সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ মুনাফায় কর আংশিক কমল

পেনশনার সঞ্চয়পত্রে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত মুনাফার ওপর কর নয়

  যুগান্তর রিপোর্ট ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সঞ্চয়পত্রের মুনাফার ওপর আরোপিত উৎসে করের হার আংশিক কমানো হয়েছে। চলতি অর্থবছরের বাজেটে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ থেকে অর্জিত মুনাফার ওপর ১০ শতাংশ উৎসে কর আরোপ করা হয়েছিল।

এখন তা কিছু ক্ষেত্রে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। বাকি ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ কর অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। নতুন কর হার গত ২৮ আগস্ট থেকে কার্যকর হবে।

নতুন নিয়মে এখন থেকে ৫ বছর মেয়াদি পেনশনার সঞ্চয়পত্রে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগের মুনাফার ওপর কোনো কর দিতে হবে না। তবে ৫ লাখ টাকার বেশি বিনিয়োগ করা হলে অর্জিত মুনাফার ওপর ১০ শতাংশ কর দিতে হবে। আগে পেনশনার সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগের মুনাফার ওপর কোনো কর আরোপিত ছিল না। এবার ৫ লাখ টাকার বেশি বিনিয়োগ হলে সেই মুনাফাকে করের আওতায় আনা হয়েছে। সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা কেবলমাত্র পেনশনের টাকায় এ সঞ্চয়পত্র কিনতে পারেন। অন্য কেউ এটি কিনতে পারেন না। প্রবাসীদের জন্য চালু ওয়েজ আর্নার্স ডেভেলপমেন্ট বন্ড ও অনিবাসী বৈদেশিক মুদ্রা হিসাবের বিপরীতে বিনিয়োগের মুনাফার ওপর আগের মতো এখনও কোনো কর দিতে হবে না। তবে এ ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীকে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে হবে। আগে রিটার্ন দাখিলও বাধ্যতামূলক ছিল না। বৈদেশিক মুদ্রা আয় বাড়াতে এ খাতের বিনিয়োগের মুনাফা করমুক্ত করা হয়েছে। অন্যান্য সঞ্চয়পত্রের বিপরীতে ৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ পর্যন্ত অর্জিত মুনাফার ওপর ৫ শতাংশ কর এবং ৫ লাখ টাকার বেশি বিনিয়োগ থেকে অর্জিত মুনাফার ওপর ১০ শতাংশ উৎসে কর দিতে হবে। এর আওতায় রয়েছে ৫ বছর মেয়াদি বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র, তিন মাস অন্তর মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়পত্র ও পরিবার সঞ্চয়পত্র। বাজেটে এসব সঞ্চয়পত্রের সব ধরনের বিনিয়োগের মুনাফার ওপর ১০ শতাংশ কর আরোপ করা হয়েছিল। স্বল্প ও মধ্যম আয়ের সঞ্চয়কারীদের বাড়তি সুবিধা দিতে ৫ লাখ টাকা বিনিয়োগের মুনাফার ওপর থেকে আরোপিত করের হার ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। এ বিষয়ে সম্প্রতি জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। ওই প্রজ্ঞাপনটি বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে একটি সার্কুলারের মাধ্যমে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে জাতীয় সঞ্চয় অধিদফতর থেকে এটি সঞ্চয় ব্যুরো ও ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংকে পাঠানো হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×