কর্মসংস্থান না হলে বিনিয়োগ হবে না বৈষম্যও কমবে না

-রওশন এরশাদ

  সংসদ রিপোর্টার ৩০ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ধনী-গরিবের বৈষম্য দূর করতে কর্মসংস্থানের জন্য বিশেষ উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা ও জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ। শনিবার বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ আহ্বান জানান। রওশন এরশাদ বলেন, দেশে কর্মসংস্থান না হলে বিনিয়োগ হবে না, বৈষম্যও কমবে না। এ সময় তিনি টাকার অবমূল্যায়ন করা হলে মূল্যস্ফীতি বাড়বে ও দেশে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি হবে বলেও মন্তব্য করেন।

রওশন এরশাদ বলেন, আমরা সমৃদ্ধি সোপানের সিঁড়ি বেয়ে আরও উপরে উঠতে চাই। বাজেটে গরিব-ধনীদের বৈষম্য যাতে হ্রাস পায় সেদিকে বিশেষ লক্ষ্য রাখতে হবে। শিক্ষার মান উন্নয়ন করতে হবে। তিনি বলেন, এডিপিতে ঘন ঘন প্রকল্প পরিচালক বদলি, ঠিকাদারদের হাতে বন্দি থাকায় প্রকল্পে খরচ বাড়ছে। এডিপিতে গৃহীত প্রকল্পগুলো ঠিকভাবে বাস্তবায়ন হতে পারে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তাই অর্থবছরের সময় পরিবর্তন করা উচিত, কারণ বর্ষা মৌসুমে অর্থবছর শুরু হয়। সে কথা মাথায় রেখে প্রয়োজনে অর্থবছর শীতকালে শুরু হলে উন্নয়ন আরও বাড়বে। রওশন এরশাদ বলেন, রাজস্ব আদায় বাজেটের বড় চ্যালেঞ্জ। কিন্তু রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য অর্জনে সংস্কারের পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। বাজেটের ঘাটতি পূরণে ব্যাংক থেকে টাকা নেয়ার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু ব্যাংকে নগদ টাকা নেই। সেখান থেকে টাকা নিয়ে ঘাটতি পূরণ করলে বেসরকারি খাত বিনিয়োগের জন্য টাকা পাবে না। ফলে বিনিয়োগ নির্ভর কর্মসংস্থান করতে ঋণ প্রবাহে সমস্যা হবে। ভ্যাট আদায় প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নতুন যে ভ্যাট আইনের প্রস্তাব করা হয়েছে তা বাস্তবায়িত হলে জটিলতা দেখা দেবে। ফলে রাজস্ব আদায়ে অস্থিরতা সৃষ্টি হবে। নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়নের আগে তিনি বিশেষজ্ঞ মতামত নেয়ার প্রস্তাব করেন। স্বাস্থ্য খাত প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ও সরকারি হাসপাতালের সেবার মান নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ না বাড়লে চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার প্রবণতা বাড়বে। তাই স্বাস্থ্য খাতে বেশি নজর দিতে হবে। এ খাতে দুর্নীতি কঠোরভাবে দমন করতে হবে।

পুঁজিবাজার প্রসঙ্গে রওশন এরশাদ বলেন, ছোট ছোট বিনিয়োগকারীরা নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এদের প্রণোদনা দিতে হবে। বড় বড় কোম্পানিকে পুঁজিবাজারে আনতে হলে উদ্যোগ নিতে হবে। অনলাইনে কেনাবেচার ক্ষেত্রে ভ্যাট প্রয়োগ করা হলে অনেক তরুণ-তরুণী জড়িত রয়েছেন, তারা নিরুৎসাহিত হবেন। এ খাত ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তিনি বলেন, এডিপি বাস্তবায়নে কর্মসংস্থান বাড়াতে হবে। কর্মসংস্থান না হলে বিনিয়োগ হবে না, বৈষম্য কমবে না। বেকারের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়বে। বিরোধী দলের নেতা বলেন, কালো টাকা সাদা করার সুযোগ প্রদান বিশ্বের অনেক দেশেই হয়। এ সুযোগ না দিলে কালো টাকার মালিকরা দেশে বিনিয়োগ না করে বিদেশে অর্থ পাচার করবে।

নারীর জন্য পৃথক ব্যাংক সৃষ্টির দাবি জানিয়ে রওশন এরশাদ বলেন, এ ব্যাংক থেকে নারী উদ্যোক্তারা ঋণ নিয়ে নিজেরা স্বাবলম্বী হবেন, অন্যদের স্বাবলম্বী করবেন। তিনি বলেন, কৃষকরা ধান উৎপাদন করে মাথায় হাত দিয়েছে। কৃষকরা শস্য ফলিয়ে উৎপাদিত পণ্যের দাম পাচ্ছেন না। ক্ষুব্ধ কৃষকরা ধান পুড়িয়ে দিচ্ছেন। কৃষকরা যদি ধান না ফলান তবে আমরা খাব কী?

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×