জাবি ভিসির পদত্যাগ দাবি মির্জা ফখরুলের

ছাত্রলীগের দুই নেতাকে সরিয়ে সরকার স্বীকার করেছে, দুর্নীতি চলছে * রাজনীতিবিদরা রাষ্ট্র চালাচ্ছেন না

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মির্জা ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, একটা খুব ইন্টারেস্টিং খবর আছে- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘুষ চাওয়ার অপরাধে ছাত্রলীগের যে দুই শীর্ষ নেতাকে পদচ্যুত করা হয়েছে- ওটার আবার নতুন নাম দিয়েছে ‘ফেয়ার শেয়ার’।

অর্থাৎ ৫ অথবা ১০ শতাংশ ঘুষ যে নেবে এটা হল ‘ফেয়ার শেয়ার’। এ ফেয়ার শেয়ারের মধ্যে আবার এখন ভিসির নামও চলে এসেছে। উনি নাকি ইতিমধ্যে ১ কোটি টাকা দিয়ে দিয়েছেন। তাহলে এ দুই ছাত্র (ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক) কেন? দ্রুত ভিসির পদত্যাগ করা উচিত অথবা তাকে অব্যাহতি দেয়া উচিত।

রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সোমবার দুপুরে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল।

সরকারের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সব ক্ষেত্রে দুর্নীতি চলছে। ছাত্রলীগের দুই নেতাকে বের করে দিয়ে সরকার স্বীকার করেছে যে- দুর্নীতি চলছে। এখন এমন অবস্থা হয়েছে যে হাজার চেষ্টা করেও থলের বিড়াল ঢেকে রাখা যাচ্ছে না। কালো বিড়ালের মতো বের হয়ে আসছে এবং এগুলো এখন জনগণের কাছে পুরোপুরি চলে গেছে। তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ও ডিন- তারা গোপনে ছাত্র ভর্তি করছে রাত্রিবেলা। কোথায় আছি! কোথায় আপনার দুর্নীতিমুক্ত জায়গা? স্বাস্থ্য ব্যবস্থা, শিক্ষা ব্যবস্থা, বিচারালয়- কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই।

রাজনীতিবিদরা রাষ্ট্র চালাচ্ছেন না মন্তব্য করে তিনি বলেন, এখন দেশে কারও কোনো স্বাধীনতা নেই। কী করেছে সরকার? এখন রাজনীতিবিদরা রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন না। রাষ্ট্রই আজ রাজনীতিবিদদের পরিচালনা করছে। মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম সাহেব বলেছেন সেদিন। কথাটা অত্যন্ত সত্য। পলিটিক্স এখন পলিটিশিয়ানরা চালান না, রাজনৈতিক দল চালায় না, রাষ্ট্রের বিভিন্ন সংগঠন-সংস্থা তারাই এখন রাজনীতিবিদ পরিচালনা করে। এটাই বাস্তবতা। এ সত্য উপলব্ধি করে জনগণকে অধিকার রক্ষার জন্য দাঁড়াতে হবে।

সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, এত ভয় পান কেন? ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ করতে কী নাটক আপনারা দেখালেন, কেন? তাহলে গণতন্ত্রকে আপনারা চলতে দিতে চান না। যারা গণতান্ত্রিকভাবে কাজ করতে চায় তাদের আপনারা বাধা দিতে চান, তাদের পথ বন্ধ করে দিতে চান। নির্যাতন-নিপীড়ন-হত্যা করে চিরদিন ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ফেরাউন পারেননি, নমরুদ পারেননি, মুসোলিনি পারেননি, হিটলার পারেননি, আইয়ুব খান পারেননি, এরশাদ পারেননি।

একাত্তরের পর আওয়ামী লীগও পারেনি, আপনারাও পারবেন না। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ইতিহাসের দিকে তাকান, সভ্যতার দিকে তাকান। এভাবে নির্যাতন করে, নিপীড়ন করে, খুন করে, হত্যা করে কেউ চিরদিন ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারেনি। আপনিও পারবেন না। গণতন্ত্রের পক্ষ শক্তিকে সরকার নিশ্চিহ্ন করতে চায় মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, যারা গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করছে, তাদের সরকার নানাভাবে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। তাদের পথ বন্ধ করে দিচ্ছে। বিরোধী দলের হাজার হাজার নেতাকর্মীকে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে।

গণতন্ত্রের জন্য যিনি সারাটা জীবন লড়াই করেছেন, সেই নেত্রীকে কারারুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, জনগণের ঐক্য সবচেয়ে বড় ঐক্য। আসুন সবাই মিলে গণতন্ত্রের মা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য আন্দোলনে নামি। খালেদা জিয়ার জামিন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জামিন নিশ্চিত করতে হবে।

কেন তাকে আটকে রেখেছেন? এত ভয় পান কেন? মির্জা ফখরুল বলেন, এটা সরকার অবৈধ, এই পার্লামেন্ট অবৈধ। সুতরাং অবিলম্বে পার্লামেন্ট বাতিল করে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি নতুন নির্বাচন দিতে হবে। সে নির্বাচনে নতুন সরকার, নতুন পার্লামেন্ট গঠন হবে। এ হচ্ছে জনগণের দাবি আজকে।

মুক্তিযোদ্ধা দলের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানের সঞ্চলনায় মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক জয়নুল আবেদীন, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরীন সুলতানা, বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×