নিষিদ্ধ করার পরও রাজধানীর প্রধান ৩ সড়কে রিকশা

দুই সিটি কর্পোরেশনের রহস্যজনক নীরবতা

প্রকাশ : ১২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

চলতি মাসের ৩ তারিখে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়, ৭ জুলাই থেকে রাজধানীর প্রধান তিন সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধ থাকবে। সেইমতে ৭ ও ৮ জুলাই মহানগরীর কুড়িল থেকে মালিবাগ ভায়া সায়েদাবাদ, শাহবাগ থেকে সায়েন্সল্যাব এবং গাবতলী থেকে আজিমপুর পর্যন্ত সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধ ছিল।

এই দুদিন রিকশাচালকরা নগরীতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। সেজন্য রাজধানীবাসী শহরে চলাচলে চরম দুর্ভোগের শিকার হন। এরপর বুধবার রিকশাচালক এবং মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করে কিছুটা নমনীয়তা প্রদর্শন করেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

সরেজমিনে বুধ ও বৃহস্পতিবার মহানগরীর সায়েদাবাদ, রামপুরা, মালিবাগ, বাড্ডা, কুড়িল, নতুন বাজার, আজিমপুর, নিউমার্কেট, সায়েন্সল্যাব, শাহবাগ, শ্যামলী, মাজাররোড, গাবতলীর প্রধান সড়কে বিপুলসংখ্যক রিকশা লক্ষ্য করা গেছে।

বৃহস্পতিবার রামপুরা ব্রিজের ওপর কথা হয় রিকশাচালক আবুল হোসেনের সঙ্গে। তিনি যুগান্তরকে বলেন, ‘বুধবার থেকে সড়কে রিকশা চালালে পুলিশ বা সিটি কর্পোরেশন কোনো বাধা দিচ্ছে না। আমাদের নেতারা বলেছেন, তোমরা রিকশা চালাও, কোনো অসুবিধা হবে না।’

সায়েন্সল্যাব মোড়ে রিকশাচালক ইনতাজ আলী যুগান্তরকে বলেন, ‘রিকশা চালিয়ে ছয় জনের সংসার চালাই। রিকশা বন্ধ হলে আমরা না খেয়ে মরব।’ তিনি আরও বলেন, ‘সোম ও মঙ্গলবার পুলিশের বাধায় রিকশা চালাতে না পারলেও বুধবার থেকে রিকশা চালাতে কেউ বাধা দিচ্ছে না।’ বৃহস্পতিবার বিকালে সায়েন্সল্যাব মোড়ে রিকশাচালক ইনতাজ আলী যুগান্তরকে বলেন, ‘রিকশা চালিয়ে ছয় জনের সংসার চালাই। রিকশা বন্ধ হলে আমরা না খেয়ে মরব।’ তিনি আরও বলেন, ‘সোম ও মঙ্গলবার পুলিশের বাধায় রিকশা চালাতে না পারলেও বুধবার থেকে রিকশা চালাতে কেউ বাধা দিচ্ছে না।’ বৃহস্পতিবার বিকালে কুড়িল চৌরাস্তায় অর্ধশত রিকশা লক্ষ করা গেছে। বৃষ্টির মধ্যে কাগজ টাঙ্গিয়ে তাদেরকে যাত্রী পরিবহন করতে দেখা গেছে। রহমত আলী নামে এক রিকশাচালক যুগান্তরকে বলেন, ‘স্যার আমাদের পক্ষে লিখেন, আমাদের পেটে লাথি মারবেন না।’ তিনি আরও জানান, ‘নেতাদের সঙ্গে মেয়রের বৈঠকের পর থেকে আমাগো রিকশা চালাতে পুলিশ কোনো বাধা দিতাছে না।’

প্রসঙ্গত, ৩ জুলাই ‘ঢাকা মহানগরীর অবৈধ যানবাহন দূর/বন্ধ, ফুটপাত দখলমুক্ত ও অবৈধ পার্কিং বন্ধে গঠিত’ কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, ৭ জুলাই থেকে মহানগরীর তিন প্রধান সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধ থাকবে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কাজ শুরু হয়, কিন্তু রিকশাচালকদের বাধার মুখে পিছু হটেছেন সংশ্লিষ্টরা। এ প্রসঙ্গে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ‘রিকশা না চালানোর ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি, তবে এ বিষয়ে রোববার সমন্বয় কমিটির জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে সার্বিক বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।’ এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, ‘পূর্বের সিদ্ধান্তই বহাল। তবে বাইলেনে রিকশা চলবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রিকশা কন্ট্রোলের দায়িত্ব ঢাকা মহানগর পুলিশের এবং ফুটপাত দখলমুক্ত করার দায়িত্ব সিটি কর্পোরেশনের।’