ইউপি শক্তিশালী না হলে গ্রামীণ উন্নয়ন হবে না

-এলজিআরডিমন্ত্রী

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দেশের ইউনিয়ন পরিষদগুলোর (ইউপি) সক্ষমতা না বাড়াতে পারলে গ্রামীণ উন্নয়ন হবে না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী (এলজিআরডি) মো. তাজুল ইসলাম। বৃহস্পতিবার মতিঝিল সিটি সেন্টারে লোকাল গভর্ন্যান্স প্রজেক্টের (এলজিপিএস-৩) কার্যক্রম বাস্তবায়ন বিষয়ক মতবিনিময় সভায় তিনি একথা জানান।

এলজিআরডিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার নির্বাচনী ইশতেহারে গ্রামের উন্নয়নের কথা বলেছেন। সেজন্য ইউনিয়ন পর্যায়ে জনসেবার মান আরও উন্নত ও নিশ্চিত না হলে দেশ এগিয়ে যাবে না। সে লক্ষ্যে পৌঁছাতে ইউনিয়ন পরিষদকে আরও শক্তিশালী ও কার্যকর করা হবে। পাশাপাশি ইউপি চেয়ারম্যানদের দায়িত্বশীলতা ও কর্তব্যবোধ বাড়াতে হবে। তিনি বলেন, প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদকে আয় বাড়াতে হবে। তাদের আয়ের অনেক খাত রয়েছে। সেগুলো ব্যবহার করে নানা অবকাঠামো বা সেবামূলক প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করতে হবে। যে প্রতিষ্ঠানগুলো সাধারণ মানুষের কাজে আসে। সেবা দিয়ে মানুষের কাছ থেকে কিছু অর্থ নিতে হবে। এভাবে তাদের সক্ষমতাও বাড়তে হবে। তিনি বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের জবাবদিহিতা বাড়াতে হবে। তারা নিয়মিত তাদের কার্যালয়ে বসেন না। অনেক নাগরিক তাদের গুরুত্বপূর্ণ কাজে এসে তাদের পান না। আর চেয়ারম্যানরা জানে না তাদের কি দায়িত্ব বা কাজ। সেগুলো তাদের বুঝিয়ে দিতে হবে। তাজুল ইসলাম বলেন, জনগণকে কাক্সিক্ষত সেবা দিতে নতুন নতুন ধারণা নিয়ে কাজ করতে হবে। উদ্ভাবনী চিন্তাভাবনা ও পদ্ধতির মাধ্যমে জনসেবা নিশ্চিত করতে হবে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ বলেন, একটা সময় ইউনিয়ন পরিষদের কোনো একটা প্রকল্পের জন্য যে বাজেট হতো, সেটা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পর্যন্ত পৌঁছাত না। আর যদিও বা পৌঁছাত তারা টাকা উঠিয়ে তাদের ব্যক্তিগত খাতে খরচ করে ফেলত। মেয়াদ শেষ হয়ে যেত প্রকল্পের কাজ আর হতো না। এখন আর সেই সিস্টেম নেই। এখন এলজিপিএসের মাধ্যমে অনলাইনে টাকা পাঠানো হয়। সেখানে কারও দুর্নীতির সুযোগ থাকে না। প্রকল্পের কাজও হয়। মতবিনিময় সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত সচিব রোকসানা কাদের, এলজিএসপি-৩ এর প্রকল্প পরিচালক সরদার সরাফত আলীসহ মন্ত্রণালয় ও প্রকল্পের কর্মকর্তারা।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত