেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×