ভিকারুননিসায় ৪৪৩ ছাত্রীকে অবৈধ ভর্তি

সাবেক অধ্যক্ষকে শোকজ, বন্ধ হতে পারে এমপিও

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৫ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ভিকারুননিসায় ৪৪৩ ছাত্রীকে অবৈধ ভর্তি

সরকারের নীতিমালা লঙ্ঘন করে ভিকারুননিসা নূন স্কুল ও কলেজে অবৈধভাবে ৪৪৩ ছাত্রী ভর্তি করা হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) এক তদন্তে এটি প্রমাণিত হয়েছে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ভর্তিকালে প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে শোকজ করা হয়েছে। আগামী ২৯ আগস্টের মধ্যে ওই শোকজের জবাব দিতে বলা হয়েছে। জবাব সন্তোষজনক না হলে বন্ধ হয়ে যাবে ওই অধ্যক্ষের সরকারি বেতনভাতা বা এমপিও।

গত ১৬ এপ্রিল যুগান্তরের তৃতীয় পৃষ্ঠায় ‘ভিকারুননিসা নূন স্কুল ও কলেজ : অবৈধ ভর্তি ৪৫৯ ছাত্রী’ শীর্ষক সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই সংবাদ প্রকাশের পর মাউশি তদন্ত কমিটি গঠন করে। যদিও কমিটির তদন্তে ৪৪৩ শিক্ষার্থী অবৈধভাবে ভর্তি করার বিষয়টি প্রমাণিত হয়।

শোকজপত্রে উল্লেখ করা হয়- ‘ঢাকা মহানগরীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল ও কলেজ কর্তৃপক্ষকে অতিরিক্ত ছাত্রী ভর্তি করার বিষয়ে এর আগে সতর্ক করা হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটিতে ভর্তি বাণিজ্যসহ দুর্নীতি ও বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগের তদন্তে শিক্ষার্থী ভর্তির নীতিমালা লঙ্ঘন করে ২০১৯ সালে পুনরায় বিভিন্ন শ্রেণিতে আসন সংখ্যার অতিরিক্ত ৪৪৩ ছাত্রী ভর্তি করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়। অতিরিক্ত ছাত্রী ভর্তির সময়ে প্রতিষ্ঠানটিতে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন হাসিনা বেগম (মূলপদ : সহকারী অধ্যাপক, অর্থনীতি)।

এমতাবস্থায় অতিরিক্ত ছাত্রী ভর্তির বিষয়ে এর আগে সতর্ক করা সত্ত্বেও অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করায় আপনার (হাসিনা বেগম) বেতনভাতা কেন বন্ধ হবে না- এ বিষয়ে আগামী ২৯ আগস্টের মধ্যে জবাব দাখিল করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হল।’

এ বিষয়ে সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের সঙ্গে দু’দিন ধরে চেষ্টা করে কথা বলা সম্ভব হয়নি। দু’দিন পরিচয় দিয়ে এসএমএস করার পরও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তবে প্রতিষ্ঠানের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফেরদৌসী বেগম যুগান্তরকে বলেন, সাবেক অধ্যক্ষকে দেয়া শোকজের কথা আমি

জানি। সেটি মাউশির ওয়েবসাইটেও প্রকাশ করা হয়েছে। একটি অনুলিপি আমাকে দেয়া হয়েছে। কিন্তু এ ব্যাপারে আমার পক্ষ থেকে কিছু করণীয় আছে কিনা সেটা বলা হয়নি। তবে বিষয়টি প্রতিষ্ঠানের জিবির (গভর্নিং বডি) সভাপতির নজরে দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, যুগান্তরের অনুসন্ধানে পাওয়া গেছে- এবার ৪৫৯ শিক্ষার্থী অতিরিক্ত ভর্তি করা হয়েছে। সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী পূর্ব ঘোষণা ছাড়া কোনো আসনে শিক্ষার্থী ভর্তি করা যাবে না।

কিন্তু প্রতিষ্ঠানটিতে ঘোষিত আসনের বাইরে নানা প্রক্রিয়ায় ছাত্রী ভর্তি করা হয়েছে। আবার ভর্তি নিয়ে নানা কৌশলের আশ্রয় নেয়া হয়েছে। এক শাখায় শূন্য আসন দেখিয়ে আরেক শাখায় ভর্তি করা হয়েছে।

অতিরিক্ত ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীর মধ্যে আবেদন না করা বেশ কয়েকজন আছে। এছাড়া লটারিতে না টেকা ও লিখিত পরীক্ষায় পাস না করা শিক্ষার্থীও ভর্তি করা হয়েছে বলে অভিযোগ আছে। এ ধরনের ভর্তিকে ‘অবৈধ’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

বিধিবহির্ভূত এই ভর্তির নেপথ্যে প্রতিষ্ঠানের সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হাসিনা বেগমকে শোকজ করা হয়েছে। কিন্তু এর পেছনে গভর্নিং বডির কয়েকজন সদস্যও মূল ভূমিকা পালন করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

ভর্তির ক্ষেত্রে অর্থের লেনদেনের অভিযোগ করেছেন কেউ কেউ। অভিযোগকারীদের বক্তব্য- নীতিমালাবহির্ভূত ভর্তির বিষয়টি হালাল করতে কোনো কোনো ক্ষেত্রে প্রভাবশালীদের তদবিরের সুপারিশ রক্ষা করা হয়েছে। এছাড়া স্থানীয় মাস্তান এমনকি শিক্ষা বিভাগের কোনো কোনো ব্যক্তি ভাগ পেয়েছেন বলেও অভিযোগ আছে।

গত জানুয়ারিতে এই ভর্তির বিষয়ে তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক হাসিনা বেগম (১৬ জানুয়ারি) মোবাইল ফোনে আলাপকালে যুগান্তরকে বলেছিলেন, কারও অনুরোধে যদি আমরা বাড়তি ভর্তি করি তবে তা অবৈধ বলে গণ্য হবে না।

ভিকারুননিসা একটি সুনামধারী প্রতিষ্ঠান। অনেকেরই সন্তান ভর্তির আগ্রহ থাকে এই প্রতিষ্ঠানে। তিনি আরও বলেন, প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও গভর্নিং বডি যদি চান তাহলে ভর্তির ক্ষেত্রে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের করার কিছু থাকে না।

চাইলেও এ ধরনের পদে থেকে বাধা দেয়া যায় না। আমি দায়িত্ব নেয়ার আগেই এসব ঠিকঠাক করে রাখা হয়েছিল। দায়িত্ব নেয়ার পর কেবল ভর্তিটা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে আমি কেবল ক্লার্কের কাজটি করেছি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×