ঢাকায় পাতাল রেল: সম্ভাব্যতা যাচাই কাজের অগ্রগতি ৩০ শতাংশ

  হামিদ-উজ-জামান ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পাতাল রেল

ঢাকার যানজট নিরসনে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। মেট্রোরেল, ফ্লাইওভার, ওভারপাস এবং এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে। এসবের সঙ্গে নতুন সংযোজন হবে পাতাল রেল। এটি নির্মাণের আগে প্রস্তুতি কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। জুলাই পর্যন্ত সম্ভাব্যতা যাচাই ও প্রাথমিক ডিজাইন তৈরির অগ্রগতি ৩০ শতাংশ। ২০২০ সালের অক্টোবর নাগাদ এ কাজ শেষ হবে। ২৭ আগস্ট প্রজেক্ট স্টিয়ারিং কমিটির প্রথম বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়।

বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। ১২ সেপ্টেম্বর বৈঠকের কার্যবিবরণী পাঠানো হয়েছে পরিকল্পনা কমিশনে। পাতাল রেল প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে রাজধানীবাসীর আরও একটি স্বপ্ন পূরণ হবে।

বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. আবুল হোসেন শনিবার যুগান্তরকে বলেন, যানজট নিরসনে সাবওয়েটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। সম্ভাব্যতা যাচাই করতে গিয়ে প্রথমদিকে স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে বৈঠক করতে হয়েছে। কিছুটা জটিলতা ছিল, কেটে গেছে। সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের অগ্রগতি আরও পাঁচ ভাগ বেড়ে ৩৫ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। আশাকরি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই শেষ হবে।

স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে জানানো হয়, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে ‘ফিজিবিলিটি স্টাডি অ্যান্ড প্রিলিমিনারি ডিজাইন ফর কনস্ট্রাকশন অব ঢাকা সাবওয়ে’ শীর্ষক প্রকল্প বাস্তবায়ন শুরু হয়। এর আওতায় ইতিমধ্যে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এবং দেশি-বিদেশি দক্ষ জনবল নিয়োগের মাধ্যমে সমীক্ষা শুরু হয়েছে। স্টেকহোল্ডারদের (প্রকল্প সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন শ্রেণি) নিয়মিত যোগাযোগ ও পরামর্শ গ্রহণের মাধ্যমে সমীক্ষার কাজ এগিয়ে চলছে। দক্ষ টিম মেম্বারদের দিয়ে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে তথ্য বা ডাটা সংগ্রহ করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৫ হাজার ফ্ল্যাটের হাউস হোল্ড সার্ভে শেষ হয়েছে। ৭০টি স্থানের ট্রাফিক সার্ভে এবং ১২০টি স্থানের বাস রুট সার্ভে শেষ হয়েছে। ১৫টি পয়েন্টে রোরিং সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান তিনটি নেটওয়ার্কের সম্ভাব্যতা যাচাই কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ট্রাফিক মডেলের কাজ শুরু করেছে। এটি শেষ হলেই নেটওয়ার্ক নির্বাচন এবং পরবর্তীতে প্রিলিমিনারি ডিজাইন তৈরির কাজ শুরু হবে।

সভায় প্রকল্প পরিচালক জানান, টার্মস অব রেফারেন্সে (টিওআর) ৯০ কিলোমিটার সাবওয়ের কথা উল্লেখ রয়েছে। তবে পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের মূল্যায়নে পুরো ঢাকা সাবওয়ে নেটওয়ার্কের আওতায় আনতে কমপক্ষে ২৩৮ কিলোমিটার সাবওয়ে প্রয়োজন। এ ২৩৮ কিলোমিটারের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও প্রিলিমিনারি ডিজাইন করতে হলে চুক্তি সংশোধন করতে হবে। তিনি আরও জানান, প্রাথমিক নকশার ভিত্তিতে অ্যালাইনমেন্ট ও রো সংরক্ষণ করা হলে ভবিষ্যতে ভূমি প্রাপ্যতা সংক্রান্ত জটিলতা পরিহার সম্ভব হবে। সভায় বিস্তারিত আলোচনার পর ২৩৮ কিলোমিটার সাবওয়ের সম্ভাব্যতা সমীক্ষার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, ২৪২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা ব্যয়ে সম্ভাব্যতা যাচাই চলছে। এই মাধ্যমে প্রস্তাবিত সাবওয়ে পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় বিদ্যুতের পরিমাণ, সম্ভাব্য উৎস, প্রয়োজনীয় এয়ারফ্লো’র ব্যবস্থা, সাবওয়ের জন্য অপসারিত মাটি কোথায় এবং কিভাবে রাখা হবে বা কিভাবে ব্যবহার করা হবে এবং সাবওয়ের অবস্থান, অ্যাইনমেন্ট ও দৈর্ঘ্য নির্ধারণ, প্রকল্পের বিভিন্ন উপ-অঙ্গে নির্মাণ পদ্ধতি, জিওটেকনিক্যাল ইনভেস্টিগেশন, সিসমিক স্টাডি ও সার্ভে, ট্রাফিক সার্ভে করা হবে। এছাড়া পরিবেশ ও পুনর্বাসন সংক্রান্ত সমীক্ষা পরিচালনা ও পরিকল্পনা প্রণয়ন, প্রাথমিক ডিজাইন প্রণয়ন ও এর ভিত্তিতে প্রাক্কলন প্রস্তুত, ভূমি অধিগ্রহণ পরিকলল্পনা প্রণয়ন, অর্থনৈতিক ও বিশেষণ এবং ক্রয়, পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ পরিকল্পনা তৈরি করা হবে।

প্রাথমিকভাবে চিহ্নিত চারটি সাবওয়ে রুট হচ্ছে- এক. টঙ্গী-বিমানবন্দর-কাকলী-মহাখালী-মগবাজার-পল্টন-শাপলা চত্বর-সায়েদাবাদ-নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড পর্যন্ত। দুই. আমিনবাজার-গাবতলী-আসাদগেট-নিউমার্কেট-টিএসসি-ইত্তেফাক ও সায়েদাবাদ পর্যন্ত। তিন. গাবতলী-মিরপুর-১-মিরপুর-১০-কাকলী-গুলশান-২-নতুনবাজার-রামপুরা টিভি ভবন-খিলগাঁও-শাপলা চত্বর-জগন্নাথ হল ও কেরানীগঞ্জ পর্যন্ত এবং চার. রামপুরা টিভি ভবন-নিকেতন-তেজগাঁও-সোনারগাঁও-পান্থপথ-ধানমণ্ডি-২৭, রায়েরবাজার-জিগাতলা-আজিমপুর-লালবাগ ও সদরঘাট পর্যন্ত।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×