১৫ ও ২১ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একই সূত্রে গাঁথা
jugantor
১৫ ও ২১ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একই সূত্রে গাঁথা
আমির হোসেন আমু

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২১ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আমির হোসেন আমু বলেছেন, ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্টের হত্যাকাণ্ড ও হামলা একই সূত্রে গাঁথা। স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। পাকিস্তানি পতাকা আবারো উড়াতে এসব করা হয়েছে। মঙ্গলবার এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাবেকমন্ত্রী আমু এসব কথা বলেন।

খাদ্য অধিদফতরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন খাদ্যসচিব শাহাবুদ্দিন আহমদ। এতে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, আবদুল হাই এমপি, খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক নাজমানারা খানম, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান সরোয়ার জাহান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

আমির হোসেন আমু আরও বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের মোটিভ এবং খুনের বেনিফিসিয়ারি কারা তা খুঁজে বের করতে হবে। ৭১-এ পরাজিত শক্তিই বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেছে। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ড ব্যক্তি মুজিবের বিরুদ্ধে নয়, এটা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের ওপর সরাসরি আঘাত ছিল।

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট এ শক্তি গ্রেনেড হামলার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। এ পর্যন্ত শেখ হাসিনাকে ১৯বার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। আমু বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যার নেতৃত্বে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। সারা বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল।

খাদ্যসচিব শাহাবুদ্দিন আহমদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৫৫ বছরের জীবনে প্রতিটি ধাপেই রয়েছে শিক্ষণীয় বিষয়। পাকিস্তান সৃষ্টির পর তিনি বুঝতে পেরেছিলেন বাঙালির মুক্তি চাইলে বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে হবে।

১৫ ও ২১ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একই সূত্রে গাঁথা

আমির হোসেন আমু
 যুগান্তর রিপোর্ট 
২১ আগস্ট ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আমির হোসেন আমু বলেছেন, ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্টের হত্যাকাণ্ড ও হামলা একই সূত্রে গাঁথা। স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। পাকিস্তানি পতাকা আবারো উড়াতে এসব করা হয়েছে। মঙ্গলবার এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাবেকমন্ত্রী আমু এসব কথা বলেন।

খাদ্য অধিদফতরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন খাদ্যসচিব শাহাবুদ্দিন আহমদ। এতে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, আবদুল হাই এমপি, খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক নাজমানারা খানম, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান সরোয়ার জাহান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

আমির হোসেন আমু আরও বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের মোটিভ এবং খুনের বেনিফিসিয়ারি কারা তা খুঁজে বের করতে হবে। ৭১-এ পরাজিত শক্তিই বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেছে। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ড ব্যক্তি মুজিবের বিরুদ্ধে নয়, এটা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের ওপর সরাসরি আঘাত ছিল।

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট এ শক্তি গ্রেনেড হামলার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। এ পর্যন্ত শেখ হাসিনাকে ১৯বার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। আমু বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যার নেতৃত্বে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। সারা বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল।

খাদ্যসচিব শাহাবুদ্দিন আহমদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৫৫ বছরের জীবনে প্রতিটি ধাপেই রয়েছে শিক্ষণীয় বিষয়। পাকিস্তান সৃষ্টির পর তিনি বুঝতে পেরেছিলেন বাঙালির মুক্তি চাইলে বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে হবে।